ঢাকা ২ বৈশাখ ১৪৩১, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪
Khaborer Kagoj

মশা নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজন জনসচেতনতা

প্রকাশ: ০৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৩৯ এএম
মশা নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজন জনসচেতনতা

বর্ষা মৌসুম শুরু হওয়ার আগেই রাজধানীসহ সারা দেশে বেড়েছে মশার দৌরাত্ম্য। এতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠছে মানুষ। বাসাবাড়ি, দোকানপাট, স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত সর্বত্রই মশার উপদ্রব। সেটা চলছে দিনরাত সমানতালে। তবে রাজধানীতেই মশার উপদ্রব বেশি। দিনরাত কয়েল জ্বালিয়ে, ওষুধ ছিটিয়ে, মশারি টাঙিয়েও যেন নিস্তার পাওয়া যাচ্ছে না। এর মধ্যে রাজধানীবাসীর মধ্যে বিরাজ করছে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়ার আতঙ্ক। আমাদের দেশে কয়েক বছর ধরেই ডেঙ্গুর প্রকোপ বাড়তে শুরু করছে। গত বছর দেশে ডেঙ্গুতে রেকর্ড আক্রান্ত ও মৃত্যু হলো। এ বছর মশার পরিমাণ আরও বেড়েছে। 

আমাদের মশকনিধন পদ্ধতি খুব বেশি একটা কাজে আসছে না। সঠিক পদ্ধতি অনুসরণ করে জনসচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে মশকনিধনের দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিতে হবে। মশা নিয়ন্ত্রণে সরকারি-বেসরকারি এবং ব্যক্তিপর্যায়ে সবার সহযোগিতা প্রয়োজন। সপ্তাহে একদিন আমরা আমাদের বাড়ির ভেতর এবং বাইরে ঘুরে দেখি কোথাও কোনো পাত্রে পানি জমা আছে কি না, যদি থাকে তাহলে সেটি ফেলে দিই অথবা উল্টিয়ে রাখি অথবা সেখানে মশা নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা গ্রহণ করি। সাধারণ মানুষের সচেতনতা এবং সম্পৃক্ততা মশা নিয়ন্ত্রণে মুখ্য ভূমিকা পালন করবে এবং মশাবাহিত রোগ থেকে মুক্ত থাকবে পরিবার ও দেশ। তাই সচেতন হন, মশার যন্ত্রণা থেকে দূরে থাকুন।  

ডা. মুহাম্মাদ মাহতাব হোসাইন মাজেদ 
লেখক ও গবেষক 
প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, জাতীয় রোগীকল্যাণ সোসাইটি 
[email protected]

এলিভেটরে টোল আদায়ে কার্ড পাঞ্চ চাই

প্রকাশ: ০৯ এপ্রিল ২০২৪, ১১:২৭ এএম
এলিভেটরে টোল আদায়ে কার্ড পাঞ্চ চাই

এয়ারপোর্টের কাওলা থেকে ফার্মগেটের খেজুর বাগান পর্যন্ত এলিভেটর আপাদত চালু হয়েছে। পরবর্তীতে আরও বিস্তৃত হবে। এতে জনগণের অনেক উপকার হয়েছে। সরকারের একটি ভালো উন্নয়নমূলক কাজ। আগে এয়ারপোর্ট থেকে ফার্মগেট আসতে সময় লাগত ১ থেকে দেড় ঘণ্টা। এখন সময় লাগে ২০ থেকে ২৫ মিনিট। এখানে টোল আদায়ের দুই দিকে দুটি প্লাটফর্ম আছে। 

দেখা যায়, টোল আদায় করতে গিয়ে অনেক সময় গাড়ির দীর্ঘ লাইন হয়ে যায়। এতে করে ১০ থেকে ১২ মিনিট সময় বেশি লাগে। ডিজিটাল যুগে আমরা কেন এনালগ কায়দায় টোল আদায় করব। টোল আদায়ে যদি কার্ড পাঞ্চ করার পদ্ধতি থাকত তাহলে ভালো হতো। গাড়ির লোকেরা আগে থেকে কার্ডে টাকা লোড করে রাখত, তাহলে খুব তাড়াতাড়ি টোল আদায়ের প্লাটফর্ম অতিক্রম করে ফার্মগেট থেকে এয়ারপোর্ট ও  এয়ারপোর্ট থেকে ফার্মগেট  আসা যেত। এলিভেটরের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও সরকার যদি এ বিষয়ে নজর দিতেন তাহলে সাধারণ যাত্রীদের যাতায়াতে অনেক সময় সাশ্রয় হতো।

মো. ফেরদাউস হোসেন
টঙ্গী, গাজীপুর
[email protected]

ভালো স্বাস্থ্যই সুস্থ ও সতেজ জীবনের চাবিকাঠি

প্রকাশ: ০৮ এপ্রিল ২০২৪, ১১:২৩ এএম
ভালো স্বাস্থ্যই সুস্থ ও সতেজ জীবনের চাবিকাঠি

গতকাল ৭ এপ্রিল ছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস। এ বছর বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসের মূল প্রতিপাদ্য হলো ‘আমার স্বাস্থ্য, আমার অধিকার’ (মাই হেলথ, মাই রাইট)। বিশ্ব এখন রোগব্যাধি, বিপর্যয় থেকে সংঘাত ও জলবায়ু পরিবর্তনসহ একাধিক সংকটের মুখোমুখি। মানুষের স্বাস্থ্যের অধিকার উপলব্ধি করা এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আর সবার জন্য স্বাস্থ্যের অধিকার উপলব্ধি করার অর্থ হলো এমন পরিবেশ তৈরি করা, যেখানে প্রত্যেকে সর্বত্র উচ্চমানের স্বাস্থ্য সুবিধা, পরিষেবা এবং পণ্যগুলোর সুযোগ গ্রহণ করতে পারে, যা জনগণের চাহিদা, বোঝাপড়া এবং মর্যাদাকে অগ্রাধিকার দেয়। এটি অধিকারের একটি সম্পূর্ণ সেটকে বোঝায়, যা মানুষকে স্বাস্থ্যকরভাবে বাঁচতে সক্ষম করে। যেমন শিক্ষা, নিরাপদ পানি এবং খাদ্য, পুষ্টিকর খাদ্য, পর্যাপ্ত বাসস্থান, ভালো কর্মসংস্থান, পরিবেশগত অবস্থা এবং তথ্য- যা সুস্বাস্থ্যের অন্তর্নিহিত নির্ধারক। তাই স্বাস্থ্যের অধিকার পূরণের জন্য, স্বাস্থ্যসেবা এবং অন্তর্নিহিত নির্ধারক উভয়ই উপলব্ধ, প্রাপ্তিযোগ্য, গ্রহণযোগ্য এবং পর্যাপ্ত মানের হওয়া উচিত।

ডা. মুহাম্মাদ মাহতাব হোসাইন মাজেদ 
লেখক ও গবেষক 
প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, জাতীয় রোগীকল্যাণ সোসাইটি 
drmazed96@gmail com

বিমানে ভাড়া বিভ্রাট

প্রকাশ: ০৮ এপ্রিল ২০২৪, ১১:১৯ এএম
বিমানে ভাড়া বিভ্রাট

বেসরকারি বিমান সংস্থাগুলো বহু বছর ধরে যাত্রীদের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছে। এমন মারাত্মক অভিযোগ মানুষের মুখে মুখে ফেরে। বিমানের টিকিট কাটতে আগ্রহীদের সূত্রে জানা গেছে, বেসরকারি বিমান সংস্থাগুলো তাদের ওয়েবসাইটে উপলব্ধ আসন এবং টিকিটের ভাড়া সম্পর্কে ভুল তথ্য প্রকাশ করে জনগণকে বিভ্রান্ত করছে। যাত্রীদের কাছ থেকে আরও বেশি অর্থ আদায় করতে বাধ্য করা হচ্ছে। 

কোনো কোনো সময়ে একটি বিমান সংস্থা এত কম দামে টিকিট বিক্রি করে যে, অন্য প্রতিযোগীরা প্রতিযোগিতা করতে না পেরে বাজার থেকে বেরিয়ে যেতে বাধ্য হয়। পরে তারা আরও বেশি দাম চালু করে বাজারে আসে। কারণ ততদিনে প্রতিযোগিতা থেকে অন্য বিমান সংস্থা বেরিয়ে গেছে। আইনের বেড়াজাল টপকে কিছু বেসরকারি বিমান সংস্থা ওয়েবসাইটে দেওয়া ভাড়ার তুলনায় বেশি ভাড়া কেটে নিচ্ছে টিকিট কাটার সময়। এই প্রবণতা বন্ধ করা জরুরি প্রয়োজন। কারণ বেসরকারি সংস্থাগুলোকে নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারলে ভবিষ্যতে তারা আরও অধিক মুনাফার লোভে যাত্রী ভাড়া বাড়িয়ে দেবে। দুর্ভাগ্য, হজের সময় বিমান ভাড়া বেড়ে দ্বিগুণ হয়। দ্বিগুণ ভাড়া আদায়ে একটি গোষ্ঠী এক ধরনের প্রতারণা করে যাচ্ছে বলতেই হবে। এই প্রতারক চক্র থেকে যাত্রী জনসাধারণের কি মুক্তি নেই? 

লিয়াকত হোসেন খোকন 
রূপনগর, ঢাকা
[email protected]

পৃথিবীর ফুসফুস গাছপালা

প্রকাশ: ০৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৫৫ এএম
পৃথিবীর ফুসফুস গাছপালা

মানুষের সর্বগ্রাসী লোভের হাত থেকে অরণ্যসম্পদকে রক্ষা করা সর্বত্রই সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। মানুষই নিজের লোভের দ্বারা মরণের উপকরণ জুগিয়েছে। মানুষ অরণ্যকে ধ্বংস করে নিজেরই ক্ষতিকে ডেকে এনেছে, বায়ুকে নির্মল করবার ভার যে গাছপালার ওপর, যার পত্র ঝরে গিয়ে ভূমিকে উর্বরতা দেয়, তাকেই নির্মূল করেছে মানুষ। গ্রিন হাউস গ্যাস নিঃসরণ বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হবে ২০৩০ সাল নাগাদ এবং তা ১৬ শতাংশ। কপ সম্মেলনে এহেন আশঙ্কা করা হয়েছে। সবুজ ধ্বংসের ফলেই সারা বিশ্ব ৯ মাস ধরে তীব্র গরমের কোপে পড়ে নাস্তানাবুদ হয়। অপরিকল্পিত উন্নয়নও এর জন্য দায়ী। 

পৃথিবীর কোনো কোনো দেশের জাতীয় পরিবেশ আদালত দেশের বিভিন্ন প্রদেশকে সতর্ক করেছে যে পুকুর, জলাশয় ভরাট করে আকাশছোঁয়া বহুতল আবাসন, প্রশস্ত রাস্তা গড়ে তোলার বিষয়ে কড়া পদক্ষেপ নিতে হবে। নগরায়ণের নামে প্রকৃতির ওপর অত্যাচার করা চলবে না। স্মার্ট সিটি গড়ে তোলার জন্য সবুজ সাফ করে ফেলা হচ্ছে। পুকুর, বড় জলাশয় ভরাট করে বহুতল আবাসন গড়ে উঠছে। গাছ কেটে যে গাছ লাগানো হচ্ছে তা সবই নিছক ‘নয়নবাহারি’। এগুলো টলট্রিজাতীয় গাছ নয়। শাল, সেগুন, বট, অশ্বত্থ প্রভৃতি টলট্রিজাতীয় গাছ। নয়নাভিরাম গাছের বাতাসে ডাস্ট পার্টিকল ধরে রাখার ক্ষমতা প্রায় নেই। মানুষ এ কথা আর কবে বুঝবে? 

লিয়াকত হোসেন খোকন 
রূপনগর, ঢাকা
[email protected]

গোপনীয়তা রক্ষায় শ্রদ্ধাশীল হই

প্রকাশ: ০৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৫৩ এএম
গোপনীয়তা রক্ষায় শ্রদ্ধাশীল হই

বাংলাদেশের কোনো আইনে নাগরিকের তথ্য সুরক্ষার বিষয়ে সুস্পষ্ট কোনো দিকনির্দেশনাই নেই। এখন সময় এসেছে তথ্য সুরক্ষা আইন প্রণয়নের। আর সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান দ্বারা ব্যক্তি-সম্পর্কিত তথ্য সংগ্রহ, সংরক্ষণ, প্রক্রিয়াজাতকরণ, প্রচার ও প্রয়োগ করার ক্ষেত্রে ব্যক্তির সর্বাধিক নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা কীভাবে বজায় থাকবে তা নিশ্চিত করতে হবে। কেউ ইচ্ছা করলেই যাতে অন্যের অধিকার ক্ষুণ্ন করতে না পারে সে জন্য শক্ত আইন থাকা উচিত। আইন ব্যক্তির পক্ষে তার অধিকার সংরক্ষণে দায়িত্ব পালন করে। 

ইসলামও মানুষের ব্যক্তিগত তথ্য প্রকাশে বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। ইসলাম ধর্মে ব্যক্তির মান-মর্যাদা সুরক্ষার বিষয়ে জোর তাগিদ দেওয়া হয়েছে। ব্যক্তিগত গোপনীয়তা রক্ষাকে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির আমানত রক্ষা হিসেবে বিবেচনা করা হয়। কোনো মুসলমান ভাইয়ের দৃষ্টিতে অপর মুসলমান ভাইয়ের দোষত্রুটি পরিলক্ষিত হলে, সে ক্ষেত্রে কতর্ব্য হলো ওই দোষত্রুটি গোপন করা, জনসমক্ষে প্রকাশ করে তাকে হেয় বা লাঞ্ছিত না করা। ইসলাম ব্যক্তির গোপনীয়তা সুরক্ষার ব্যাপারে তার অনুসারীদের জোর তাগিদ দিয়েছে। ব্যক্তিগত গোপনীয়তা সুরক্ষায় ইসলামের দৃষ্টিভঙ্গি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও বাস্তবসম্মত। 

পরিশেষে কোনো তথ্য পেয়ে গেলেই তা প্রচার করা উচিত নয়। কেননা, সমাজে প্রচারিত বহু তথ্যই ভিত্তিহীন হয়ে থাকে। আল্লাহ সবাইকে অন্যের তথ্য প্রকাশের প্রবণতা থেকে রক্ষা করুন। আমিন।

ডা. মুহাম্মাদ মাহতাব হোসাইন মাজেদ
লেখক ও গবেষক 
প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান, জাতীয় রোগীকল্যাণ সোসাইটি
[email protected]