ঢাকা ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

চট্টগ্রাম উইমেন চেম্বারের এসএমই মেলা শুরু ২০ এপ্রিল

প্রকাশ: ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:১৯ পিএম
চট্টগ্রাম উইমেন চেম্বারের এসএমই মেলা শুরু ২০ এপ্রিল
ছবি : খবরের কাগজ

চট্টগ্রাম উইমেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির উদ্যোগে ১৪তম এসএমই মেলা শনিবার (২০ এপ্রিল) নগরের রেলওয়ে পলোগ্রাউন্ড মাঠে শুরু হচ্ছে। নারী উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করা, এসএমই পণ্যের বাজার সম্প্রসারণ, আয় বৃদ্ধির লক্ষ্যে মাসব্যাপী এ মেলার আয়োজন।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে চিটাগাং উইম্যান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সিনিয়র সহ সভাপতি আবিদা মোস্তফা এসব তথ্য জানান। 

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, এবছর মেলায় ইরান, ভারত, চায়না, থাইল্যান্ড ও পাকিস্তানের উদ্যোক্তারা অংশ নেবে। এ মেলায় ছোট-বড় মিলিয়ে প্রায় ৩০০ স্টল এবং ১৫টি প্যাভেলিয়ন থাকবে। ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের নিয়ে উইম্যান জোন, ফুড কোড জোন থাকবে। হস্তশিল্পজাত পণ্য উৎপাদনকারী উদ্যোক্তাদের প্রাধান্য দিয়ে আলাদা জোন রাখা হয়েছে। 

মেলার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য পুলিশ ক্যাম্প, সিসি টিভি ক্যামেরা, বেসরকারি নিরাপত্তা রক্ষী, ফায়ার সার্ভিসসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য বৈদ্যুতিক সাব স্টেশন ও উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন জেনারেটর স্থাপন করা হয়েছে। তাছাড়া পর্যাপ্ত টয়লেট, সার্বক্ষণিক পানি সরবরাহ ও সিটি করপোরেশনের সহযোগিতায় পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার ব্যবস্থা করা হয়েছে। শিশুদের বিনোদনের জন্য আকর্ষণীয় পার্কের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মেলার সৌন্দর্য বিকাশের জন্য আকর্ষণীয় তোরণ, দৃষ্টিনন্দন ফোয়ারা ও সুউচ্চ টাওয়ার নির্মাণ করা হয়েছে। 

মেলার আয়োজনে সহযোগিতা করেছে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো, এফবিসিসিআই এবং আইএলও প্রগ্রেস প্রজেক্ট। মেলায় প্রবেশে জনপ্রতি টিকিট মূল্য ২০ টাকা। 

সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে উইম্যান চেম্বার সভাপতি মনোয়ারা হাকিম আলী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্মার্ট বাংলাদেশ চাইছেন। সেই লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি। চট্টগ্রাম হচ্ছে বিজনেস হাব। এখানে মেলার জন্য একটি স্থায়ী ভেন্যু দরকার।  

তিনি বলেন, চট্টগ্রামের নারী উদ্যোক্তাদের পণ্য বাজারজাত করার লক্ষ্যে ২০০২ সাল থেকে পরপর পাঁচ বছর বাওয়া স্কুল মাঠে মাসব্যাপী উই ঈদবাজার আয়োজন করেছিলাম। এরপর ১৩ বছর ধরে পলোগ্রাউন্ড মাঠে আন্তর্জাতিক উইম্যান এসএমই এক্সপো আয়োজন করে আসছি। এ মেলা দেশের নারী উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠানের আয়োজিত সর্ববৃহৎ মেলায় রূপলাভ করেছে। এসএমই খাতে নারী উদ্যোক্তাদের এসএমই ব্যাংকগুলোর সাথে সেতু বন্ধন তৈরি করতে বাংলাদেশ ব্যাংকের সহযোগিতায় কাজ করে যাচ্ছি। আগ্রহী এসএমই নারী উদ্যোক্তাদের নির্বাচন করে ব্যাংক ঋণ প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম উইমেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির ভাইস প্রেসিডেন্ট নিশাত ইমরান, সীমা খাতুন, শামিম মোরশেদ, লুদমিলা ফরিদ, পরিচালক রুহী মোস্তফা, বেবি হাসান, গুলসানা আলী, রেখা আলম চৌধুরী ও নাসরিন সুলতানা চৌধুরী, ফাইন্যান্স ডিরেক্টর খালেদা আক্তার চৌধুরী ও শমিলা রিমা, সদস্য চৌধুরী জুবাইরা সাকি, কমলা দাশ গুপ্ত, সেয়দা আরজুমান সুলতানা, দিপা দাস ও শিরিন আক্তার শিল্পী প্রমুখ। 

উল্লেখ্য, শনিবার (২০ এপ্রিল) বিকাল ৪টায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে মেলার উদ্বোধন করবেন। বিশেষ অতিথি থাকবেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু এবং চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র এম রেজাউল করিম চৌধুরী। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দি ফেডারেশন অফ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এণ্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট মো. মাহবুবুল আলম। 

তারেক মাহমুদ/এমএ/

চট্টগ্রামে মা-মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে আত্মীয় গ্রেপ্তার

প্রকাশ: ২৫ মে ২০২৪, ১০:৩৮ এএম
চট্টগ্রামে মা-মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে আত্মীয় গ্রেপ্তার
প্রতীকী ছবি

চট্টগ্রামের খুলশীতে মা ও মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে আব্দুল করিম (৪০) নামে তাদের এক  নিকটাত্মীয়কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) রাতে নগরীর খুলশী থানার ঝাউতলা বাজার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

অভিযুক্ত আব্দুল করিমের বাড়ি (৪২) কুমিল্লা জেলায়। তবে তিনি চট্টগ্রাম নগরীর খুলশী থানার জালালাবাদ এলাকায় বসবাস করতেন। পেশায় তিনি একজন ইলেকট্রিশিয়ান।

শুক্রবার (২৪ মে) দুপুরে খুলশী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নুরুল বাশার খবরের কাগজকে এসব বিষয় নিশ্চিত করেন।  

খুলশী থানা পুলিশ জানায়, ধর্ষণের শিকার ৩৭ বছর বয়সি গৃহবধূ খুলশী থানার ঝাউতলা বাজার কলোনিতে ১১ বছর বয়সি মেয়ে ও স্বামীকে নিয়ে একটি বাসায় ভাড়ায় থাকতেন। গত ২২ মে ওই বাসাতেই গৃহবধূ ও তার মেয়ে ধর্ষণের শিকার হন। অভিযুক্ত আব্দুল করিম গৃহবধূর স্বামীর ভগ্নিপতি।

নুরুল বাশার খবরের কাগজকে বলেন, আব্দুল করিমের বিরুদ্ধে গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে মামলা করেছেন। আমরা এখনও ঘটনাটি তদন্ত করছি। তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। 

মনির/পপি/

শিবচরে স্বাস্থ্যসেবার মান নিশ্চিতে চীফ হুইপের হুঁশিয়ারি

প্রকাশ: ২৫ মে ২০২৪, ১০:৩৮ এএম
শিবচরে স্বাস্থ্যসেবার মান নিশ্চিতে চীফ হুইপের হুঁশিয়ারি
ছবি : খবরের কাগজ

মাদারীপুর জেলার শিবচরের প্রান্তিক পর্যায়ের জন সাধারণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে কমিউনিটি ক্লিনিকের গুরুত্ব তুলে ধরে ক্লিনিকগুলোতে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছেন জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী এমপি। 

শুক্রবার (২৪ মে)  নূর-ই-আলম চৌধুরী অডিটোরিয়ামে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে স্বাস্থ্যসেবার মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে স্বাস্থ্যসেবা সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের অংশগ্রহণে মত বিনিময় সভার অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী। 

এ সময় তিনি উপজেলার কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোর খোঁজ-খবর নেন। ক্লিনিকগুলোর সিএইসিপিসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে নানা সমস্যার কথা জানতে চান। প্রশ্ন-উত্তর পর্বে ক্লিনিকগুলো পরিচালনায় নানা সমস্যার কথা বেড়িয়ে আসে। প্রান্তিক পর্যায়ের মানুষের প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে কমিউনিটি ক্লিনিক পরিচালনায় নানা অবহেলার চিত্র ফুটে উঠে। এ সময় তিনি সংশ্লিষ্টদের অফিস টাইম না মানলে চাকরি হারানোর হুঁশিয়ারী এবং শিবচরে স্বাস্থ্য সেবার মান উন্নয়নে সরকারি বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক সংশ্লিষ্টদের দুই মাসের সময় বেঁধে দেন।

চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী বলেন, 'অফিসের নির্ধারিত সময়ের আগে কেউ বাসায় যাবেন না। অফিস টাইম তিনটায় হলে ঠিক তিনটাতেই যাবেন। পৌঁনে তিনটা নয়! অনিয়ম করলে অ্যাকশন নেওয়া ছাড়া কোন উপায় থাকবে না।'

চীফ হুইপ আরও বলেন, 'আমরা আপনাদের দুই মাস সময় দেব। হাসপাতাল-ক্লিনিকগুলোতে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ঠিক করবেন। আমি এমনও দেখেছি, রোগীরা রাস্তায় লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। এটা হবে না। তাদের বসার ব্যবস্থা, বাথরুম ফ্যাসিলিটি আপনাকে করতে হবে। সেবার মান বাড়াতে হবে। নিয়ম না মানলে সরকারি- বেসরকারি সকল প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আমরা এ মাসের মধ্যে ৪২টা কমিউনিটি ক্লিনিকেই আসবাবপত্রসহ যে সমস্যা আছে তার জন্য অনুদান দেবো।'

মতবিনিময় সভায় চীফ হুইপ কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোর সমস্যা চিহ্নিত করে তা নিরসনে তাৎক্ষণিক ভাবে ইউনিয়ন পর্যায়ে কমিউনিটি ক্লিনিক এর সিএইচসিপি, সভাপতি, জমিদাতা, চিকিৎসক, উপজেলা পর্যায়ের চিকিৎসক, কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধিদের মতামত শোনেন। এবং স্বাস্থ্য সেবার মান উন্নয়নে দুই মাসের সময় বেঁধে দেন। আসবাবপত্রসহ নানান সমস্যা সমাধানে নগদ অর্থ বরাদ্দ দেন ও কমিউনিটি ক্লিনিক এর সিএইচসিপিদের জন্য প্রশিক্ষণের নির্দেশ প্রদান করেন সিভিল সার্জনকে।  

মতবিনিময় সভায় ওয়ার্ড পর্যায় থেকে উপজেলা পর্যায়ের সরকারী স্বাস্থ্য কর্মী, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, চিকিৎসক, বেসরকারী ক্লিনিক মালিকসহ স্বাস্থ্য সেবা সংশ্লিষ্ট সকলে অংশ গ্রহণ করেন। 

মত বিনিময় সভার শুরুতেই জনপ্রতিনিধিদের কাছে কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো পরিদর্শনের খোঁজখবর নেন। এরপর আইএইচটির চিকিৎসক, কমিউনিটি ক্লিনিক এর সিএইচসিপি, চিকিৎসক, প্রাইভেট ক্লিনিক সংশ্লিষ্টদের কাছে বিভিন্ন প্রশ্ন করে সেবার মান যাচাই করেন। এ সময় স্বাস্থ্য খাতের বেহাল দশায় চীফ হুইপ তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন। 

এর আগে চীফ হুইপ ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী অডিটোরিয়ামে জেলা পরিষদের আয়োজনে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত দরিদ্র বেকার নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ করেন। 

এ সময় মাদারীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুনির চৌধুরী, জেলা সিভিল সার্জন ডা. মুনির আহমেদ খান, শিবচর ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি রাজিয়া চৌধুরী, শিবচর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আ. লতিফ মোল্লা, নব নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ডা. মো. সেলিম, পৌরসভার মেয়র মো. আওলাদ হোসেন খান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আব্দুল্লাহ আল মামুন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফাতিমা মেহজাবিনসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন। 

রফিকুল ইসলাম/জোবাইদা/অমিয়/ 

পরকীয়ার জেরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা, স্বামী আটক

প্রকাশ: ২৫ মে ২০২৪, ১০:০৪ এএম
পরকীয়ার জেরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা, স্বামী আটক

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে স্বামীর পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় স্ত্রী সালমাকে (৩০) শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগে স্বামী রুপচাঁনসহ দুজনকে আটক করেছে পুলিশ। 

শুক্রবার (২৪ মে) ভোরে সোনারগাঁ উপজেলার পৌরসভা এলাকার ভট্টপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সালমা পৌরসভার ভট্টপুর এলাকার মো. রুপচাঁনের স্ত্রী। তিনি দুই সন্তানের জননী ছিলেন।

স্থানীয় ও নিহতের পরিবারের দাবি, অভিযুক্ত স্বামী রুপচাঁন দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় একটি কোম্পানিতে চাকরি করা নারীর সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িত ছিলেন। গোপনে চলতে থাকে তাদের অবৈধ মেলামেশা। পরকীয়ার সম্পর্কটি প্রকাশ্যে এলে সালমা প্রায়ই প্রতিবাদ করতেন। এর ফলে তাদের মধ্যে দাম্পত্যকলহ হতো। এ নিয়ে একাধিকবার বিচার সালিশও হয়েছে।

নিহতের ছেলে আব্দুল্লাহ আরবান কাইফি বলেন, ‘আমার বাবা দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়ার সঙ্গে জড়িত ছিল। এ নিয়ে প্রায়ই মায়ের সঙ্গে ঝগড়া হতো। কিছুদিন আগেও মাকে অনেক মারধর করেছে। পরে আমি আমার নানির বাড়ির আত্মীয়দের জানিয়েছি। তারা বলেছিল, ঈদের পর বসবে। কিন্তু আজ আমার মাকে মেরেই ফেলল।’

সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মহসিন মিয়া জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে স্বামীসহ দুজনকে আটক করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন করা যাবে।

২০ বছর পর বাংলাদেশে পা রাখলেন বিজ্ঞানী ড. হুমায়ুন কবির

প্রকাশ: ২৫ মে ২০২৪, ০৯:৫৫ এএম
২০ বছর পর বাংলাদেশে পা রাখলেন বিজ্ঞানী ড. হুমায়ুন কবির
ছবি: খবরের কাগজ

দীর্ঘ বিশ বছর পর নিজের জন্মভূমি কিশোরগঞ্জে এসেছেন সর্বাধুনিক চালকবিহীন হেলিকপ্টার আবিষ্কারক বিজ্ঞানী ড. হুমায়ুন কবির।

শুক্রবার (২৪ মে) দুপুর ১টার দিকে হেলিকপ্টারে চড়ে পাকুন্দিয়া উপজেলার বড় আজলদি গ্রামে আসেন তিনি।

দীর্ঘ বিশ বছর পর পাকুন্দিয়ার বড় আজলদি গ্রামে এসে এলাকার মানুষের ফুলেল ভালোবাসায় সিক্ত হয়েছেন তিনি। তাকে এক নজর দেখতে বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজারো মানুষ ভিড় জমায় বড় আজলদি গ্রামে।

এর আগে বুধবার (২২ মে) রাতে ঢাকায় আসেন বিজ্ঞানী ড. হুমায়ুন কবির। তার সফরসঙ্গী হয়েছেন তার স্ত্রী ফরিদা কবির। এর আগে সর্বশেষ ২০০৪ সালের ৫ মার্চ কিশোরগঞ্জে এসেছিলেন। আগামী ৩০ মে পর্যন্ত তিনি কিশোরগঞ্জের সার্কিট হাউজে থাকবেন।

তিনি বলেন, ‘দেশের মানুষকে দেখতে এসেছি। বিশেষ করে আমার মা অসুস্থ সেই কারণে এক সপ্তাহের জন্য বাংলাদেশে এসেছি আমি খুবই আনন্দিত ও আবেগ আপ্লুত। সবকিছু ঠিক থাকলে ৩০ মে ঢাকায় যাব এবং সেখান থেকে আমার কর্মস্থলে ফিরবো।’

বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. হুমায়ুন কবির কিশোরগঞ্জের কটিয়াদি উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের নাগের গ্রামের কৃতি সন্তান। তার শৈশব-কৈশোর কেটেছে তার নানাবাড়ি বড় আজলদিতে। বাবা মায়ের বিচ্ছেদের পর তিনি মায়ের সঙ্গে নানাবাড়িতে থাকতেন।

ড. হুমায়ুন কবির ১৯৫৬ সালে ময়মনসিংহ জেলার মধ্যে রেসিডেন্সিয়াল স্কলারশিপে প্রথম স্থান অধিকার করেন। ১৯৭০ সালে তিনি ময়মনসিংহের বিভিন্ন বাড়িতে লজিং থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষায় সুনাম ও কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। ১৯৭২ সালে ঢাকা কলেজ থেকে বিজ্ঞান বিভাগে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন।

গণিতশাস্ত্র ও গবেষণার প্রতি তার আকর্ষণ ছিল অনেক বেশি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ফলিত পদার্থবিদ্যা বিভাগে ভর্তি হন তিনি। ১৯৭৮ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক শেষ না করেই তিনি পাড়ি জমান সুদূর যুক্তরাষ্ট্রে। এরোস্পেস ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে বিএস করার জন্য ভর্তি হন ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাস অ্যাট আর্লিংটনে। সেখান থেকে তিনি এ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক, স্নাতকোত্তর ও পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেছেন। তার গবেষণার বিষয় ছিল মহাশুন্যযান ও রকেট বিজ্ঞান।

পিএইচডি শেষে অস্টিন ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাসে গত ২৬ বছর ধরে কাজ করছেন। পাশাপাশি ঊর্ধ্বতন বোয়িং বিজ্ঞানী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত বোয়িং কোম্পানিতে কর্মরত আছেন।

সর্বপ্রথম ১৯৮৬ সালে রিমোট কন্ট্রোল এইচ-৫ হায়েন্স হেলিকপ্টার আবিষ্কার করেন তিনি।

এ ছাড়াও সম্প্রতি তিনি আমেরিকার স্পেশাল অপারেশন ফোর্সদের জন্য আরও একটি বিশেষ ও আধুনিক হেলিকপ্টার আবিষ্কার করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী ও মেরিন কর্পসের জন্য তৈরী করা হয় এই বিশেষ হেলিকপ্টার।

তাসলিমা আক্তার/সাদিয়া নাহার/অমিয়/

বাঁশখালীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে বৃদ্ধের মৃত্যু

প্রকাশ: ২৫ মে ২০২৪, ০৯:৫৪ এএম
বাঁশখালীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে বৃদ্ধের মৃত্যু
মোক্তার আহমদ

চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলায় সবজি খেতে পানি দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মোক্তার আহমদ (৬৫) নামে এক বৃদ্ধ মারা গেছেন।

শুক্রবার (২৪ মে) সকালে উপজেলার শীলকূপ ইউনিয়নের মনকিরচরের সেইন্যাপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

মোক্তার আহমদ একই এলাকার মৃত গুরা মিয়ার ছেলে।

শীলকূপ ইউনিয়ন পরিষদের ৫নং ওয়ার্ডের সদস্য আশিক হোছাইন চৌধুরী খবরের কাগজকে বলেন, সকালে মোটরচালিত যন্ত্রের সাহায্যে বাড়ির পাশেই সবজি খেতে পানি দিতে যান মোক্তার। এ সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মারা যান তিনি।

বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তোফায়েল আহমেদ খবরের কাগজকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। 

ইফতেখারুল/পপি/অমিয়/