ঢাকা ৭ শ্রাবণ ১৪৩১, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪

এ দেশে কাভার করার একটাই উদ্দেশ্য ইজি মানি ইজি ফেইম

প্রকাশ: ১১ জুলাই ২০২৪, ০১:৩৫ পিএম
আপডেট: ১১ জুলাই ২০২৪, ০১:৩৫ পিএম
ইজি মানি ইজি ফেইম

একটা গান রিলিজ করা অনেক কঠিন। অনেক কষ্ট করা লাগে, অনেক ব্যয় হয়। ১০টা গান রিলিজ করলে ১টা পপুলার হতে পারে, নাও হতে পারে। ফেসবুকের জ্ঞানী লিসেনাররা গালিও দিয়ে যেতে পারেন। ফ্রি পাবলিক স্পেস। সেখানে কাভার আপনি পপুলার গানই করবেন। রিস্ক নেই। খরচ শূন্য। টাকাও পাবেন স্টেজ থেকে। এই কাভার চর্চাটা মূলত কারা প্রতিষ্ঠিত করে একটু দেখুন। ব্যান্ডগুলো খুব কমই করে, তারা নিজেদের ক্রিয়েশনটাই প্রতিষ্ঠিত করতে চায়, নিরুপায় হয়ে কাভার করে। কিন্তু লক্ষ করুন- 

১. বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মের ভোকাল কনটেস্টের বিজয়ী ছত্রাকের মতো গজিয়ে ওঠা দুই দিনের কণ্ঠশিল্পীরা, যারা কাভার করেই শ্রেষ্ঠ ভোকাল অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে, তারা খামোকা কষ্ট করে, ব্যয় করে, মৌলিক গান বানাবে কেন? স্টেজ কাভার করে ইজি মানি কামাবে। তার মানে এই করপোরেট প্ল্যাটফর্মগুলো মূলত ট্যালেন্ট হান্টের নামে ক্রিয়েটিভ কালচারকে ধ্বংস করে দিচ্ছে।

২. ব্যান্ড ভেঙে বের হয়ে যাওয়া ভোকাল। যারা টাকা উপার্জনের ইজি ব্যবস্থাটা বুঝে ফেলেছে। কাভার গান থেকেই যদি বিনা খরচে ইনকাম জেনারেট করে, তাহলে মৌলিক গানের পরিশ্রম আর রিস্কে যাওয়ার দরকার কি?

আমি মনে করি, কাভার বিষয়টা এ দেশে ট্রিবিউট বিবেচনায় চর্চিত হয় না। ট্রিবিউট কালচারের প্রাইমারি ক্রাইটেরিয়া হচ্ছে মূল ক্রিয়েটরদের শ্রদ্ধা জানিয়ে যেকোনো উপায়ে সম্মানিত করে কাভার করা। (ডব্লিউআইপিও) রয়্যালটি ডিস্ট্রিবিশনে মূল ক্রিয়েটরের কাছে অর্জিত অর্থ পাঠিয়ে দেওয়ার ইনস্ট্রাকশন দিয়ে রেখেছে। সেটা এ দেশে হতে দেখিনি, বরং মূল ক্রিয়েটরকে হাইড করে কাভার করতেই দেখেছি। এ দেশে কাভার করার একটাই উদ্দেশ্য- ইজি মানি, ইজি ফেইম। ফুলস্টপ।

জাহ্নবী

কনার দুষ্টু কোকিলের প্রশংসায় রুনা লায়লা

প্রকাশ: ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৩:৪৬ পিএম
আপডেট: ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৩:৪৬ পিএম
কনার দুষ্টু কোকিলের প্রশংসায় রুনা লায়লা
ছবি: সংগৃহীত

উপমহাদেশের জীবন্ত কিংবদন্তি শিল্পী রুনা লায়লা। বর্তমান প্রজন্মের শিল্পীদের সঙ্গেও রয়েছে তার সখ্যতা। কারও কাজ ভালো লাগলে কোনো ধরনের রাখঢাক না করে সরলভাবে মুগ্ধতা প্রকাশ করেন রুনা লায়লা। এবার খ্যাতিমান এই শিল্পী মেতেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত শিল্পী কনার গাওয়া ‘দুষ্টু কোকিল’ গানে। গত ঈদুল আজহায় মুক্তি পাওয়া আলোচিত ‘তুফান’ সিনেমায় ব্যবহৃত এ গানটি নিয়ে রুনা লায়লা মুগ্ধতার কথা জানিয়েছেন তার ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে।

গত ১৫ জুলাই রুনা লায়লা তার ফেসবুক আইডিতে একটি স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘কয়েকদিন আগে তুফান সিনেমা দেখেছি। মেকিং ভালো এবং শাকিব খানের অভিনয় বরাবরের মতোই ভালো ছিল। সত্যিই গান দুটি ভালো সুর ও গাওয়া হয়েছে। গান দুটি আমার পছন্দ হয়েছে। তবে আমার প্রিয় ‘দুষ্টু কোকিল ডাকে কুক কুক’। খুবই আকর্ষণীয় সুর এবং অনেক ভালো গেয়েছে কনা।’ 

রুনা লায়লায় এমন প্রশংসা পেয়ে হাতে যেনো সোনার হরিণ পেয়েছেন কনা। আনন্দে খুশিতে রুনা লায়লার স্ট্যাটাসটি শেয়ার করে কনা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন কিংবদন্তি এই শিল্পীর প্রতি। কনা লিখেছেন, ‘এটা আমার সারা জীবনের অর্জন। আমার আর কি লাগবে। ভালোবাসা এবং কৃতজ্ঞতা আমাদের কিংবদন্তি রুনা লায়লা ম্যামের প্রতি।’

এ সম্পর্কে কনা বলেন, ‘রুনা লায়লা ম্যাম আমার আইডল। উনার কাছে এমন প্রশংসা পেয়ে আমার আনন্দের সীমা নেই। উনার দোয়া এবং ভালোবাসা আমার সংগীত জীবনকে আরও বেশি সমৃদ্ধ করবে। সামনে এগিয়ে যেতে সহযোগিতা করবে।’

কনার গান নিয়ে খ্যাতিমান এই শিল্পীর স্ট্যাটাসটি সংগীতাঙ্গণের অনেকেই শেয়ার করেছেন ফেসবুকে। অনেকেই আবার বলেছেন বড় মাপের শিল্পীরা এতো বেশি উদার বলেই আজ তারা এতো বড় ও খ্যাতিমান হয়েছেন।

এ মিজান/আবরার জাহিন

 

নীহার ‘অবুঝ পাখি’

প্রকাশ: ১৬ জুলাই ২০২৪, ১২:৫৫ পিএম
আপডেট: ১৬ জুলাই ২০২৪, ১২:৫৫ পিএম
নীহার ‘অবুঝ পাখি’

ছোটপর্দার পরিচিত মুখ নাজনীন নীহা। বর্তমানে যে কয়েকজন অভিনেত্রী আলো ছড়াচ্ছেন নীহা তাদের মধ্যে অন্যতম। তবে এই অভিনেত্রী মূলত নাটকেই অভিনয় করে থাকেন। ক্যারিয়ারের বয়স বেশি না হলেও কাজের পরিধি বেড়েছে অনেক।

নীহা অভিনীত সর্বশেষ আলোচিত নাটক ‘লাভ ইন’। এটি গত ভালোবাসা দিবসে প্রকাশিত হয়েছিল। প্রবীর রায় চৌধুরীর রচনায় দুই কোটিরও বেশি ভিউ হয়েছে ইউটিউবে। এতে নীহার বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন জোভান।

এবার নীহা তার পছন্দেরে গল্পে অভিনয় করেছেন। আর এই নাটক দেখার জন্য তার ভক্ত-দর্শককে আহ্বানও জানিয়েছেন। নতুন নাটকের নাম ‘অবুঝ পাখি’। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ইয়াশ রোহান। পরিচালনা করেছেন রুবেল হাসান। নীহা জানান, নাটকটি শিগগিরই ইউটিউবে প্রকাশ পাবে। এদিকে আজ নীহার জন্মদিন। তাই জন্মদিনের দিন নাটকের কোনো কাজ রাখেননি তিনি। বিশেষ এই দিন বাবা মায়ের সঙ্গেই আনন্দে কাটাতে চান এই অভিনেত্রী।

নীহা বলেন, ‘অবুঝ পাখি-নাটকের গল্প চমৎকার। নাটকটি দেখার জন্য দর্শকের প্রতি বিশেষ অনুরোধ রইলো। আর জন্মদিনে সবার কাছে দোয়া চাই যেন আল্লাহ আমাকে, আমার পরিবারের সবাইকে সুস্থ রাখেন, আমি যেন আরও ভালো ভালো গল্পের নাটক দর্শককে উপহার দিতে পারি।’

জাহ্নবী

অনিমেষে নেই ভাবনা

প্রকাশ: ১৬ জুলাই ২০২৪, ১২:৫৪ পিএম
আপডেট: ১৬ জুলাই ২০২৪, ১২:৫৪ পিএম
অনিমেষে নেই ভাবনা
অনিমেষ আইচ ও ভাবনা

জনপ্রিয় অভিনেত্রী, নৃত্যশিল্পী ও লেখিকা আশনা হাবিব ভাবনা। ছোট পর্দার গণ্ডি পেরিয়েছেন বহু আগেই। এখন তিনি পুরোদস্তুর সিনেমার নায়িকা। তবে রুপালি পর্দার এই নায়িকা ব্যক্তিজীবনেও নির্মাতা অনিমেষ আইচের জীবনের নায়িকা। এ খবর পুরোনো। তবে শোবিজ অঙ্গনে তাদের সম্পর্ক যেন ওপেন সিক্রেট। মিডিয়ায় আড়ি পাতলেই শোনা যায় তাদের প্রেমের কথা। শুধু তাই নয়, নির্মাতা ও নায়িকার বিয়ের গুঞ্জনও চাউর হয়েছে বেশ কয়েকবার। একই বাসায় তাদের বসবাসের খবরও ভেসে বেড়িয়েছে মিডিয়াপাড়ায়। তবে দুজনেই বিভিন্ন সময় জানিয়েছিলেন ভালো বন্ধুত্বের কথা। সেই বন্ধুত্বের কথা পেছনে ফেলে নিজেরাই আবার প্রকাশ করেছিলেন প্রেমের খবর। এক ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে তারা বলেছিলেন শিগগিরই নাকি বিয়েও করবেন।

গণমাধ্যমকে ভাবনা সে সময় বলেছিলেন, ‘বন্ধুত্বের সূত্র ধরেই তাদের মাঝে ভালোবাসার জন্ম। এখন আমরা দুজন একে অন্যকে ভালোবাসি। শিগগিরই বিয়ে করতে যাচ্ছি।’ এরপর কেটে গেছে দীর্ঘদিন। তবে তাদের একসঙ্গে থাকার কথা শোনা গেলেও কাগজে-কলমে বিয়েবন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। মিডিয়ার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আবার অনিমেষ ও ভাবনাকে একসঙ্গে দেখা গেছে নিয়মিত।

এবার দুজনের পথ বেঁকে গেছে। আলাদা হয়ে গেছেন শোবিজের আলোচিত এই জুটি। ভেঙে গেছে নির্মাতা এবং নায়িকার প্রেম। জানা গেছে, ভাবনা নাকি অনিমেষের সঙ্গে আর বসবাস করছেন না। তাদের মধ্যে রীতিমতো দূরত্ব তৈরি হয়েছে। একে অপরকে প্রকাশ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় করছেন হেনস্তাও। এমনিই দেখা গেছে সম্প্রতি অনিমেষ আইচের এক ফেসবুক পোস্টে। সম্প্রতি অনিমেষ আইচের একটি ফেসবুক স্ট্যাটাসে ভাবনা আক্রমণাত্মক এক কমেন্ট করেন। এর পরই চারদিকে শুরু হয় কানাঘুষা। তা হলে কি অনিমেষ ও ভাবনার সম্পর্ক শেষ হয়ে যাচ্ছে?

অনিমেষ আইচ তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘আমরা কতিপয় সেই মশা, যারা কানের কাছে পিন পিন করি না, কামড় দিয়ে রক্ত চুষি না কারও। ঘরের কোনায় ঘাপটি মেরে বসে থাকি, পাখা ঝাপটালে ফুরিয়ে যাবে জীবনের জ্বালানি তাই! ভাইরাল ড্রাইভার আবিদ আলী কিংবা ছাগল মতিউরে ভরে গেছে দেশ! আফসোস, ঠক বাছতে গাঁ উজাড়।’

এই স্ট্যাটাসে ভাবনা কমেন্টে লেখেন, ‘মিথ্যাবাদী মদখোরদের মুখে এত নীতিবাক্য মানায় না। চারুকলায় গভীর রাতে যারা কেরু মদ খায় আর মেয়েদের মলেস্ট করে, এদের মুখে এসব বড় কথা মানায় না।’

এরপর আরও জোরালো হয় এই দুই তারকার প্রেমের বিচ্ছেদের খবর। এ সম্পর্কে জানতে ভাবনার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

নির্মাতা অনিমেষ আইচকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি এখন বাইরে আছি। বাসায় গিয়ে আপনার সঙ্গে কথা বলব।’ পরবর্তী সময় অনিমেষ আইচকে আর পাওয়া যায়নি।

জানা যায়, ‘নয়টার সংবাদ’ নামের একটি নাটকের মাধ্যমে অনিমেষ ও ভাবনার পরিচয়। এই নির্মাতার ‘ভয়ংকর সুন্দর’ সিনেমা দিয়ে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় ভাবনার। এরই মধ্যে ভাবনা শেষ করেছেন ‘দামপাড়া’, ‘যাপিত জীবন’ ও ‘পায়েল’ ছবির কাজ। এদিকে প্রথমবার কান চলচ্চিত্র উৎসবে গিয়েছিলেন ভাবনা। উৎসব থেকে নতুন সিনেমায় যুক্ত হওয়ার কথা জানিয়েছিলেন তিনি। মালয়েশীয় বংশোদ্ভূত বাংলাদেশি এক নির্মাতার নতুন ছবিতে চুক্তিবদ্ধও হয়েছেন এই অভিনেত্রী। ছবির নাম ‘জেনুবিয়া’। পরিচালক জাফর ফিরোজ। বাংলা, ইংরেজি ও চায়নিজ ভাষায় ছবিটি তৈরি হবে। তিন দেশে ছবিটি মুক্তির পরিকল্পনাও রয়েছে।

জাহ্নবী

ক্যানসারে মারা গেছেন শ্যানেন ডোহার্টি

প্রকাশ: ১৬ জুলাই ২০২৪, ১২:৫২ পিএম
আপডেট: ১৬ জুলাই ২০২৪, ১২:৫২ পিএম
ক্যানসারে মারা গেছেন শ্যানেন ডোহার্টি

নব্বইয়ের দশকে ছোটপর্দার জনপ্রিয় শো ‘বেভারলি হিলস্ ৯০২০১০’-এ হাইস্কুল ছাত্রী ব্রেন্ডা ওয়ালস চরিত্র রাতারাতি জনপ্রিয় করে তুলেছিল শ্যানেন ডোহার্টিকে। দীর্ঘদিন ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করে গত শনিবার মারা গেছেন তিনি। তার বয়স হয়েছিল ৫৩ বছর।

অভিনেত্রীর জনসংযোগ সহকারী লেসলি স্লোন তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, গভীর দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, দীর্ঘদিন ক্যানসারের সঙ্গে লড়াইয়ের পর মারা গেছেন অভিনেত্রী শ্যানেন ডোহার্টি।

২০১৫ সালে প্রথম নিজের ক্যানসার নিয়ে কথা বলেন শ্যানেন। তিনি স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছিলেন। গত বছর তিনি জানান, রোগটি ছড়িয়ে পড়েছে, তিনি লড়াই চালিয়ে যাবেন। সেই লড়াই থামল শনিবার। তার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে অনুরাগীদের ভেতর।

১৯৯৪ সালে ‘বেভারলি হিলস্’-এর চার নম্বর সিজনের শুটিং চলাকালে ধারাবাহিকের আরেক অভিনেতার সঙ্গে বিরোধ তৈরি হয় শ্যানেনের। পরে তিনি ওই ধারাবাহিক থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করেন। তাকে ছাড়াই ২০০০ সাল পর্যন্ত চলেছিল ওই ধারাবাহিকের আরও কয়েকটি সিজন।

গত বছর এক পডকাস্টে শ্যানেন বলেছিলেন, আমার মৃত্যুর খবর শুনে লোকে যেন না কাঁদে। আমি চাই লোকে বলুক, সৃষ্টিকর্তা বাঁচিয়েছে, মরেছে। শ্যানেন ‘হেথার’, ‘ফোরট্রেস’, ‘হট সিট’, ‘নো ওয়ান উড টেল’, ‘ডার্কনেস অব ম্যান’সহ বেশ কিছু সিনেমায় অভিনয় করেছেন।

জাহ্নবী

বাউল চরিত্রে তাপসী পান্নু

প্রকাশ: ১৬ জুলাই ২০২৪, ১২:৫১ পিএম
আপডেট: ১৬ জুলাই ২০২৪, ১২:৫১ পিএম
বাউল চরিত্রে তাপসী পান্নু

পার্বতী বাউলের জীবন নিয়ে নির্মিত হচ্ছে বায়োপিক। এতে দেখা যাবে তার তিন সময়ের জীবন। তরুণ সময়ের ভূমিকায় দেখা যাবে বলিউড তারকা তাপসী পান্নুকে। হিন্দি ভাষায় নির্মিত ছবিটি পরিচালনা করছেন টালিউডের পরিচালক সৌম্যজিৎ মজুমদার। বায়োপিকের নাম ‘জয়গুরু’।

বাউল গান ও দর্শনকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পৌঁছে দিতে যারা অবদান রেখেছেন, পার্বতী তাদের অন্যতম। তার বায়োপিকে অভিনয় করবেন টালিউড ও বলিউডের বেশ কজন তারকা। নিজের চরিত্রে কাদের দেখতে পছন্দ করবেন পার্বতী? এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, প্রধান চরিত্রে এখন পর্যন্ত শেফালী শাহ, মনীষা কৈরালা ও তাপসী পান্নুকে দেখা যাবে হয়তো। তাদের প্রত্যেকের অভিনয় আমার খুব ভালো লাগে।’

ভারতীয় গণমাধ্যম পরিচালক সৌম্যজিৎ মজুমদার বলেন, ‘প্রায় দুই বছর ধরে আমি পার্বতী বাউলকে নিয়ে গবেষণা করছি। তার জীবন থেকে দেখলাম, বাউলের আধ্যাত্মিক শক্তি জীবন বদলে দিতে পারে। তাই বলব, ‘জয়গুরু’ শুধু একটা সিনেমা নয়, বায়োপিক নয়, এটি বর্তমান প্রজন্মকে দেওয়া একটা বার্তা।’

এই মুহূর্তে চলছে ‘জয়গুরু’ ছবির কাস্টিং। ২০২৫ সালে শুরু হবে ছবির শুটিং। বোলপুর, বৃন্দাবন, কেরালা ও উত্তর প্রদেশের কিছু অঞ্চলে হবে শুটিং। ছবিতে থাকবে বেশ কিছু হৃদয়গ্রাহী বাউল গান।

অন্যদিকে তাপসী পান্নুর সর্বশেষ মুক্তি পাওয়া সিনেমা ‘ডাঙ্কি’। ২০২৩ সালের ২১ ডিসেম্বর এটি মুক্তি পেয়েছিল। রাজকুমার হিরানির পরিচালনায় শাহরুখ খানের বিপরীতে দেখা গেছে তাকে। তাপসী অভিনীত ‘ও লাড়কি হ্যায় কাহাঁ’, ‘ফির আয়ি হাসিন দিলরুবা’, ‘খেল খেল মে’ সিনেমাগুলো মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে।

জাহ্নবী