ঢাকা ২ বৈশাখ ১৪৩১, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪
Khaborer Kagoj

৬০ লাখে রফা, উঠানে পড়ে থাকা মরদেহ ৩ দিন পর দাফন

প্রকাশ: ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০২:১৫ পিএম
৬০ লাখে রফা, উঠানে পড়ে থাকা মরদেহ ৩ দিন পর দাফন
ছবি: খবরের কাগজ

গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে স্ত্রীর নামে ব্যাংকের টাকা ও সম্পত্তি লিখে দেওয়ায় ভাই-ভাতিজারা চাচার দাফন আটকে দেয়। পরে স্থানীয় ব্যক্তি ও পুলিশের হস্তক্ষেপে ৬০ লাখ টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতিতে তিনদিন পর দাফন সম্পন্ন হয়।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৯টার দিকে স্থানীয় ও পুলিশের হস্তক্ষেপে পারিবারিক কবরস্থানে মরদেহের দাফন করা হয়। 

উপজেলার বেতকাপা ইউনিয়নের শাকোয়া মাঝিপাড়া গ্রামে এই ‘লজ্জাজনক’ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, মাঝিপাড়া গ্রামের মোতাহার হোসেন মুন্সি অসুস্থ হয়ে গত কয়েকদিন ধরে ঢাকার আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। সেখানে গত মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাতে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। পরে মোতাহার হোসেনের মরদেহ দাফনের জন্য অ্যাম্বুলেন্সে বাড়িতে নিয়ে আসেন তার স্ত্রী মাসুমা বেগম। কিন্তু টাকা ও সম্পত্তি লিখে দেওয়ার অভিযোগে, মরদেহ দাফনে বাধা দেন মোতাহার হোসেনের ছোট ভাই নজরুল ইসলাম মুন্সী ও তার ভাতিজা হাবিবসহ পরিবারের কয়েকজন।

তাদের অভিযোগ, কিছু দিন আগে মোতাহার আলী তার নামের জমি দুই কোটি ১৮ লাখ টাকা বিক্রি করে ব্যাংকের রাখেন। সেই টাকা ও সব সম্পত্তি মাসুমা বেগম নিজের নামে লিখে নিয়েছেন। এ নিয়ে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হলে মরদেহ নিজ বাড়ির উঠানে পড়ে থাকে। পরে পুলিশ ও স্থানীয়রা ৬০ লাখ টাকার বিনিময়ে সমঝতা করে মরদেহ দাফন করা হয়। 

জানা গেছে, অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোতাহার হোসেন মুন্সী নিঃসন্তান। গণপূর্ত অধিদপ্তরে উপ-সহকারী কর্মকর্তা ছিলেন তিনি। মারজিয়া আক্তার নামে পালিত মেয়ে রয়েছে। স্ত্রী মাসুমা বেগমকে নিয়ে তিনি ধানমন্ডির কলাবাগান এলাকায় বসবাস করতেন। সম্প্রতি মোতাহার হোসেন অসুস্থ হয়ে পড়লে চিকিৎসার জন্য টাকার প্রয়োজন হয়। পরে ঢাকায় জমি বিক্রি করে তিনি দুই কোটি ১৮ লাখ টাকা ব্যাংকে রাখেন। এই টাকা দিয়ে তার চিকিৎসা চলছিল।

এ বিষয়ে বেতকাপা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘নিঃসন্তান মোতাহার আলীর ভাই-ভাতিজারা মরদেহ দাফনে আপত্তি জানানোর কারণে তা বাড়ির উঠানে পড়েছিল। পারিবারিকভাবে অর্থসংক্রান্ত দ্বন্দ্বের বিষয়ে সমঝোতা হয়েছে। মোতাহার আলীর স্ত্রী মাসুমা বেগম ৬০ লাখ টাকা ফেরতের আশ্বাস দিয়েছেন। তারপর মরদেহ দাফন করা হয়েছে।’

বিষয়টি নিশ্চিত করেন পলাশবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরজু মো. সাজ্জাদ হোসেন খবরের কাগজকে বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে মরদেহ দাফন করা হয়েছে।

রফিক খন্দকার/ইসরাত চৈতি/অমিয়/

গোপালগঞ্জে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১১:১৬ এএম
গোপালগঞ্জে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার
ছবি : খবরের কাগজ

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর থেকে সাহিদ শেখ (৩৩) নামে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) ভোর রাতে মুকসুদপুর উপজেলার মোচনা ইউনিয়নের আইকদিয়া গ্রামের মিঠাপুকুর নামক স্থান থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি ওই গ্রামের মৃত খবির শেখের ছেলে।

মুকসুদপুর থানার ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ আশরাফুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেন। 

তিনি জানান, একটি নারিকেল গাছের তলায় সাহিদ শেখকে পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মৃতদেহের বুকে, পিঠে ও মুখে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, তাকে হত্যার পর ওই স্থানে ফেলে রেখে যেতে পারে দুর্বৃত্তরা। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত মামলা না হলেও বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। 

বাদল সাহা/জোবাইদা/অমিয়/

ঈদের ছুটি শেষে সচল বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১১:১৫ এএম
ঈদের ছুটি শেষে সচল বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর
ছবি : খবরের কাগজ

ঈদুল ফিতর ও বাংলা নববর্ষের ছুটি শেষে সচল হয়েছে পঞ্চগড়ের চার দেশীয় বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের আমদানি রপ্তানি কার্যক্রম। 

সোমবার (১৫ এপ্রিল) সকাল থেকে বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল ও ভূটানের সঙ্গে পাথরসহ সকল প্রকার পণ্য আমদানি রপ্তানি কার্যক্রম সচল হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি আব্দুল লতিফ তারিন। 

পবিত্র ঈদুল ফিতর, শবে কদর ও বাংলা নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল ও ভুটানের ব্যবসায়ীদের যৌথ সিদ্ধান্তে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর দিয়ে গত ৮ এপ্রিল থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত আমদানি-রপ্তানি সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়। ছুটি শেষে সোমবার সকাল থেকে পুনরায় স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম চালু হয়েছে।

তবে স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও স্বাভাবিক ছিল বাংলাবান্ধা ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে পাসপোর্টধারী যাত্রীদের যাতায়াত।

এ বিষয়ে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের ব্যবস্থাপক আবুল কালাম আজাদ বলেন, ঈদুল ফিতর ও বাংলা নববর্ষের ছুটি শেষে আজ সকাল থেকে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে আমদানি রপ্তানি কার্যক্রম সচল হয়েছে।

রনি মিয়াজী/জোবাইদা/অমিয়/

ডাকাতিয়ার পাড়ে মাসব্যাপী বৈশাখী মেলা

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৪৭ এএম
ডাকাতিয়ার পাড়ে মাসব্যাপী বৈশাখী মেলা
ছবি : খবরের কাগজ

চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বর্ষবরণ ও প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে ডাকাতিয়া নদীর পাড়ে মাসব্যাপী বৈশাখী মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) সকাল ৯টায় হাসান আলী উচ্চবিদ্যালয় মাঠ থেকে জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে এবং চাঁদপুরের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর অংশগ্রহণে বর্ণিল আনন্দ শোভাযাত্রা ডাকাতিয়ার পাড়ে বৈশাখী মেলায় এসে শেষ হয়। পরে সেখানে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান ও বৈশাখী মেলার উদ্বোধন করেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান।

বৈশাখী মেলাকে ঘিরে ডাকাতিয়ার পাড়ে বসে হরেক রকম পণ্যের দোকান। এসব দোকানে মাটির তৈরি খেলনাসহ লোকজ সংস্কৃতির হরেক রকম পণ্য দেখা গেছে। 

সকাল থেকেই বৈশাখী মেলায় যেন মানুষের ঢল নামে। গ্রামাঞ্চল থেকে ট্রেনে, বাসে করেও আনন্দপ্রিয় মানুষদের ছুটে আসতে দেখা যায় সর্বজনীন এ উৎসবে। 

চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি শাহাদাত হোসেন শান্ত বলেন, ‘এই প্রথম চাঁদপুরে প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে মাসব্যাপী বাঙালির সাংস্কৃতিক উৎসব বৈশাখী মেলা আয়োজন করা হয়েছে। এর উদ্দেশ্য বাঙালিকে জাতীয়তাবাদে উদ্বুদ্ধ করা। শুধু পহেলা বৈশাখে এটি সীমাবদ্ধ না থাকে, বাঙালির ইতিহাস-ঐতিহ্য যাতে সারা বছর মানুষ ধারণ করে, তার চেষ্টা করতে হবে। আমরা যত জাতীয়তাবাদে উদ্বুদ্ধ হব, তত আমরা বিভিন্ন অপশক্তির বিরুদ্ধে লড়তে পারব।’

জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান বলেন, ‘আমাদের আয়োজনটি বাঙালির সংস্কৃতির আয়োজন। নতুন প্রজন্মদের আমাদের সমৃদ্ধ সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্যই কিন্তু আমাদের এই আয়োজন। সংস্কৃতির অংশ হিসেবে আমরা বিভিন্ন দেশীয় খেলাধুলার আয়োজন করে পুরস্কৃত করেছি। নতুন প্রজন্ম এখন বেশিই আধুনিক। তারা যেকোনো পরিস্থিতিতে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারে। কারণ র্যালিতে নতুন প্রজন্মদের ব্যাপক উপস্থিতি ছিল।’

শরীফুল ইসলাম/জোবাইদা/অমিয়/

নরসিংদীর সড়কে গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৪৪ এএম
নরসিংদীর সড়কে গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া
ছবি : খবরের কাগজ

নরসিংদীর সড়কে যাত্রীদের গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া। আর তা না দিলে যত্রতত্র বাস থামিয়ে যাত্রীদের নামিয়ে দিচ্ছে বাসের হেলপাররা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ঈদ পরবর্তী পহেলা বৈশাখে ঘুরে ফিরে ঘর ও কর্মস্থলমুখী যাত্রীরা নরসিংদীর ভৈরব বাসস্ট্যান্ড, জেলখানা মোড়, পাঁচদোনা মোড়ে টঙ্গী-গাজীপুর বাসস্ট্যান্ড, মাধবদী বাসস্ট্যান্ডসহ বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে আছে। তাদের কাছে অতিরিক্ত ভাড়া দাবি করছে চালক ও হেলপাররা। বাড়তি টাকা না দিলে বাসে যাত্রী নিচ্ছে না। এতে ভোগান্তিতে পড়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন যাত্রীরা।

সজল সাহা নামে এক যাত্রী জানান, ভেলানগর থেকে টঙ্গী যাবেন তিনি। উত্তরা পরিবহন ট্রান্সপোর্ট লিমিডেটের রপ্তানিমুখী একটি বাসের হেলপার তার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করছে। বেশি টাকা না দিতে চাওয়ায় বাসে তুলে আবার নামিয়ে দিয়েছে।

এ সময় ওই গাড়ির চালকের দুই সহযোগীর কাছে জানতে চাইলে তাদের দুর্ব্যবহার আরও প্রকাশ্যে আসে।

পাঁচদোনা মোড়ে টঙ্গী-গাজীপুর বাসস্ট্যান্ডে দেখা যায়, স্থানীয়দের দাপটে কাউন্টারে বসা টিকিট বিক্রেতারা কাউকে পরোয়া না করে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া নিচ্ছে। রাত সাড়ে ৭টার দিকে উত্তরা পরিবহন ট্রান্সপোর্ট লিমিডেট রপ্তানি কাউন্টারে অভিযোগের বিষয়ে জানালে তারা বলেন, ‘হ্যাঁ বেশি নিচ্ছি, তাতে কী হইছে?’

এ সময় কাউন্টারে বসা মো. রনি নামে এক যুবক বেশ দাপটে কথা বলেন, ‘নিউজ করেন বা অভিযোগ দেন গিয়া। আমনের ভাড়া লাগতো না। ফেরত লইয়া যান।’ 

অতিরিক্ত ভাড়া নিচ্ছে ও যাত্রী হয়রানি করছে ট্রাফিক পুলিশের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে, নরসিংদীর ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক (প্রশাসন) মো. শাখাওয়াত হোসেন বলেন, ‘অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। ঈদের আগে থেকে আমরা কঠোর অবস্থানে রয়েছি। যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ার বিষয়ে আমাদের কাছে কোনো অভিযোগ নেই। তবুও আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।’ 

খন্দকার শাহিন/জোবাইদা/অমিয়/

কালিয়াকৈরে বাসচাপায় স্বামী-স্ত্রী নিহত

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৩৯ এএম
কালিয়াকৈরে বাসচাপায় স্বামী-স্ত্রী নিহত
খবরের কাগজ গ্রাফিকস

গাজীপুরে কালিয়াকৈরে মহাসড়ক পার হওয়ার সময় বাসের চাপায় স্বামী-স্ত্রী নিহত হয়েছেন।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১১টার দিকে বাইপাস এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

নিহতরা হলেন- উপজেলার বড়ইতলী গ্রামের আসিফ মাহমুদ (২৬) ও তার স্ত্রী তানজিম বকশী (২১)।

নাওজোড় হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাত হোসেন তাদের মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেন।

জানা গেছে, নিহত আসিফ ও তানজিম তাদের আত্মীয়ের গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান থেকে ফেরার পথে বাইপাস এলাকায় মহাসড়ক পার হওয়ার সময় টাঙ্গাইলগামী একটি বাস তাদের চাপা দেয়। এতে দুজন গুরুতর আহত হলে স্থানীয়রা তাদের সাভারে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। সেখানে নেওয়ার পথেই তাদের মৃত্যু হয়।

ওসি বলেন, স্বামী-স্ত্রী নিহতের ঘটনায় বাসটি জব্দ করা হয়েছে। তবে চালক পালিয়ে গেছে। মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তরসহ প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

ওসি জানান, ‘রাতে দুরপাল্লার মালামাল লোড করা ট্রাকগুলো খুব ধীরগতিতে কালিয়াকৈর ফ্লাইওভারে উঠে। দুরপাল্লার বাস ওই ধীরগতি ট্রাকের পেছন না গিয়ে ফ্লাইওভারের নিচ দিয়ে বেপরোয়া গতিতে যায়। ধারণা করা হচ্ছে, এ বেপরোয়া গতির জন্যই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।’

পলাশ প্রধান/সাদিয়া নাহার/অমিয়/