ঢাকা ৫ আষাঢ় ১৪৩১, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪

রিমালের প্রভাবে বিদ্যুৎ ভোগান্তিতে ২ কোটি ৩৫ লাখ গ্রাহক

প্রকাশ: ২৭ মে ২০২৪, ০৮:৩৪ পিএম
আপডেট: ২৭ মে ২০২৪, ০৯:৩১ পিএম
রিমালের প্রভাবে বিদ্যুৎ ভোগান্তিতে ২ কোটি ৩৫ লাখ গ্রাহক
ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে ২ কোটি ৩৫ লাখ গ্রাহকের বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ। ছবি : খবরের কাগজ

ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে উপকূলীয় এলাকাসহ দেশের অনেক এলাকা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন। প্রায় ২ কোটি ৩৫ লাখ গ্রাহকের বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে অনেক এলাকার বিদ্যুৎ-সংযোগ বন্ধ রাখা হয়।

সংশ্লিষ্টরা জানান, কিছু কিছু এলাকায় গাছ পড়ে লাইন বিচ্ছিন্ন হয়ে সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, পিরোজপুর, ভোলা, পটুয়াখালী ও বরিশালের অধিকাংশ গ্রাহক এবং ফেনী, কক্সবাজারসহ কয়েকটি জেলায় আংশিক বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। অনেক এলাকা ১০ থেকে ২০ ঘণ্টা পর্যন্ত বিদ্যুৎবিহীন ছিল। 

বিপিডিবির মুখপাত্র শামীম হাসান বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের সময় সারা দেশের অনেক বৈদ্যুতিক পোল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে- মূলত খুলনা ও বরিশাল অঞ্চলে। ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণের পর আবারও বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করা হবে।

সোমবার (২৭ মে) বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের সদস্য (পরিচালন ও বিতরণ) দেবাশীষ চক্রবর্তী জানান, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে প্রায় ২ কোটি ৩৫ লাখ গ্রাহকের বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এরই মধ্যে অনেক এলাকায় কাজ শুরু হয়েছে। 

বাগেরহাট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মহাব্যবস্থাপক সুশান্ত রায় সাংবাদিকদের জানান, বাগেরহাট জেলায় ৪ লাখ ৮৫ হাজারের বেশি গ্রাহক রয়েছে। সঞ্চালন লাইনের বিভিন্ন স্থানে গাছপালা উপড়ে পড়ায় বিদ্যুৎ-সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

ফেনী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার হাওলাদার মো. ফজলুর রহমান বলেন, রাত থেকেই ঝোড়ো হাওয়ায় বিদ্যুতের সংযোগ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সোমবার সকাল ৮টা থেকে পুরোপুরি সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। জেলায় পল্লী বিদ্যুতের ৪ লাখ গ্রাহক বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ফেনীর নির্বাহী প্রকৌশলী আ স ম রেজাউন নবী বলেন, সোমবার ভোর ৫টা থেকে ৩০ হাজারের অধিক গ্রাহক বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছেন। বৃষ্টি বন্ধ হলে লাইন মেরামতের কাজ শুরু হবে। এরপর সংযোগ দেওয়া হবে।

ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে কক্সবাজারের মহেশখালীতে গতকাল রবিবার রাত দেড়টা থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকে। এতে অন্তত ৭০ হাজার গ্রাহক ভোগান্তিতে পড়ে। বিভিন্ন স্থানে পল্লী বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে গেছে। 

পিরোজপুর জেলা প্রায় ৩৬ ঘণ্টা ধরে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পিরোজপুর সদর উপজেলার নামাজপুর, ভাইজোড়া, শারিকতলা, পাড়েরহাটসহ জেলার কাউখালী, ইন্দুরকানী, ভান্ডারিয়া, মঠবাড়িয়া, নাজিরপুর ও নেছারাবাদসহ বিভিন্ন এলাকার লোক বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। 

বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিপিডিবি) জানায়, সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে তারা উপকূলীয় এলাকায় বেশকিছু বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ করে দিয়েছে। 

ভয় পেলে চলবে না, মোকাবিলা করতে হবে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশ: ১৯ জুন ২০২৪, ০৪:০৫ পিএম
আপডেট: ১৯ জুন ২০২৪, ০৪:০৬ পিএম
ভয় পেলে চলবে না, মোকাবিলা করতে হবে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী
ছবি : খবরের কাগজ

‘ভয় পেলে চলবে না, সাহস ও ধৈর্য্য নিয়ে বন্যা মোকাবিলা করতে হবে’, সিলেটে পৌঁছে এ কথা বলেছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো. মহিববুর রহমান।

বুধবার (১৯ জুন) দুপুরে প্রতিমন্ত্রী বন্যা পরিস্থিতি সরেজমিনে পরিদর্শন করতে সিলেটে পৌঁছে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শনের পাশাপাশি আশ্রয়কেন্দ্র পরিদর্শন ও ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করবেন।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী সিলেটে পৌঁছালে তাকে বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা জানান প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, সাবেক প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ, সিলেট জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন খান, সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, সিলেট বিভাগীয় কমিশানার আবু আহমদ ছিদ্দীকী (এনডিসি), মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন প্রমূখ।
  
বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের প্রতিমন্ত্রী বলেন, ভৌগলিক কারণে সিলেট দুর্যোগপূর্ণ এলাকা। তাই বার বার বন্যার কবলে পড়ে এ অঞ্চল। জাপান, নেপাল ও ফিলিপাইনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশও এভাবে প্রাকৃতিক দুর্যোগে পড়ে। সিলেটে দুর্যোগের বিষয়টি মাথায় রেখেই এখানে উন্নয়ন করা হচ্ছে। দুর্যোগ আসলে ভয় পেলে চলবে না। সাহস ও ধৈর্য্য নিয়ে এর মোকাবিলা করতে হবে।’

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের দেশ বিশ্বের মাঝে একটি রোল মডেল। আমরা সব ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলার সক্ষমতা রাখি। তাই প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আমরা আজ সিলেটের বন্যা পরিদর্শন করতে এসেছি। ফিরে গিয়ে তার কাছে বিস্তারিত রিপোর্ট করব এবং তারই নির্দেশনার ভিত্তিতে বন্যা পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে এবং সব সমস্যা সমাধানে আমরা সর্বাত্মকভাবে কাজ করব।’ 

শাকিলা ববি/অমিয়/

মোটরসাইকেল-ইজিবাইক নীতিমালা করার নির্দেশনা দিলেন মন্ত্রী

প্রকাশ: ১৯ জুন ২০২৪, ০১:২৩ পিএম
আপডেট: ১৯ জুন ২০২৪, ০১:২৩ পিএম
মোটরসাইকেল-ইজিবাইক নীতিমালা করার নির্দেশনা দিলেন মন্ত্রী
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

সড়ক-মহাসড়কে চলাচলের সময় গতিসীমা নীতিমালার তোয়াক্কা না করে একের পর এক দুর্ঘটনার কারণ হয়ে ওঠা মোটরসাইকেল ও ইজিবাইকগুলোকে এবার নিয়ন্ত্রণ করতে চায় সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়।

বুধবার (১৯ জুন) সকালে সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ে ঈদ পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময়ের পর মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের মোটরসাইকেল ও ইজিবাইক নীতিমালা প্রণয়নের জন্য মন্ত্রণালয়ের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নূরীকে নির্দেশনা দেন।
  
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ইদানিং অ্যাক্সিডেন্টের যে প্রবণতা তাতে দেখা যাচ্ছে, মোটরসাইকেলে অ্যাক্সিডেন্ট বেশি। ইজিবাইকগুলো ....তিন চাকার.. এগুলোও এক্সিডেন্টের মূল কারণ। বিআরটিএ বলছে, ৯৫টি দুর্ঘটনায় ৯২টি ক্যাজুয়ালিটির ঘটনা ঘটেছে (আদতে ৯৯টি দুর্ঘটনায় ১০৭ জনের প্রাণহানি হয়েছে)। দেখা যাচ্ছে এ পর্যন্ত যত অ্যাক্সিডেন্ট, মোটরসাইকেলে সবচেয়ে বেশি; এরপর ইজিবাইক।’

পরে তিনি সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সচিবকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘সচিব সাহেবকে বলব, নীতিমালা করা প্রয়োজন। সারা দেশে লক্ষ লক্ষ তিন চাকার গাড়ি (ইজিবাইক), মোটরসাইকেল। এগুলো রাস্তার শৃঙ্খলাকে নিদারুণভাবে বিঘ্নিত করছে। কাজেই এখানে একটা সুষ্পষ্ট নীতিমালা থাকা প্রয়োজন। আমি আগেও বলেছি, এখনও বলছি, মানুষের জীবনটা আগে; জীবিকা নয়। এখন জীবিকা রক্ষা করতে গিয়ে জীবনকে ঝুঁকির মুখে ফেলে দেওয়ার মানে হয় না।’

গত ১৮ মে বিআরটিএর নির্দেশনায় ঢাকায় ব্যাটারি অথবা মোটরচালিত রিকশাভ্যান বন্ধের নির্দেশনা আসে। সারাদেশে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা নিয়ন্ত্রণের কথাও সেই সময় উঠে আসে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায়। কিন্তু সেই নির্দেশনা বাস্তবায়ন করা যায়নি রিকশাভ্যান মালিক-শ্রমিকদের জোরালো প্রতিবাদের কারণে। নিয়ন্ত্রণহীন ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা নিয়ে আলোচনাও বন্ধ হয়ে যায়। 

বুধবার সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ের সময় ওবায়দুল কাদের এতে দায় দেখেন জনপ্রতিনিধিদের। তিনি বলেন, ‘এই যে ইজিবাইকগুলো রাস্তা ও হাইওয়েতে অবাধে চলাচল করে, অনেক জায়গায় অনেক জনপ্রতিনিধি সমর্থন করে অথবা পেছন থেকে মদদ দেয়।’

ঈদুল আজহার পরে বুধবার থেকে কর্মজীবী মানুষ ঢাকা ফিরতে শুরু করেছেন। ধারণা করা হচ্ছে, আগামী শনিবার ঢাকামুখী চাপ বাড়বে প্রতিটি সড়ক-মহাসড়কে। সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগে কর্মকর্তাদের এই ফিরতি যাত্রায় বিশেষ নজরদারি জারি রাখার নির্দেশনা দেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।
 
ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক কাঠামো দ্রুত সংস্কারের কথাও বলেন ওবায়দুল কাদের। ক্ষতিগ্রস্ত সড়কগুলোর নিয়মিত আপডেট পেতে সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগকে পর্যবেক্ষণ অব্যাহত রাখার নির্দেশ দেন তিনি।

জয়ন্ত সাহা/অমিয়/

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাহাড়ধসে ৯ জনের মৃত্যু

প্রকাশ: ১৯ জুন ২০২৪, ১০:৩৫ এএম
আপডেট: ১৯ জুন ২০২৪, ১২:২২ পিএম
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাহাড়ধসে ৯ জনের মৃত্যু
উখিয়ায় বালুখালীর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাহাড় ধসের এক বাংলাদেশি ও আট রোহিঙ্গার মৃত্যু হয়েছে। চলছে উদ্ধারকাজ। ছবি: টেকনাফ প্রতিনিধি

কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালীর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ভারী বর্ষণে পৃথক পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। এতে এক বাংলাদেশি ও আট রোহিঙ্গার মৃত্যু হয়েছে। 

বুধবার (১৯ জুন) ভোরে বালুখালী পান বাজার ও হাকিমপাড়া ক্যাম্পে এ ধস হয়।

বিষয়টি খবরের কাগজকে নিশ্চিত করেছেন ৮ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মো. আমির জাফর। 

তিনি জানান, বুধবার ভোরের দিকে ক্যাম্প ৯ ও ১০-এর পান বাজার এবং হাকিমপাড়ায় পৃথক পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটে। এতে মাটিচাপা পড়ে কয়েকটি বসতি। পান বাজার ক্যাম্পে এক বাংলাদেশিসহ পাঁচ জন ও হাকিমপাড়া ক্যাম্পে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মরদেহ উপজেলা প্রশাসনের কাছে রাখা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, পুলিশ ও বাসিন্দাদের সহায়তায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এখনো উদ্ধার কাজ চলমান রেখেছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। 

এর আগে কক্সবাজারের উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাহাড় ধসে আব্দুল করিম (১২) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আরও দুজন আহত হয়। 

বুধবার (১৯ জুন) ভোরে ১৪নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে লাগোয়া পালংখালী ইউনিয়ের চোরাখোলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

শিশু করিম পালংখালী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড চোরাখোলা এলাকার শাহ আলমের ছেলে। সে থ্যাংখালী উচ্চবিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী।

ভোরে ভারী বৃষ্টির কারণে ১৪নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পাহাড় ধসে এসে পালংখালী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড চোরাখোলা এলাকার কাঁটাতারের বাইরে শাহ আলমের বাড়ির দেয়াল ভেঙে যায়। সেই দেয়ালের নিচে চাপাপড়ে তার ছেলে আব্দুল করিম। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

মুহিববুল্লাহ মুহিব/অমিয়/

নতুন সময় অনুযায়ী অফিস শুরু আজ থেকে

প্রকাশ: ১৯ জুন ২০২৪, ১২:২৫ এএম
আপডেট: ১৯ জুন ২০২৪, ১২:২৫ এএম
নতুন সময় অনুযায়ী অফিস শুরু আজ থেকে

ঈদের ছুটি শেষ। বুধবার (১৯ জুন) থেকে দেশের সব সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও আধাস্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান নতুন সময় অনুযায়ী সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। 

ঈদুল আজহার ছুটির পর প্রথম কর্মদিবস থেকে নতুন এ অফিস সময়সূচি কার্যকর হচ্ছে।

নতুন সময়সূচি অনুযায়ী যথারীতি কোর্ট-কাছারি ও স্টক মার্কেট চলবে।

গত ৩ জুন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

পরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন।

বাংলাদেশে স্বাভাবিক সময়ে অফিস চলতো সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। কিন্তু বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয়ের জন্য ২০২২ সালের ১৫ নভেম্বর থেকে সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও আধাস্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের অফিস সময় সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত করা হয়। এখন আবার আগের সময়সূচিতে ফিরছে অফিস সময়।

এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মাহবুব হোসেন বলেন, রবিবার থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে ৫টা পর্যন্ত অফিস চলবে। তবে দুপুর একটা থেকে দেড়টা পর্যন্ত নামাজ ও মধ্যাহ্নভোজের জন্য বিরতি থাকবে। আর শুক্রবার ও শনিবার ছুটি থাকবে।
 
এখন কী কারণে অফিস সময় পুনঃনির্ধারণ করা হলো, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, এটিই তো স্বাভাবিক ছিল। দিনে ৮ ঘণ্টা কাজ হবে। ৫ দিনে ৪০ ঘণ্টা। এতদিন ৩৫ ঘণ্টা কাজ হতো, কিন্তু সেটি বিশেষ ব্যবস্থা ছিল। এখন আবার মূল অবস্থায় আসা হলো।

অমিয়/

নারায়ণগঞ্জে বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেলের ২ আরােহী নিহত

প্রকাশ: ১৮ জুন ২০২৪, ০৮:২১ পিএম
আপডেট: ১৮ জুন ২০২৪, ০৮:২১ পিএম
নারায়ণগঞ্জে বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেলের ২ আরােহী নিহত
ছবি: খবরের কাগজ

নারায়ণগঞ্জে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী এক নারীসহ দুইজন নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) বিকেলে বন্দর উপজেলার লাঙ্গলবন্দ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

কাঁচপুর হাইওয়ে থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রেজাউল হক জানান, নিহতদের মধ্যে একজন হলেন জামালপুর জেলার অন্তর। তবে তার সঙ্গে থাকা নিহত নারীর পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বিকেল সোয়া তিনটার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চট্টগ্রামমুখী লেনে মোটরসাইকেলে একটি যাত্রীবাহী বাস পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুইজনের মৃত্যু হয়।

ওসি জানান, নিহতদের মাথায় আঘাত পেয়েছেন। স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে। নিহত অন্তরের মায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে ঘটনা জানানো হয়েছে। নারীর পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে। পাশাপাশি সিসি ক্যামেরা দেখে বাসটি শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

বিল্লাল হোসাইন/অমিয়/