ঢাকা ১০ আষাঢ় ১৪৩১, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪

সৈয়দ আহম্মদ শাহ সিরিকোটি (র.)-এর ৬৫তম উরস সম্পন্ন

প্রকাশ: ২১ মে ২০২৪, ১২:২৯ পিএম
আপডেট: ২১ মে ২০২৪, ০১:০৪ পিএম
সৈয়দ আহম্মদ শাহ সিরিকোটি (র.)-এর ৬৫তম উরস সম্পন্ন
ছবি: খবরের কাগজ

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র আলহাজ মোহাম্মদ মনজুর আলমের আয়োজনে সৈয়দ আহম্মদ শাহ সিরিকোটি (র.)-এর ৬৫তম সালানা উরস মোবারক সম্পন্ন হয়েছে।

সোমবার (২০ মে) নগরের কাট্টলী এলাকায় মোস্তফা হাকিমের বাসভবনে এ উরস আয়োজন করা হয়।

এ উপলক্ষে খতমে কোরআনে মজিদ, খতমে মজমুয়ায়ে সালাওয়াতে রাসুল সাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম, খতমে গাউছিয়া শরিফ, মিলাদ, দোয়া মাহফিল ও আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনায় সাবেক মেয়র আলহাজ মোহাম্মদ মনজুর আলম বলেন, ‘এ অলিয়ে কামিল ধর্মকর্ম ও কাদিরিয়া তরিকাকে অতি সহজে পালনযোগ্য করে পৌঁছে দেন। তার প্রচারিত কাদেরিয়া তরিকার মাধ্যমে সাধারণ মুসলমানদের ইসলামের সঠিক রূপরেখার দিকনির্দেশনা দান করেন।’ 

তিনি আরও বলেন, সৈয়দ আহম্মদ শাহ সিরিকোটি (র.) তার পীরের নির্দেশমতো ‘মাজমুআহ সালাওয়াতির (রাসুল সাল্লাহ তাআলা আলাইহি ওয়াসাল্লাম)’ গ্রন্থটি ছাপানোর ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। ১৯৫৪ সালে আল্লামা সিরিকোটি রহমাতুল্লাহি আলাইহি চট্টগ্রামে ‘জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া’ প্রতিষ্ঠা করেন এবং ‘আনজুমান-ই রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট’ প্রতিষ্ঠা করেন।’

পবিত্র ইসলামের দিক্ষা নিয়ে ইসলামের খেদমতে অবদান রাখার জন্য ইমানদার মুসলমানদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। এতে আলেম ওলেমা ও হাফেজ ছাড়াও মনজুর আলমের পরিবারের সদস্যরা অংশ নেন।

ইফতেখারুল/ইসরাত চৈতী/অমিয়

কুমিল্লায় মায়ের বিরুদ্ধে মেয়েকে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ০৩:০৬ পিএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ০৩:০৬ পিএম
কুমিল্লায় মায়ের বিরুদ্ধে মেয়েকে হত্যার অভিযোগ
খাদিজা আক্তার

কুমিল্লার বরুড়ায় মানসিক ভারসাম্যহীন এক মায়ের বিরুদ্ধে স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার (২৪ জুন) উপজেলার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের নলুয়া চাঁদপুর পশ্চিম পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। মারা যাওয়া খাদিজা আক্তার (১৪) ওই গ্রামের পশ্চিমপাড়া হাওলাদার বাড়ির জুলহাস মিয়া ও খুরশিদা বেগম দম্পতির সন্তান এবং স্থানীয় নলুয়া চাঁদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বরুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিয়াজ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, 'ঘটনাস্থল থেকে অভিযুক্ত মাকে উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন। তাকে বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।' 

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, খুরশিদা মানসিক ভারসাম্যহীন। সোমবার সকালে হঠাৎ তার মেয়ের চিৎকার শুনে স্থানীয়রা গিয়ে দেখে বাড়িতেই রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে খাদিজা। তার মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুড়ালের কোপের চিহ্ন আছে। কুড়ালও পড়ে আছে পাশে। এ ঘটনার পর থেকে জ্ঞান হারিয়ে ঘরেই পড়ে আছে মা খুরশিদা।  

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হাশেম সাংবাদিকদের বলেন, 'ঘটনাস্থলে গিয়ে যতটুকু জানলাম ওই নারী মানসিক ভারসাম্যহীন। তিনি এ ঘটনা ঘটিয়েছেন। তবে এটা আইনি প্রক্রিয়ার বিষয়। পুলিশ তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।' 

জহির শান্ত/জোবাইদা/অমিয়/

গৌরনদীতে ট্রাকচাপায় নিহত ২

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ০২:৫৬ পিএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ০২:৫৬ পিএম
গৌরনদীতে ট্রাকচাপায় নিহত ২
ছবি : খবরের কাগজ

বরিশালের গৌরনদীতে ট্রাকের চাপায় দুইজন নিহত হয়েছেন। নিহতদের একজন ভ্যানচালক ও অপরজন মাছ ব্যবসায়ী।

সোমবার (২৪ জুন) ভোরে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের বাটাজোর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

নিহতরা হলেন, বাবুগঞ্জ উপজেলার আগরপুর গ্রামের বাসিন্দা ও ভ্যানচালক আয়নাল প্যাদা (৬০) এবং গৌরনদী উপজেলার সরিকল ইউনিয়নের মাছ ব্যবসায়ী বরুণ চন্দ্র দাস (৫০)।

গৌরনদী হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম রসুল জানান, আজ ভোরে মাছ ব্যবসায়ী বরুণ ব্যাটারিচালিত ভ্যানে মাছ নিয়ে স্থানীয় বাজারের দিকে যাচ্ছিলেন। পথে বাটাজোর এলাকায় বরিশালগামী একটি ট্রাক ভ্যানটিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই বরুণ ও আয়নাল নিহত হন। 

মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো প্রস্তুতি চলছে। এ ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। ট্রাকটি জব্দ করা হলেও চালক ও তার সহকারী পালিয়ে গেছেন।

মঈনুল ইসলাম/অমিয়/

ভাণ্ডারিয়ায় পিকআপের ধাক্কায় নিহত ২

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ০২:৪৬ পিএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ০২:৪৬ পিএম
ভাণ্ডারিয়ায় পিকআপের ধাক্কায় নিহত ২
ছবি: খবরের কাগজ

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলার পিকআপভ্যানের ধাক্কায় দুই পথচারী নিহত হয়েছেন। 

সোমবার (২৪ জুন) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলার ভাণ্ডারিয়া-মঠবাড়িয়া সড়কের দক্ষিণ ইকড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় আহত হয়েছেন আরও চার পথচারী।

নিহতরা হলেন- গৃহবধূ ঝুমাইয়া আক্তার (৩২) ও শিশু হাওয়া (৭)। ঝুমাইয়া আক্তার ইকড়ি গ্রামের হোসেন সাহেবের স্ত্রী এবং শিশু হাওয়া আবু হাসান হাওলাদারের মেয়ে।

আহত চারজন হলেন- ইয়াসিন (৫), মায়া বেগম (৩৫) হাফিজা আক্তার মিষ্টি (২৮) ও হোসেন সাহেব (৩২)। গুরুতর আহত চারজনকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ পিকআপভ্যানচালক তোফায়েল হোসেনকে আটক করেছে। 

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সকালের দিকে ঝুমাইয়া আক্তারসহ আরও কয়েকজন স্বজনদের চট্টগ্রামগামী বাসে উঠিয়ে দিতে ইকড়ি গ্রামের হাওলাদার বাড়ির পাশে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় মঠবাড়িয়া থেকে আসা বেপরোয়া গতির একটি পিকআপভ্যান নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তাদেরকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই অন্তঃসত্বা ঝুমাইয়া বেগম ও শিশু হাওয়া আক্তার নিহত হন। এ সময় আরও চার পথচারী আহত হন।

আহতদের প্রথমে ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদেরকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। 

ভাণ্ডারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবির মোহাম্মদ হোসেন জানান, দুর্ঘটনার পর পিকআপভ্যান জব্দ এবং চালককে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

সাদিয়া নাহার/অমিয়/

ভারতে কারাভোগ শেষে ফিরলেন ১৩ বাংলাদেশি

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ০২:৩৮ পিএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ০২:৩৮ পিএম
ভারতে কারাভোগ শেষে ফিরলেন ১৩ বাংলাদেশি
ছবি : সংগৃহীত

ভারতে কারাভোগ শেষে দেশে ফিরেছেন পাচার হওয়া ১৩ বাংলাদেশি নারী, পুরুষ ও শিশু।

রবিবার (২৩ জুন) রাত ১০টায় বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে দেশে ফিরেন তারা।

ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ এই ১৩ জনকে বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

দেশে ফেরত আসা ১৩ জন হলেন, বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার রফিক তালুকদার (৫৩) ও তার ছেলে মামুন তালুকদার (২৫), একই জেলার মোল্লারহাট উপজেলার নাজমুল শিকদার (৩৮), খুলনার রূপসা এলাকার রাজু ভূঁইয়া (২৫), একই থানার আফসানা আক্তার (২৩) ও তার ছেলে আমিন (৬); মেয়ে ফাতিমা (৪), একই থানার ওমর ফারুক শেখ (২৬), খুলনা সদরের মরিয়ম আক্তার (২৩), নড়াইল জেলার কালিয়া থানার আব্দুস সাত্তার (৫০), খাগড়াছড়ির মাটিরাঙার ফাতেমা (২৮), পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়ার ফাহিম হাওলাদার (২) ও মাহীম হাওলাদার (৪)।

বেনাপোল চেকপোস্ট  ইমিগ্রেশন পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজহারুল ইসলাম জানান, ভারত সরকারের বিশেষ ট্রাভেল পারমিটে ফেরত আসা ১৩ বাংলাদেশি নারী, পুরুষ ও শিশুকে ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। সেখান থেকে জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ার নামের একটি মানবাধিকার সংস্থা তাদের গ্রহণ করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করবে।

যশোর জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার মুহিত হোসেন জানান, রবিবার রাতেই তাদের নিজ নিজ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

নজরুল ইসলাম/অমিয়/

গোপালগঞ্জে রেকর্ড ফলন দিয়েছে বিনা চিনাবাদাম-৬

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ১২:২৩ পিএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ১২:২৩ পিএম
গোপালগঞ্জে রেকর্ড ফলন দিয়েছে বিনা চিনাবাদাম-৬
গোপালগঞ্জের সদর উপজেলার মানিকহার গ্রামে ঊচ্চফলনশীল বিনা চিনাবাদাম-৬

বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) উদ্ভাবিত বিনা চিনাবাদাম-৬ একটি উচ্চফলনশীল চিনাবাদামের জাত। এ জাতের চিনাবাদাম হেক্টরে সর্বোচ্চ ২ হাজার ৯০০ কেজি ফলন দিতে সক্ষম। কিন্তু গোপালগঞ্জে এ বিনা চিনাবাদাম ২ হাজার ৯৫৮ কেজি ফলন দিয়েছে। এটি বিনা চিনাবাদাম-৬ জাতের রেকর্ড পরিমাণ ফলন।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার মানিকহার গ্রামের কৃষক সাইফুল আলম খান বিনা চিনাবাদাম চাষ করে ২ হাজার ৯৫৮ কেজি ফলন পেয়েছেন।

কৃষক সাইফুল আলম খান বলেন, ‘আমি গোপালগঞ্জ বিনা উপকেন্দ্র থেকে বিনামূল্যে বীজ ও সার পেয়ে আমার ১৫০ শতাংশ জমিতে বাদামের আবাদ করি। প্রতি শতাংশে আমি এ জাতের বাদাম ১২ কেজি ফলন পেয়েছি। সে হিসাবে এক হেক্টরে এ বাদাম ফলন দিয়েছে ২ হাজার ৯৫৮ কেজি। এটি রেকর্ড ফলন।’ 

সাইফুল আলম খান আরও বলেন, ‘আমার দেড় একর জমিতে বাদাম আবাদে খরচ হয়েছে ৬০ হাজার টাকা। এখান থেকে আমি ১ হাজার ৮০০ কেজি বাদাম পেয়েছি। প্রতি কেজি বাদাম ১০০ টাকা দরে বিক্রি করতে পারব। উৎপাদিত বাদাম ১ লাখ ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি হবে। খরচ বাদে লাভ হবে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা। ধান ও পাটের তুলনায় বাদামে লাভ অনেক বেশি। বাদামের পর আমি বিনা আমন ধান করব। আমন কেটে স্বল্পজীবনকাল সম্পন্ন বিনা সরিষা চাষ করে আসছি। বিনার শস্য বিন্যাস অনুসরণ করে আমি প্রতিবছর একই জমিতে তিনটি ফসল করতে পারছি। এতে আমার আয় বেড়েছে। আর্থসমাজিক অবস্থার ব্যাপক পরিবর্তন ঘটাতে পেরেছি।’

একই গ্রামের বাদামচাষি প্রহল্লাদ বিশ্বাস বলেন, ‘আমাদের গ্রামে অধিকাংশ কৃষক বাদাম চাষ করেন। আমরা লাভজনক বিনা চিনাবাদ-৬ আবাদ করতে চাই। কিন্তু বিনা আমাদের বীজ দিতে পারে না। তাই এ জাতের বাদামের আবাদ আমরা সম্প্রসারণ করতে পারছি না। বীজ প্রাপ্তি নিশ্চিতের দাবি জানাই।’

গোপালগঞ্জ বিএডিসির উপ-পরিচালক সঞ্জয় কুমার দেবনাথ বলেন, ‘বিনা চিনাবাদাম-৬-এর বীজ বিএডিসি উৎপাদন করে। বাদাম আবাদের আগে কৃষক আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে আমরা সরকার নির্ধারিত মূল্যে মানসম্পন্ন বিনা চিনাবাদাম-৬-এর বীজ সরবরাহ করতে পারব। আর এতে বিনা চিনাবাদাম-৬ জাতের চাষাবাদ সম্প্রসারিত হবে। ভালো ফলন পেয়ে কৃষক লাভবান হবেন। দেশে ভোজ্যতেলের উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে।’

বিনা গোপালগঞ্জ উপকেন্দ্রের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও ইনচার্জ ড. মো. কামরুজ্জামান বলেন, ‘বিনা চিনাবাদাম-৬ হেক্টরে ২ হাজার ৯০০ কেজি পর্যন্ত ফলন দিতে পারে। কিন্তু কৃষক সাইফুল এ বাদাম চাষ করে বাড়তি পরিচর্যা করেছেন। তাই তিনি রেকর্ড পরিমাণ ২ হাজার ৯৫৮ কেজি ফলন পেয়েছেন। এ চিনাবাদামের জীবনকাল ১৪০ থেকে ১৫০ দিন। বাদামের ভেতরের দানা পুষ্ট। তাই তেলের পরিমাণ ৪৮ শতাংশ। এ বাদাম আবাদ করে কৃষক লাভবান হচ্ছেন। এ বাদামের বদৌলতে কৃষক একই জমিতে বছরে তিনটি ফসল করতে পারেন। এ বাদামের চাষ সম্প্রসারণ করতে পারলে দেশে ভোজ্যতেলের আমদানি হ্রাস ও তেলের উৎপাদন বৃদ্ধি করা সম্ভব হবে।’ সূত্র: বাসস