ঢাকা ৫ শ্রাবণ ১৪৩১, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪

পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতি প্রত্যাহারের দাবি ক্র্যাবের

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ০৯:৪৯ পিএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ০৯:৪৯ পিএম
পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতি প্রত্যাহারের দাবি ক্র্যাবের
বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (ক্র্যাব)

পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের দেওয়া বিবৃতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (ক্র্যাব)। 

সোমবার (২৪ জুন) এ বিবৃতি দেয় ক্র্যাব।

ক্র্যাব সভাপতি কামরুজ্জামান খান ও সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সই করা বিবৃতিতে বলেন, ‘সাম্প্রতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমে পুলিশের কয়েকজন বর্তমান ও সাবেক কর্মকর্তার অস্বাভাবিক সম্পদের মালিক হওয়ার সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। কোনো বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ হয়েছে বলে আমরা মনে করি না। সাংবাদিকরা সব সময় দায়িত্বশীল এবং তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশ করে থাকেন। সম্প্রতি পুলিশের সাবেক ও বর্তমান কয়েকজন কর্মকর্তাকে নিয়ে এসব সংবাদ তারই ধারাবাহিকতা।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘সংবাদ প্রকাশের পর বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন সম্প্রতি বিবৃতি দিয়ে যে ভাষায় প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে, তা স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিপন্থী। ওই বিবৃতির মধ্য দিয়ে কতিপয় কর্মকর্তার ব্যক্তিগত দুর্নীতি উৎসাহিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এসব বিষয় নিয়ে সাংগঠনিক পর্যায়ে পারস্পরিক দোষারোপ করা যৌক্তিক নয়। দেশের স্বার্থে সাংবাদিক ও পুলিশ অপরাধ এবং অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে একসঙ্গে কাজ করে আসছেন। আগামী দিনেও একই সঙ্গে কাজ করবে সাংবাদিক ও পুলিশ।’

এতে বলা হয়, ‘ক্র্যাব সব সময় সংগঠনের সদস্যদের পেশাদারিত্বকে সম্মান করে, সেই সঙ্গে সদস্যদের আত্মমর্যাদা, নিরাপত্তা ও স্বার্থ সংরক্ষণে কাজ করে। ক্র্যাব সদস্যদের প্রতিটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে বরাবরই সত্য উঠে আসে। যা সব মহলে প্রশংসিত। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যনির্ভর প্রতিবেদন প্রকাশ করে ক্র্যাব সদস্যরা নিয়মিত পুরস্কৃত হচ্ছেন। পেশাদার সাংবাদিকদের সম্মান ও আত্মমর্যাদা রক্ষায় সব সময় গুরুত্ব দিয়ে থাকে ক্র্যাব।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, “ক্র্যাব মনে করে, যেসব সাবেক ও বর্তমান পুলিশ কর্মকর্তার বিষয়ে গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশ ও প্রচারিত হয়েছে- তা যদি অসত্য হয়, তা হলে দেশের আইন অনুযায়ী প্রেস কাউন্সিলে যেতে পারেন তারা। তা না করে পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে ঢালাওভাবে সব প্রতিবেদনকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলা স্বাধীন সাংবাদিকতার ওপর হস্তক্ষেপের শামিল। প্রতিবেদন বন্ধ নয় বরং দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের ঘোষিত ‘শূন্য সহিষ্ণু নীতি’ বাস্তবায়নের জন্য সবার সহযোগিতা আশা করে ক্র্যাব। সে জন্য পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের উক্ত বিবৃতি প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছে ক্র্যাব।”

দুর্নীতি-অনিয়মের অনুসন্ধান এবং ক্ষমতার অপব্যবহার উন্মোচন করাও দায়িত্বশীল সাংবাদিকতার কাজ বলে মনে করে ক্র্যাব। বাধা বিপত্তির মুখেও সাংবাদিক সমাজ তাদের পেশাগত দায়িত্ব পালন করে যাবেন। স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিবেশ বিঘ্নিত হয়- এমন বক্তব্য প্রদান থেকে সবাইকে বিরত থাকার আহ্বান জানায় সংগঠনটি। কারণ মত প্রকাশের স্বাধীনতা এবং স্বাধীন সাংবাদিকতার অধিকার দেশের সংবিধানেই স্বীকৃত।

সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ বিএফইউজে-ডিইউজের

প্রকাশ: ১৭ জুলাই ২০২৪, ১১:২৮ পিএম
আপডেট: ১৭ জুলাই ২০২৪, ১১:২৮ পিএম
সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ বিএফইউজে-ডিইউজের

কোটা সংস্কার আন্দোলনে মাঠপর্যায়ে সংবাদ সংগ্রহের সময় সাংবাদিকদের ওপর হামলা, জখমের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও উদ্বেগ জানিয়েছে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে)।

বুধবার (১৭ জুলাই) বিএফইউজে সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, মহাসচিব কাদের গণি চৌধুরী এবং ডিইউজে সভাপতি মো. শহিদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক খুরশীদ আলম এক যুক্ত বিবৃতিতে এই উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

কোটা সংস্কার আন্দোলনকে কেন্দ্র করে গত কয়েক দিনে প্রায় অর্ধশতাধিক সাংবাদিক হামলা-নির্যাতনের শিকার হয়েছেন উল্লেখ করে বলা হয়, সাংবাদিকরা তাদের পেশাগত দায়িত্ব পালনের অংশ হিসেবে বিভিন্ন কর্মসূচির খবর সংগ্রহ এবং তা জনগণের সামনে উপস্থাপন করেন। এ দায়িত্ব পালনে তাদের ওপর আক্রমণ বা নিরাপত্তা বিঘ্নিত হওয়া খুবই উদ্বেগের। 

বিবৃতিতে সাংবাদিকদের পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে সহযোগিতার পুনঃআহ্বান জানিয়ে বলা হয়, বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, পুলিশ, ছাত্রলীগ ও আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের হাতে শাহবাগসহ বিভিন্নস্থানে সাংবাদিকরা হামলা ও নির্যাতনের শিকার হয়েছে। 

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, বেশ কয়েক বছর আগে থেকেই সাংবাদিকরা যখন তথ্য-উপাত্তসহ সত্য প্রকাশে কলম ধরেছেন তখনই তাদের রক্তাক্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া প্রতিনিয়ত মাঠপর্যায়ে সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে সংবাদিকরা পুলিশ ও সরকারি দলের ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগ ও যুবলীগের হাতে নির্মম নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। কোটা সংস্কার আন্দোলনেও তারা পুলিশ ও ছাত্রলীগের গুণ্ডাবাহিনীর টার্গেটে পরিণত হচ্ছেন। 

অবিলম্বে সাংবাদিকদের ওপর হামলা-নির্যাতন বন্ধ না হলে বিএফইউজে ও ডিইউজে বৃহত্তর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবে বলে উল্লেখ করেন নেতারা।

বৃহস্পতিবার বিক্ষোভ সমাবেশ 

কোটা সংস্কার আন্দোলনে মাঠপর্যায়ে সংবাদ সংগ্রহের সময় রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্নস্থানে সাংবাদিকদের ওপর হামলা-নির্যাতনের প্রতিবাদে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজ) আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করবে। 

মিজানুর রহমান/সালমান/

খুলনা টিভি রিপোর্টার ইউনিটির সভাপতি বাবুল, সম্পাদক অভিজিৎ

প্রকাশ: ১৪ জুলাই ২০২৪, ১০:৩২ এএম
আপডেট: ১৪ জুলাই ২০২৪, ০১:০২ পিএম
খুলনা টিভি রিপোর্টার ইউনিটির সভাপতি বাবুল, সম্পাদক অভিজিৎ
কেটিআরইউর নির্বাচনে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন এশিয়ান টিভির খুলনা বিভাগীয় প্রধান বাবুল আকতার এবং সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের নিজস্ব প্রতিবেদক অভিজিৎ পাল। ছবি: খবরের কাগজ

খুলনা টিভি রিপোর্টার ইউনিটির (কেটিআরইউ) বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সভাপতি পদে এশিয়ান টিভির খুলনা বিভাগীয় প্রধান বাবুল আকতার ও সাধারণ সম্পাদক পদে ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের নিজস্ব প্রতিবেদক অভিজিৎ পাল নির্বাচিত হয়েছেন।

শনিবার (১৩ জুলাই) দুপুরে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান উৎসব টেলিভিশনের ব্যুরোপ্রধান সুনীল দাস তাদের নির্বাচিত ঘোষণা করেন।

নির্বাচনে নির্বাহী কমিটির অন্যান্য পদে নির্বাচিতরা হলেন- সহসভাপতি বাংলাদেশ টেলিভিশন শিল্পাঞ্চল প্রতিনিধি মিজানুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক আনন্দ টিভির খুলনা ব্যুরোর প্রধান আমজাদ আলী লিটন, কোষাধ্যক্ষ বাংলা টিভির খুলনা ব্যুরোর প্রধান তরিকুল ইসলাম ডালিম ও নির্বাহী সদস্য এটিএন বাংলার খুলনা ব্যুরোপ্রধান এস এম হাবিব, মোহনা টিভির খুলনা ব্যুরোপ্রধান মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, ডিবিসি টিভির খুলনা ব্যুরোপ্রধান মো. আমিরুল ইসলাম ও বৈশাখী টিভির খুলনা ব্যুরোপ্রধান শেখ হেদায়েতুল্লাহ। 

২৮ জুন খুলনা টিভি রিপোর্টার্স ইউনিটির ৯টি পদে নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণা করা হয়। ৫ জুলাই মনোনয়নপত্র দাখিল ও যাচাই-বাছাই করা হয়।

মাকসুদ রহমান/সাদিয়া নাহার/অমিয়/

বাংলাদেশ অ্যাগ্রিকালচার রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি সবুজ, সম্পাদক কাওসার

প্রকাশ: ১০ জুলাই ২০২৪, ১০:০৩ পিএম
আপডেট: ১০ জুলাই ২০২৪, ১০:০৩ পিএম
বাংলাদেশ অ্যাগ্রিকালচার রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি সবুজ, সম্পাদক কাওসার
রফিকুল ইসলাম সবুজ ও কাওসার আজম

দৈনিক সময়ের আলোর বিশেষ প্রতিনিধি রফিকুল ইসলাম সবুজকে সভাপতি এবং দৈনিক নয়া দিগন্তের নিজস্ব প্রতিবেদক কাওসার আজমকে সাধারণ সম্পাদক করে বাংলাদেশ অ্যাগ্রিকালচার রিপোর্টার্স ফোরামের (বিএআরএফ) নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বুধবার (১০ জুলাই) রাজধানীর সেগুনবাগিচার একটি রেস্টুরেন্টে বিএআরএফের ১৫ সদস্যবিশিষ্ট কার্যনির্বাহী কমিটি গঠিত হয়।

দৈনিক ইত্তেফাকের সিনিয়র রিপোর্টার মুন্না রায়হানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সভায় সর্বসম্মতিক্রমে এই কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটির অন্যরা হলেন সহসভাপতি চপল মাহমুদ (দৈনিক আমাদের সময়), যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস রহমান (এটিএন নিউজ), অর্থ সম্পাদক আয়নাল হোসেন (আজকের পত্রিকা), সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল হুসাইন (জাগো নিউজ), দপ্তর সম্পাদক ফারুক আহমাদ আরিফ (প্রতিদিনের বাংলাদেশ), প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শাফিউল আল ইমরান (দৈনিক সংবাদ) এবং প্রশিক্ষণ ও গবেষণা সম্পাদক শওকত আলী পলাশ (বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড)।

নির্বাহী সদস্যরা হলেন মুন্না রায়হান (দৈনিক ইত্তেফাক), জাহিদুর রহমান (দৈনিক সমকাল), হরলাল রায় সাগর (ভোরের কাগজ), ইউসুফ আরেফিন (দৈনিক কালবেলা), ও ইয়াসিন রহমান (দৈনিক যুগান্তর)।

মারুফ/সালমান/

দেশ রূপান্তর সম্পাদক হলেন মোস্তফা মামুন

প্রকাশ: ০১ জুলাই ২০২৪, ০৩:৩৫ পিএম
আপডেট: ০১ জুলাই ২০২৪, ০৩:৩৫ পিএম
দেশ রূপান্তর সম্পাদক হলেন মোস্তফা মামুন
রূপায়ণ গ্রুপের কো-চেয়ারম্যান ও পত্রিকাটির প্রকাশক মাহির আলী খাঁন রাতুল আনুষ্ঠানিকভাবে মোস্তফা মামুনকে সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব প্রদান করেন। ছবি : সংগৃহীত

দৈনিক দেশ রূপান্তরের সম্পাদকের দায়িত্ব পেয়েছেন জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ও কথাসাহিত্যিক মোস্তফা মামুন। তিনি এতদিন দৈনিকটির ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকের আগেও তিনি পত্রিকাটির নির্বাহী সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। 

১ জুলাই রূপায়ণ গ্রুপের কো-চেয়ারম্যান ও পত্রিকাটির প্রকাশক মাহির আলী খাঁন রাতুল আনুষ্ঠানিকভাবে মোস্তফা মামুনকে সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব প্রদান করেন।

মোস্তফা মামুনকে সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ায় দেশ রূপান্তরের সাংবাদিকরা রূপায়ণ গ্রুপের চেয়ারম্যান ও কো-চেয়ারম্যানকে ধন্যবাদ জানান। নতুন দায়িত্ব পাওয়ায় মোস্তফা মামুনকে সবাই শুভেচ্ছা জানান।

মোস্তফা মামুনের জন্ম মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায়। বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হান্নান। তিনি সিলেট ক্যাডেট কলেজ থেকে ১৯৯১ সালে এসএসসি ও কুমিল্লা ইস্পাহানি পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ১৯৯৩ সালে এইচএসসি পাশ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন বিভাগ থেকে নিয়েছেন স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি।

এলআরএফের সভাপতি আশরাফ, সাধারণ  সম্পাদক মিশন

প্রকাশ: ২৮ জুন ২০২৪, ০৮:২৩ পিএম
আপডেট: ২৮ জুন ২০২৪, ০৮:৫৯ পিএম
এলআরএফের সভাপতি আশরাফ, সাধারণ  সম্পাদক মিশন
ল রিপোর্টার্স ফোরামের (এলআরএফ) নব নির্বাচিত সদস্যবৃন্দ। ছবি: সংগৃহীত

আইন, বিচার, সংবিধান এবং মানবাধিকারবিষয়ক সাংবাদিকদের সংগঠন ল রিপোর্টার্স ফোরামের (এলআরএফ) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (২৮ জুন) সুপ্রিম কোর্ট বারের দক্ষিণ হলে সংগঠনের বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) শেষে নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতি পদে আশরাফ-উল-আলম (আজকের পত্রিকা) ও সাধারণ সম্পাদক পদে মনিরুজ্জামান মিশন (নিউএজ) নির্বাচিত হয়েছেন। ভোট গণনা শেষে ফোরামের প্রধান নির্বাচন কমিশনার স্বপন দাশ গুপ্ত ফল ঘোষণা করেন। এ সময় দুই নির্বাচন কমিশনার সালেহ উদ্দিন ও তোফায়েল হোসেন উপস্থিত ছিলেন। 

নির্বাচিত অন্যরা হলেন- সহসভাপতি হাসান জাবেদ (এনটিভি), যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর হোসেন (যুগান্তর), অর্থ সম্পাদক মনজুর হোসাইন (চ্যানেল টোয়েন্টি ফোর), সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম নূর মোহাম্মদ (আজকের পত্রিকা), দপ্তর সম্পাদক জাকের হোসেন (এনটিভি অনলাইন), প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম হাবিব (নিউজ টোয়েন্টি ফোর), প্রশিক্ষণ ও কল্যাণ সম্পাদক জাবেদ আখতার (এটিএন নিউজ)। এ ছাড়া কার্যনির্বাহী সদস্য পদে শামীমা আক্তার (দেশ টিভি), এম এ নাছের (চ্যানেল টোয়েন্টি ফোর) ও উৎপল রায় (দেশ রূপান্তর) নির্বাচিত হন।

ফোরামের বিদায়ী কমিটির সভাপতি শামীমা আক্তারের সভাপতিত্বে এজিএমে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি শুক্কুর আলী শুভ এবং সাবেক সভাপতি ইলিয়াস হোসেন, এলআরএফের সাবেক সভাপতি এম বদিউজ্জামান, আশুতোষ সরকার, ওয়াকিল আহমেদ হিরণ ও মাশহুদুল হক। সঞ্চালনা করেন বিদায়ী কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান।

বার্ষিক সাধারণ সভায় ৭৬ জন সদস্য উপস্থিত ছিলেন। তবে গঠনতন্ত্র সংশোধন বিষয়ে মতবিরোধ হওয়ায় ৬ জন সভা বর্জন করেন।