ঢাকা ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Khaborer Kagoj

মুম্বাইয়ে চলচ্চিত্র উৎসবে সাঁতাও, পাতাল ঘর ও নোনা পানি

প্রকাশ: ১২ জানুয়ারি ২০২৪, ১২:৫৩ পিএম
মুম্বাইয়ে চলচ্চিত্র উৎসবে সাঁতাও, পাতাল ঘর ও নোনা পানি

মুম্বাইয়ে আজ থেকে শুরু হচ্ছে থার্ড আই এশিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ২০তম আসর। এই উৎসবে বাংলাদেশ থেকে আমন্ত্রণ পেয়েছে তিন চলচ্চিত্র খন্দকার সুমনের ‘সাঁতাও’, নূর ইমরান মিঠুর ‘পাতাল ঘর’ এবং সৈয়দা নিগার বানুর ‘নোনা পানি’। উৎসব চলবে ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত।

‘সাঁতাও’-এর প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন আইনুন পুতুল ও ফজলুল হক। সম্প্রতি চলচ্চিত্রটি ‘অ্যামাজন প্রাইম ভিডিও’ ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেয়েছে। এ প্ল্যাটফর্মে কেবল যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের দর্শকরা দেখতে পাবেন। বাংলাদেশের দর্শকরা বায়স্কোপ থেকে দেখতে পারবেন।

সিনেমাটি জলবায়ু, পরিবেশ, সর্বোপরি মাতৃত্বের গল্প বলে। এতে দেখা যায়, পুতুল এবং তার প্রিয় গাভী প্রায় একই সময়ে গর্ভধারণ করে। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত পুতুল তার শিশুসন্তান হারায়, আবার প্রসবের পরে গাভীটিও মারা যায়। এত কষ্টের মাঝে পুতুল মাতৃত্বের নতুন অনুভূতি খুঁজে পায় তার অনাথ বাছুর লালুর মাঝে। কৃষকের সংগ্রামী জীবন, নারীর মাতৃত্বের সর্বজনীন রূপ এবং সুরেলা জনগোষ্ঠীর সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্নায় গল্পে উঠে এসেছে চলচ্চিত্রটি।

মা ও মেয়ের মনস্তাত্ত্বিক টানাপড়েনের গল্প নিয়ে নির্মিত ‘পাতাল ঘর’-এ অভিনয় করেছেন আফসানা মিমি, নুসরাত ফারিয়া, মামুনুর রশীদ, সালাহউদ্দিন লাভলু, গিয়াস উদ্দিন সেলিম, ফজলুর রহমান বাবু, নাজিয়া হক অর্ষা, দীপান্বিতা মার্টিন, রওনক হাসান, নাসির উদ্দিন খান, মৌটুসি বিশ্বাস, এরফান মৃধা শিবলু প্রমুখ। ‘পাতাল ঘর’ চলচ্চিত্রটি চরকিতে দেখা যাচ্ছে।

‘নোনা পানি’ চলচ্চিত্র নির্মিত হয়েছে খুলনার প্রান্তিক মানুষের যাপিত জীবনের কাহিনি নিয়ে এতে অভিনয় করেছেন নাসির উদ্দিন খান, জয়িতা, বিলকিস বানু, রুবেল প্রমুখ। উৎসবের জন্য আমন্ত্রিত হলেও ‘নোনা পানি’ চলচ্চিত্রটি এখনো বাংলাদেশে মুক্তি পায়নি। আগামী ২৬ জানুয়ারি সন্ধ্যা ৭টায় জাতীয় জাদুঘরের মূল মিলনায়তনে চলচ্চিত্রটি প্রথম বাংলাদেশে প্রদর্শিত হবে।

জাহ্নবী

প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে অ্যানিমেশন সিনেমা

প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১:৫০ এএম
প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে অ্যানিমেশন সিনেমা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে এবার তৈরি হচ্ছে একটি অ্যানিমেশন সিনেমা। এর নাম ‘হাসিনা : দি আনটোল্ড স্টোরি’।

এটি তৈরি করছেন রাতুল বিশ্বাস। আইসিটি বিভাগের তত্ত্বাবধানে নাল স্টেশন স্টুডিও থেকে এটি নির্মিত হবে। এ জন্য রাতুল ইতোমধ্যেই ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সঙ্গে দেখাও করেছেন। রাতুল গণমাধ্যমকে জানান, সিনেমার পরিকল্পনা পছন্দ করেছেন মন্ত্রী। আশ্বাস দিয়েছেন সিনেমাটি নির্মাণে সর্বোচ্চ সহায়তা করবে আইসিটি বিভাগ।

সম্প্রতি সিনেমাটির টিজারও প্রকাশ হয়েছে। সেখানে দেখা গেছে, বিমানে দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। টিজারটির জন্য সর্বমহল থেকে প্রশংসা পাচ্ছেন নির্মাতা।

এ বিষয়ে তিনি বলেছেন, ‘সিনেমাটি নির্মিত হবে উন্নত মানের টেকনোলজি দিয়ে। যেমনটা হয় হলিউডে। সিনেমা দেখে যেন মনে হয় এটা রিয়েল শুট করা হয়েছে। এখানে থাকবে এআই প্রযুক্তির ব্যবহার। আমরা এমন একটি প্রজেক্ট নির্মাণ করতে চাই, যা দিয়ে আন্তর্জাতিক বাজারে লড়তে পারি। আমাদের প্রধান লক্ষ্য সিনেমাটি দিয়ে অস্কারে ফাইট দেওয়া।’

এ সিনেমাটি হবে থ্রিডি অ্যানিমেশনে। সিনেমার গল্প হবে মুক্তিযুদ্ধের সময় থেকে।

দেখা যাবে প্রধানমন্ত্রীর ২০৪১ সালের পরিকল্পনা পর্যন্ত।

নির্মাতা রাতুল আরও বলেছেন, ‘এ সিনেমার গল্প আমরা হয়তো সবাই জানি। কিন্তু ভিজুয়ালটা দেখেনি অনেকেই। ১৯৭৫ সালে যখন বঙ্গবন্ধুকে সপরিবার হত্যা করা হলো, সে সময়টা শেখ হাসিনার কীভাবে কেটেছে। শোককে শক্তিতে পরিণত করে তার দেশে ফিরে আসা, অনেক সংগ্রাম করে পুনরায় দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা, দেশ সামনে এগিয়ে নিতে তার ত্যাগ আর সংগ্রামের অনেক জানা-অজানা গল্প সিনেম্যাটিকভাবে তুলে আনার চেষ্টা করছি।’

নির্মাতা আরও বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে লেখা নানা বই থেকে আমরা চিত্রনাট্য তৈরির চেষ্টা করছি। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে চিত্রনাট্য চূড়ান্ত করব। কারণ তিনিই সবচেয়ে ভালো জানেন, সে সময় কী ঘটেছিল, কীভাবে ঘটেছিল, কেমন ছিল তার মানসিক অবস্থা। সে বিষয়গুলো সিনেমায় নির্ভুলভাবে তুলে ধরতে চাই।’

সিনেমাটির ব্যাপ্তি হবে প্রায় ৩ ঘণ্টা। ডাবিং করা হবে হিন্দি ও ইংরেজিতে। ২০২৫ সালে প্রেক্ষাগৃহে সিনেমাটি মুক্তি দিতে চান নির্মাতা।

জাহ্নবী

 

জুরি হয়েও ভিসা পেলেন না বাঁধন

প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১:৪৮ এএম
জুরি হয়েও ভিসা পেলেন না বাঁধন
আজমেরী হক বাঁধন

ভারতের এক চলচ্চিত্র উৎসবে জুরি হয়েছেন বাংলাদেশের অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন। গতকাল ২৭ ফেব্রুয়ারি ভারতের উদ্দেশে রওনা দিতে প্রস্তুত ছিলেন তিনি। চলচ্চিত্রে তার এ ভূমিকার কারণে সবাই যখন সাধুবাদ জানাচ্ছিলেন, তখনই জানা গেল দুঃসংবাদ। ভারতের ভিসা দেওয়া হয়নি বাঁধনকে।

ভারতের সরকারি প্রতিষ্ঠান কর্ণাটক চলচ্চিত্র একাডেমি আয়োজিত ১৫তম বেঙ্গালুরু আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের অফিশিয়াল জুরি হওয়ার আমন্ত্রণ পেয়েছেন বাঁধন। উৎসবের এশিয়া সিনেমা কমপিটিশন বিভাগের পাঁচ জুরির তিনি একজন। ওই বিভাগের চেয়ারপারসন রুশ শিক্ষাবিদ নিনা কোচলেইভা। অন্য জুরিরা হলেন ভারতীয় সাংবাদিক, লেখক, চলচ্চিত্র পরিচালক এন এস শংকর, স্পেনের চলচ্চিত্র সমালোচক রোশানা জি আলোনসো, যুক্তরাজ্যের নির্মাতা ক্যারি রাজন্দর সাহনি। উৎসবের ওয়েব সাইটে বাঁধনকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়েছে ‘বাংলাদেশের টেলিভিশনের জনপ্রিয় মুখ’ হিসেবে। ভারতীয় নির্মাতা বিশাল ভরদ্বাজের ‘খুফিয়া’ ছবিতে তিনি কাজ করেছেন সে কথাও জানানো হয়েছে ওই পাতায়। এমনকি কান চলচ্চিত্র উৎসবে অফিসিয়াল সিলেকশন পাওয়া বাংলাদেশের প্রথম ছবির প্রধান শিল্পী হিসেবেও উল্লেখ করা হয়েছে তাকে।

গতকাল মঙ্গলবার বাঁধন খবরের কাগজকে বলেন, ‘সবকিছু ঠিকঠাক ছিল, আগাম টিকিটও করা ছিল। কিন্তু পাসপোর্ট তুলতে গিয়ে দেখলাম আমাকে ভিসা দেওয়া হয়নি।’ কেন এমন হতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমন্ত্রণপত্রে লেখা আছে টুরিস্ট ভিসায়ও ফেস্টিভ্যালে অংশ নেওয়া যাবে। এ কারণে আমি টুরিস্ট ভিসার আবেদন করেছি। ভারতে আমি কোনো সিনেমার শুটিংয়ে যাচ্ছি না। অ্যাপ্লাই করার সময় ভিসা ক্যাটাগরি নির্বাচনেও কোনো ভুল করিনি। তারপরও কেন ভিসা পেলাম না, জানি না।’ তিনি আরও বলেন, ‘পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে যাওয়ার কথা ছিল ২৪ তারিখে। শুটিং ছিল বলে ২৬ তারিখে গিয়েছি। দেখি ভিসা পাইনি। আবারও আবেদন করেছি। সবকিছু অনিশ্চিত। দেখি কী হয়।’

বেঙ্গালুরু আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব শুরু হবে ২৯ ফেব্রুয়ারি, চলবে ৭ মার্চ পর্যন্ত। এ উৎসবে আমন্ত্রণ প্রসঙ্গে বাঁধন বলেন, ‘এ উৎসবে জুরি হিসেবে আমন্ত্রণ পাওয়া আমার জন্য অত্যন্ত সম্মানের ব্যাপার। যে ঘটনাটি ঘটল, সেজন্য খুব খারাপ লাগছে। যেহেতু আবার আবেদন করেছি, আশা করছি দূতাবাস আমাকে ভিসা দেবে।’

এই উৎসবের ১৫টি বিভাগে দেখানো হবে ৫০টিরও বেশি দেশের ২ শতাধিক সিনেমা। এশিয়ান সিনেমা কমপিটিশন বিভাগের সিনেমাগুলো দেখে সেসবের মধ্য থেকে সেরা ছবি বাছাইয়ে মতামত দেবেন বাঁধন। এই বিভাগ ছাড়াও উৎসবে রয়েছে ভারতীয় ও কর্ণাটকি চলচ্চিত্রের প্রতিযোগিতা বিভাগ। অফিশিয়াল জুরিদের পাশাপাশি উৎসবের চলচ্চিত্র সমালোচকদের আন্তর্জাতিক সংগঠন ফিপ্রেসি ও এশিয়াভিত্তিক সংগঠন নেটপ্যাক জুরিরাও থাকবেন। এর আগে গত বছর ব্রাসেলসে অনুষ্ঠিত আই এম টুমোরো ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালেও জুরির দায়িত্ব পালন করেন বাঁধন।

বাঁধনের ভিসা প্রত্যাখ্যানের ঘটনা এবারই প্রথম নয়। বিশাল ভরদ্বাজের ‘খুফিয়া’ ছবির কাজ করে আসার পর, গত দেড় বছরে এ নিয়ে দুবার ভিসার আবেদন করেও ভারতের ভিসা পাননি বলে জানান বাঁধন। দুবারই তিনি ট্যুরিস্ট ভিসার আবেদন করেছিলেন। প্রথমবার ‘খুফিয়া’ ছবির প্রচারের জন্য যেতে চেয়েছিলেন। সেবারও তার ভিসার আবেদন প্রত্যাখ্যাত হয়েছিল।

ভারত ও বাংলাদেশের বিনোদন অঙ্গনের বহু শিল্পী ও কলাকুশলী নিয়মিত দুই দেশে যাতায়াত করেন। শিল্পীদের ভিসার ক্ষেত্রে দুই দেশই যথেষ্ট আন্তরিকতার পরিচয় দিয়ে আসছে। কিন্তু মাঝেমধ্যে অনাকাঙ্ক্ষিত ও বিচ্ছিন্ন দুই একটি ঘটনা শিল্পীদের মন ভেঙে দেয়। বাঁধনের ক্ষেত্রে আবারও সে রকম একটি ঘটনা ঘটল।

জাহ্নবী

অস্ট্রেলিয়ায় সোলস

প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১:৪২ এএম
অস্ট্রেলিয়ায় সোলস

দেশের ঐতিহ্যবাহী ব্যান্ডদল সোলস। গত বছরের আগস্টে অস্ট্রেলিয়া সফরের মধ্য দিয়ে ব্যান্ডটি সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করে। এদিকে নতুন বছরে প্রথম অস্ট্রেলিয়া সফরে গিয়েছে সোলসের পুরো টিম।

এবার নিউ সাউথ ওয়েলসের সিডনির বাংলাদেশ মেডিকেল সোসাইটির আমন্ত্রণে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি পারফর্ম করে সোলস। দুই ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠানে প্রায় বিশটি গান পরিবেশন করে ব্যান্ডটি। পুরোনো গানের সঙ্গে কণ্ঠ মিলিয়ে গেয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশি চিকিৎসকরা। অনুষ্ঠানটি প্রসঙ্গে সোলস ব্যান্ডের প্রধান পার্থ বড়ুয়া বলেন, ‘সিডনিতে এর আগে বহুবার গান করেছি। এখানকার শ্রোতারা বাংলা গানকে মন-প্রাণ দিয়ে ভালোবাসেন। এবার এসেছি বাংলাদেশ মেডিকেল সোসাইটির আমন্ত্রণে। সত্যি বলতে গেলে আমাদের দেশের চিকিৎসকরা সিডনিতে অনেক সম্মানিত। তাদের জন্য গাইতে পেরে খুব ভালো লাগছে।’

সোলস ছাড়াও অনুষ্ঠানে গান গেয়েছেন প্রিয়াংকা বিশ্বাস, অভিজিৎ , রাজিব, খালিদ, রানা ও সোহেল খান।

আগামী ২ মার্চ মেলবোর্নে মিউজিক্যাল ফেস্টিভ্যালে পারফর্ম করবে সোলস। অস্ট্রেলিয়া সফরে সোলস টিমে রয়েছেন নাসিম আলী খান, পার্থ বড়ুয়া, মীর মাসুম, শেখ আহসানুর রহমান আশিক, মারুফ হাসান রিয়েল, সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ার শামীম আহমেদ ও লাইটিংয়ে ইভান। আগামী ১২ মার্চ সোলস টিম দেশে ফিরবে বলে জানান ব্যান্ডটির সদস্যরা।

উল্লেখ্য, ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ইতিমধ্যে বেশ ক’টি গান প্রকাশ করেছে সোলস। গানগুলো হলো- ‘সাগরের প্রান্তরে’, ‘কিতা ভাইসাব’, ‘রিকশা’, ‘যদি দেখো’,  ‘হাওয়াই মিঠাই’ ও ‘বাহানা’।

জাহ্নবী

ঢাকায় ‘ডিউন: পার্ট টু’

প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১:৪১ এএম
ঢাকায় ‘ডিউন: পার্ট টু’

রাজনীতি, ধর্ম, বাস্তুসংস্থান, প্রযুক্তি ও মানবিক আবেগের কাহিনি নিয়ে পর্দায় ফিরছে ‘ডিউন’। ২০২১ সালে মুক্তি পাওয়া মহাকাব্যিক বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনিনির্ভর ছবিটি সাড়া ফেলেছিল। বক্স অফিসে সাফল্যের পাশাপাশি ছয়টি ক্যাটাগরিতে অস্কার জিতে নেয় ছবিটি। আগামী ১ মার্চ বিশ্বব্যাপী মুক্তি পাচ্ছে ‘ডিউন: পার্ট টু’। সারা বিশ্বের সঙ্গে একই দিনে বাংলাদেশেও দেখা যাবে ছবিটি। 

আরাকিস নামের একটি গ্রহ ও এর মূল্যবান খনিজ নিয়ে ‘ডিউন’-এর গল্প। মূল চরিত্র পল অ্যাট্রেইডেস। এমন কিছু ক্ষমতা ও আশীর্বাদ নিয়ে তার জন্ম, যা পলের নিজেরই অজানা। মহাবিশ্বের সবচেয়ে ভয়ংকর গ্রহে পরিবার ও নিজের লোকদের রক্ষা করতে তাকে সংগ্রাম করতে হয়।

ফ্রাঙ্ক হার্বার্টের ১৯৬৫ সালের দুই খণ্ডের উপন্যাস ডিউনের দ্বিতীয় খণ্ডের ওপরে নির্মিত হয়েছে ছবিটি। ডেনিস ভিলেনিউভ পরিচালিত এ ছবিতে টিমোথি চালামেট, রেবেকা ফার্গুসন, জোশ ব্রোলিন, স্টেলান স্কারসগার্ড, ডেভ বাউটিস্তা, স্টিফেন ম্যাককিনলে হেন্ডারসন, জেন্ডায়া, শার্লট র‌্যাম্পলিং এবং জাভিয়ের বারডেম আগের ছবির মতোই তাদের নিজ নিজ ভূমিকায় রয়েছেন। অস্টিন বাটলার, ফ্লোরেন্স লুক্স ও ফ্লোরেন্স ওয়েলেক্স দ্য ক্রিস্ট ও ফ্লোরেন্স সেফেরিংকে দ্বিতীয় কিস্তিতে নতুন চরিত্রে দেখা যাবে। বাংলাদেশের স্টার সিনেপ্লেক্সে মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি।

জাহ্নবী

আজ থেকে ‘লাভ রোড’

প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১:৩৯ এএম
আজ থেকে ‘লাভ রোড’

এটিএন বাংলায় আজ থেকে শুরু হচ্ছে নতুন দীর্ঘ ধারাবাহিক নাটক ‘লাভ রোড’। ড. মাহফুজুর রহমানের গল্প-ভাবনায় নাটকটি রচনা করেছেন ইউসুফ আলী খোকন। পরিচালনা করেছেন বি. ইউ. শুভ। এর বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন শহীদুজ্জামান সেলিম, আব্দুল্লাহ রানা, ডলি জহুর মন্টু, শহীদুল আলম সাচ্চু, মুনিরা মিঠু, মারজুক রাসেল, আবজাল সুজন, যাহের আলভী, জেবা জান্নাত, সৌমি, নাবিলা, সাথি, আতিকা, শ্রেয়সী, মারিয়া, অনুভব মাহবুবসহ আরও অনেকে। নাটকটি এরপর থেকে প্রতি সপ্তাহের মঙ্গল থেকে বৃহস্পতিবার রাত ৮টা ৪০ মিনিটে প্রচারিত হবে।

নাটকে দেখা যাবে- রাতুল পেশায় একজন মানসিক ডাক্তার। নানা পেশা নানা মানসিকতার লোকজন রাতুলের জীবনটাকে গল্পময় করে তোলে। রাশা করপোরেট জব করেন। ক্লায়েন্ট হ্যান্ডেল করতে গিয়ে যখন-তখন প্রেমে পড়ে যান। এটা রাশা ইচ্ছে করেই করেন। মালেক বস রাশাকে বাধ্য করেন ক্লায়েন্ট ধরতে। বসের এসব কথা শুনতে তাকে যেতে হয় বাবার বয়সী লোকের সাথে ডেট করতে। এভাবে নানা চরিত্রের নানা ঘটনা নিয়ে এগিয়ে যায় নাটকের গল্প।

জাহ্নবী