ঢাকা ৭ শ্রাবণ ১৪৩১, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪

ন্যাটো সম্মেলনে বাইডেনের দৃঢ় ভাষণ

প্রকাশ: ১১ জুলাই ২০২৪, ০৯:১৩ এএম
আপডেট: ১১ জুলাই ২০২৪, ০৯:১৩ এএম
ন্যাটো সম্মেলনে বাইডেনের দৃঢ় ভাষণ
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন গত মঙ্গলবার (৯ জুলাই) ওয়াশিংটনে ন্যাটো নেতাদের স্বাগত জানিয়েছেন। তাদের উদ্দেশে সংক্ষিপ্ত জ্বালাময়ী ভাষণও রেখেছেন তিনি। সে ভাষণের মধ্য দিয়েই বাইডেন মিত্রদেশগুলোর নেতৃস্থানীয়দের আশ্বস্ত করার চেষ্টা করেছেন যে তিনি এখনো নেতৃত্ব দেওয়ার মতো অবস্থায় রয়েছেন। এ ছাড়া দেশের ভেতরেও যে বাইডেন ডোনাল্ড ট্রাম্পকে হারাতে প্রস্তুত, সে বিষয়টিও যেন স্পষ্ট করেছেন তিনি।

চলতি বছরের এপ্রিলে ৭৫ বছরে পা রেখেছে ন্যাটো। ওয়াশিংটনে ন্যাটোর যে শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে, তা ওই ৭৫ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যেই। অনেক বিশেষজ্ঞের মতে, ৭৫তম বার্ষিকীতে এই সংগঠন ভেতর ও বাইরে থেকে অস্তিত্ব নিয়ে হুমকির মুখে রয়েছে। বর্তমানে চলমান ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধ, চীনের ক্রমবর্ধমান চ্যালেঞ্জ এবং গাজায় ইসরায়েল-হামাস সংঘাত নিয়ে চাপে আছে পশ্চিমাদের এই সামরিক জোট।  

রাশিয়া ও ইউক্রেন যুদ্ধের গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে তাদের সামরিক জোট অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি শক্তিশালী বলেও দাবি করেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট। তিনি এ সময় বিশ্বনেতাদের স্বৈরশাসক সম্পর্কেও সতর্ক করে দেন। বাইডেন বলেন, স্বৈরশাসকরা বৈশ্বিক শৃঙ্খলাকে উল্টে দিচ্ছে। নিজ ভাষণে কিয়েভকে আরও সামরিক সহায়তা দেওয়ার ঘোষণাও দেন এ নেতা। 

ইউক্রেনের আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থাকে আরও জোরদার করতে দেশটিকে প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্রের ব্যাটারি ও অন্যান্য সিস্টেম দেবে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট এবং জার্মানি, ইতালি, নেদারল্যান্ডস, রোমানিয়ার নেতৃস্থানীয়রা। সব মিলিয়ে ন্যাটো পাঁচটি কৌশলগত আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে। এ ছাড়া আগামী বছরগুলোতে ছোট আকারের অ্যান্টি-এয়ার ব্যাটারিও কিয়েভের হাতে তুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।

যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো মিত্রদের এ ঘোষণা সামনে আসার দুই দিন আগেই কিয়েভের এক শিশু হাসপাতালসহ ইউক্রেনজুড়ে বিভিন্ন বড় শহরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। গত সোমবারের ওই ঘটনায় দেশজুড়ে প্রায় ৪৩ জন মারা গেছেন। আহত হয়েছেন আরও কয়েকশ মানুষ। 

বিবিসির প্রতিবেদন বলছে, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি কয়েক মাস ধরে পশ্চিমা মিত্রদের কাছে সহায়তা চেয়ে আসছেন। মঙ্গলবার বিকালে নিজ বক্তৃতায় বাইডেন বলেছেন, ইউক্রেন মুক্ত ও স্বাধীন হওয়ার মধ্য দিয়ে যুদ্ধ শেষ হবে। রাশিয়া নয়, ইউক্রেন বিজয়ী হবে।

বাইডেন পুরো ভাষণটিই রাখেন টেলিপ্রম্পটার দেখে। একদম স্পষ্ট স্বরে প্রায় ১৩ মিনিট বক্তৃতা করেন তিনি। গত মাসে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কের সময় তার গলার স্বর যে রকম দুর্বল ও ভাঙা ভাঙা শোনাচ্ছিল, তার কিছুই গতকাল ছিল না।

এদিকে, কংগ্রেসের ডেমোক্র্যাটরা ব্যক্তিগতভাবে বৈঠক করেছেন। তাদের আলোচনার মূল বিষয়বস্তু ছিল বাইডেনের নেতৃত্ব। পরে মঙ্গলবার শেষভাগে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের সপ্তম ডেমোক্র্যাট হিসেবে নিউ জার্সির মাইক শেরিল বাইডেনকে নির্বাচনে না লড়ার জন্য আহ্বান জানান। তিনি বলেন, এখানে অনেক কিছুই ঝুঁকির মুখে রয়েছে। 

অন্য ডেমোক্র্যাটরাও বাইডেনের ভবিষ্যৎ নিয়ে খুব একটা আশাবাদী নন বলে জানিয়েছেন। নাম প্রকাশ না করে একজন বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানান, ‘আমি ঠিক বুঝতে পারছি না, তিনি কীভাবে বিতর্কের ঘটনা থেকে ঘুরে দাঁড়াবেন। আমি তাকে আরও চার বছর যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটোর নেতৃত্বে দেখার কথা চিন্তা করতে পারছি না।’

বাইডেনের প্রচার দল চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তাকে সক্ষম হিসেবে দেখানোর জন্য। হোয়াইট হাউস থেকেও বাইডেনকে ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের সময় ন্যাটো জোট সম্প্রসারণের কৃতিত্ব দেওয়া হয়েছে। জোটটিতে ফিনল্যান্ড ও সুইডেন যোগ দিয়েছে।

ন্যাটোর ৩২ সদস্য দেশের নেতারা যুক্তরাষ্ট্রে জড়ো হয়েছেন সম্মেলনের জন্য। যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ন্যাটো সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন স্যার কিয়ের স্টারমার। এদিকে, গত মঙ্গলবার বাইডেনের পক্ষে কথা বলেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। 

তিনি বলেছেন, ‘ডোনাল্ড ট্রাম্প আবারও যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষমতায় এলে কী করবেন, তা অনুমান করা কষ্ট। পুরো বিশ্ব– এমনকি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনও যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনের ফলাফলের দিকে তাকিয়ে রয়েছেন।’ ন্যাটো সম্মেলনে বক্তব্য রাখার সময় ওই মন্তব্য করেন তিনি।

জেলেনস্কি বলেন, আমি তাকে ভালো করে চিনি না। তার সঙ্গে আমার ভালো সাক্ষাৎ হয়েছে, কিন্তু তা ছিল ২০২২ সালের রুশ আগ্রাসনের আগে। আমি আপনাদের বলতে পারব না যে তিনি কী করবেন, যদি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হন। আমি জানি না।’ সূত্র: বিবিসি, রয়টার্স  

করোনায় আক্রান্ত বাইডেন

প্রকাশ: ১৮ জুলাই ২০২৪, ১০:২২ এএম
আপডেট: ১৮ জুলাই ২০২৪, ১২:২৪ পিএম
করোনায় আক্রান্ত বাইডেন
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।

বুধবার (১৭ জুলাই) নেভাদা অঙ্গরাজ্যের লাস ভেগাসে নির্বাচনি প্রচারে গিয়ে তার শরীরে করোনা শনাক্ত হয়।

এ বিষয়ে হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব কারিন জ্যঁ-পিয়েরে বলেন, ‘বুধবার লাস ভেগাসে অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার আগে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাকে টিকা দেওয়া হয়েছে। করোনার মৃদু উপসর্গে ভুগছেন তিনি। ডেলাওয়ারে নিজের বাসা থেকে তিনি সব দায়িত্ব পালন করবেন।’

করোনা শনাক্ত হওয়ার পর বাইডেন বিমান এয়ার ফোর্স ওয়ানে ডেলাওয়ার অঙ্গরাজ্যের উদ্দেশে রওনা দেন। সেখানে নিজ বাড়িতে পর্যবেক্ষণে থাকবেন তিনি।

আগামী নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে নিজ দল ডেমোক্রেটিক পার্টির মধ্যেই বাইডেনের ওপর চাপ বাড়ছে। ৮১ বছর বয়সী বাইডেন এই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে লড়তে কতটুকু সক্ষম, তা নিয়ে উঠেছে নানা প্রশ্ন। গত মাসে ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কে বিপর্যয়ের পর এই প্রশ্ন আরও জোরদার হয়েছে। আর এমন সময় করোনায় আক্রান্ত হলেন বাইডেন। সূত্র: বিবিসি

পপি/অমিয়/

ট্রাম্পকে হিটলারের সঙ্গে তুলনা করা ব্যক্তিই তার রানিংমেট

প্রকাশ: ১৭ জুলাই ২০২৪, ০৮:৫৬ এএম
আপডেট: ১৭ জুলাই ২০২৪, ০৮:৫৬ এএম
ট্রাম্পকে হিটলারের সঙ্গে তুলনা করা ব্যক্তিই তার রানিংমেট
ছবি: সংগৃহীত

কানে ব্যান্ডেজ বাঁধা অবস্থাতেই গত সোমবার (১৫ জুলাই) উইসকনসনের মিলওয়াকিতে রিপাবলিকান ন্যাশনাল কনভেনশনে উপস্থিত হন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ সময় উপস্থিত জনতাকে বলতে শোনা যায় ‘ফাইট’, ‘ফাইট’, ‘ফাইট’। 

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের প্রতিবেদন বলছে, রিপাবলিকান ন্যাশনাল কনভেনশনের প্রথম রাতে মনোযোগ নিজের দিকে টেনে নিয়েছিলেন ট্রাম্প। এ ছাড়া গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাও ঘটেছে, তার মধ্যে একটি হলো- ট্রাম্পের রানিং মেট বেছে নেওয়ার বিষয়টি।

ওই আয়োজনে উপস্থিত হওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগেই ট্রাম্প রানিং মেট হিসেবে বেছে নেন ওহাইয়ো অঙ্গরাজ্যের সিনেটর জেডি ভ্যান্সকে। আগামীতে ট্রাম্প বিজয়ী হলে তিনিই হবেন ভাইস প্রেসিডেন্ট। 

২০১৬ সালে ট্রাম্প যখন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন, সে সময় ডোনাল্ড ট্রাম্পের কঠোর সমালোচকদের মধ্যে অন্যতম একজন ছিলেন জেডি ভ্যান্স। ওই বছর এক সাক্ষাৎকারে ভ্যান্স বলেছিলেন, আমি কখনই ট্রাম্পের লোক নই। আমি তাকে কখনই পছন্দ করিনি।’ ওই একই বছর ট্রাম্পকে হিটলারের সঙ্গেও তুলনা করেছিলেন ভ্যান্স। পরবর্তীতে তিনি হয়ে উঠেন ট্রাম্প ঘনিষ্ঠদের একজন।

রানিং মেট বেছে নেওয়ার বিষয়টি বেশ গোপন রেখেছিলেন ট্রাম্প। ট্রুথ সোশ্যালে ভাইস প্রেসিডেন্টের ঘোষণা দেওয়ার মাত্র ২০ মিনিট আগে তিনি ভ্যান্সকে ফোনে নিজ সিদ্ধান্ত জানান। সিএনএন বলছে, ভ্যান্সের যোগাযোগ দক্ষতা রয়েছে। তিনি ট্রাম্পের জনতুষ্টিবাদী বিষয়গুলো মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে পারবেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়ায় গত শনিবার হামলার শিকার হন ট্রাম্প। সে সময় তিনি এক সমাবেশে বক্তব্য রাখছিলেন। গুলি ট্রাম্পের কান স্পর্শ করে বের হয়ে যায়। গোটা বিষয়টির মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক বিভক্তির চিত্রটি আরও স্পষ্ট হয়ে উঠছে। তবে ওই ঘটনার পরপরই যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও ট্রাম্প দুই নেতাই মার্কিনিদের এক হওয়ার আহ্বান জানান। 

এর আগে বাইডেন ট্রাম্পকে মার্কিন গণতন্ত্রের জন্য হুমকি হিসেবে অভিহিত করেছিলেন। গত সোমবার এনবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বাইডেন বলেন, ট্রাম্পকে নিশানা বানানো উচিত গত সপ্তাহে এমন মন্তব্য করে তিনি ভুল করেছেন। সিক্রেট সার্ভিসের উপস্থিতি সত্ত্বেও ট্রাম্পকে হত্যার জন্য এত কাছে কীভাবে বন্দুকধারী আসতে পেরেছিলেন, তা খতিয়ে দেখতে স্বাধীন তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন বাইডেন।

এদিকে, রিপাবলিকান ন্যাশনাল কনভেনশন চলবে চার দিন। আগামী বৃহস্পতিবার ট্রাম্প বক্তব্য রাখবেন। সে অনুষ্ঠানেই তার আনুষ্ঠানিকভাবে দলীয় মনোনয়ন গ্রহণ করার কথা রয়েছে। এর মধ্য দিয়ে পাকাপাকিভাবে বাইডেনের রাজনৈতিক ও নির্বাচনি প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে মাঠে নামবেন তিনি। 

হত্যাচেষ্টার ঘটনায় অনেকটা নীরবই হয়ে গেছে বাইডেন বিতর্ক। ওই ঘটনার আগে বেশ সরবভাবেই অনেকে প্রশ্ন তুলছিলেন¬- বাইডেন আদৌ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার মতো অবস্থায় আছেন কি না? ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কে বাজে পারফরম্যান্সের পর অনেকেই তার যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। 

ট্রাম্পের রানিং মেট ভ্যান্সকে তার ‘ক্লোন’ হিসেবে অভিহিত করেছেন বাইডেন। গত সোমবার ওই মন্তব্য করেন তিনি। মতামত জরিপে এখনো কিছুটা এগিয়ে রয়েছেন ট্রাম্প। তবে নভেম্বরের নির্বাচনে শেষ হাসি কে হাসবেন, তা এখনই বলা মুশকিল। সূত্র: রয়টার্স, সিএনএন। 

যুদ্ধবিরতি নিয়ে চাপ বাড়ছে : সিআইএ

প্রকাশ: ১৭ জুলাই ২০২৪, ০৮:৫০ এএম
আপডেট: ১৭ জুলাই ২০২৪, ০৮:৫০ এএম
যুদ্ধবিরতি নিয়ে চাপ বাড়ছে : সিআইএ
ছবি: সংগৃহীত

যুদ্ধবিরতি চুক্তি মেনে নিতে ও গাজায় যুদ্ধের অবসান ঘটাতে চাপের মুখে আছেন হামাসের নেতা ইয়াহিয়া সিনওয়ার। মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএর মূল্যায়নে এ তথ্য উঠে এসেছে।

সিএনএনের প্রতিবেদন বলছে, গত শনিবার এক রুদ্ধদ্বার বৈঠকে নিজেদের ওই মূল্যায়ন সম্পর্কে জানান সিআইএ পরিচালক বিল বার্নস। ওই বৈঠকে অংশ নেওয়া এক সূত্রের বরাতে জানা গেছে ঘটনাটি।

বার্নসের বরাত দিয়ে সূত্র জানায়, সিনওয়ার নিজের মৃত্যু নিয়ে ভীত নন। কিন্তু গাজায় যে ধ্বংসযজ্ঞ চলছে এবং মানুষ যে নারকীয় দুর্ভোগের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে, তা নিয়ে চাপের মুখে আছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা জানান, সিনওয়ার গাজার খান ইউনিসে সুড়ঙ্গের নিচে লুকিয়ে আছেন বলে ধারণা করছেন তারা। সেখান থেকেই হামাসের জন্য গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তগুলো নিচ্ছেন তিনি।  

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসনের হয়ে কয়েক মাস ধরে যুদ্ধবিরতি চুক্তির মধ্যস্থতাকারী হিসেবে আলোচনা চালাচ্ছেন বার্নস। তিনি বলেছেন, ইসরায়েল সরকার ও হামাসের এই মুহূর্তের সুযোগ নেওয়াটা খুবই জরুরি। যুদ্ধের পর ৯ মাস পার হয়ে গেছে। 

তবে স্থায়ী যুদ্ধবিরতিতে এখনো আসতে পারেনি তারা। দুই পক্ষের মধ্যে বেশ কয়েকবার আলোচনা অনেক দূর গড়িয়ে ব্যর্থ হয়েছে।

গাজায় গত বছরের অক্টোবর থেকে ইসরায়েলের নির্বিচার হামলায় অন্তত ৩৮ হাজার ৬৬৪ জন মারা গেছেন। এ ছাড়া আহত হয়েছেন ৮৯ হাজার ৯৭ জন। 

আল-জাজিরার প্রতিবেদন বলছে, গাজার যুদ্ধের কারণে অস্ত্র ও গোলাবারুদ সংকটের সম্মুখীন হয়েছে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী। এ বিষয়ে ইসরায়েলের সুপ্রিম কোর্টে এক প্রতিবেদনও জমা দিয়েছে তারা। 

গতকাল মঙ্গলবার প্রথম ভাগেও গাজায় হামলার ঘটনা ঘটেছে। ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর হাতে অন্তত ১৯ জন মারা গেছেন। এ ছাড়া গত সোমবার রাতভর চলা ইসরায়েলি হামলায় অন্তত ৩৫ জন মানুষ মধ্য গাজার নুসেইরাত শরণার্থী শিবির, মাঘাঝি শরণার্থী শিবির ও আজ-জাওয়াইদায় নিহত হয়েছেন। সূত্র: সিএনএন, আল-জাজিরা

কাশ্মীরে বন্দুকযুদ্ধে ৪ সেনা নিহত

প্রকাশ: ১৭ জুলাই ২০২৪, ০৮:৪২ এএম
আপডেট: ১৭ জুলাই ২০২৪, ০৮:৪২ এএম
কাশ্মীরে বন্দুকযুদ্ধে ৪ সেনা নিহত
ছবি: সংগৃহীত

জম্মু-কাশ্মীরে উগ্রবাদীদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক কর্মকর্তাসহ চারজন ভারতীয় সেনা নিহত হয়েছেন। 

সোমবার (১৫ জুলাই) সন্ধ্যায় ডোডা জেলায় ভারতীয় সেনাদের সঙ্গে জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের স্পেশাল অপারেশন গ্রুপ (এসওজি) যৌথভাবে অভিযান চালায়। এ সময় তাদের সঙ্গে উগ্রবাদীদের গুলিবিনিময় ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী অন্যান্য সেনাদের থেকে জানা যায়, অভিযানের সময় অতর্কিতে সেনাবাহিনীর দিকে ধেয়ে আসে গোলাবারুদ। তখন পাল্টা জবাব দেন সেনারাও। শুরু হয় দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি। ২০ মিনিটের বেশি সময় ধরে চলে এই যুদ্ধ। সেই সময়ই জঙ্গিদের ছোড়া গুলিতে চারজন সেনা আহত হন। তাদের মধ্যে একজন ক্যাপ্টেন পদস্থ সেনাও ছিলেন। 

আহত সেনাদের হাসপাতালে নেওয়া হলে চারজনই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ ছাড়া এক পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হয়েছেন।

সেনা নিহতের ঘটনায় শোক জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ভারতীয় সেনাপ্রধান জেনারেল উপেন্দ্র দ্বিভেদি। উল্লেখ্য, গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই জম্মু-কাশ্মীরের বিভিন্ন জায়গায় সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটছে। এই কারণে জম্মু-কাশ্মীরের কিছু কিছু এলাকায় ‘উচ্চ সতর্কতা’ জারি করা হয়েছে। সূত্র: এনডিটিভি

ওমানে মসজিদের কাছে গোলাগুলিতে নিহত ৪

প্রকাশ: ১৬ জুলাই ২০২৪, ০২:৪৫ পিএম
আপডেট: ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৩:৪৭ পিএম
ওমানে মসজিদের কাছে গোলাগুলিতে নিহত ৪
ছবি: সংগৃহীত

ওমানের রাজধানী মাস্কাটে একটি মসজিদের কাছে শিয়াদের একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে বন্দুকধারীর গুলিতে চারজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় একাধিক আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) স্থানীয় সময় ভোরে রাজধানী শহর মাস্কাটের ওয়াদি আল-কবিরে এই হামলা হয়। 

সংবাদ সংস্থা এএফপির ফুটেজে দেখা গেছে, হামলার পর লোকজন ইমাম আলি মসজিদের চারদিকে পালিয়ে যাচ্ছেন।

পুলিশের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

অন্যদিকে, এ ঘটনার পর মাস্কাটে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস নিরাপত্তা সতর্কতা জারি করেছে এবং মঙ্গলবারের সব ভিসা অ্যাপয়েন্টমেন্ট বাতিল করেছে।

দূতাবাস সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এক্স-এ লিখেছে, ‘যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের সতর্ক থাকা উচিত। স্থানীয় সংবাদ পর্যবেক্ষণ করা উচিত এবং স্থানীয় কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মেনে চলা উচিত।’

আঞ্চলিক সংঘাতে নিয়মিত মধ্যস্থতার ভূমিকা পালনকারী সুলতানাতে এ ধরনের হামলা বিরল। সূত্র: আল-জাজিরা

ইসরাত চৈতী/অমিয়/