দেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের । খবরের কাগজ
ঢাকা ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

দেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের

প্রকাশ: ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৩৩ পিএম
দেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

দেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) এক ভিডিও বার্তায় নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানান তিনি।

নতুন বছরে নতুন অধ্যায়ের সূচনার প্রত্যাশা ব্যক্ত করে তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িকতা, ষড়যন্ত্র ও সন্ত্রাসের রাজনীতির বিরুদ্ধে ঘৃণার আগুন ছড়িয়ে দিতে হবে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বছর ঘুরে আবারো এসেছে বাঙালির প্রাণের উৎসবের দিন পহেলা বৈশাখ। নতুন বছরে নতুন অধ্যায়ের সূচনা হবে, প্রতিটি প্রহর আমাদের স্বপ্নের জয়গানে মুখরিত হবে। আমরা বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সব চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করে এগিয়ে যাবো অর্জনের সুবর্ণ দিগন্তে- এই হোক আজকের প্রত্যাশা।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে হবে। অতীতের ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে আমাদের প্রিয় সংগঠন আওয়ামী লীগকে উন্নয়ন ও অগ্রগতির পথরেখায় ইতিবাচক ধারায় আরও বলিষ্ঠ, বেগবান অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখব।

সাম্প্রদায়িকতা, ষড়যন্ত্র ও সন্ত্রাসের রাজনীতির বিরুদ্ধে ঘৃণার আগুন ছড়িয়ে দিতে হবে জানিয়ে তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রেখে বাংলাদেশের রাজনীতিতে অসাম্প্রদায়িক চেতনার সুবাতাস ছড়িয়ে দিতে আওয়ামী লীগ বদ্ধপরিকর। 

সেতুমন্ত্রী বলেন, আমরা গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে দেশের সকল গণতান্ত্রিক, দেশপ্রেমিক, প্রগতিশীল শক্তিকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের আহ্বান জানাচ্ছি। দেশবাসীকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে জানাচ্ছি বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা- শুভ নববর্ষ। 

ইসরাত চৈতী/অমিয়/

ইসি সচিব জাহাংগীর আলমকে বদলি

প্রকাশ: ২১ মে ২০২৪, ১০:০৩ পিএম
ইসি সচিব জাহাংগীর আলমকে বদলি
মো. জাহাংগীর আলম

নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. জাহাংগীর আলমকে বদলি করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ মে) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মো. জাহাংগীর আলম ২০২২ সালের ২ নভেম্বর নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সচিব পদে যোগ দেন। এর আগে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে ওই বছরের ২৭ অক্টোবর তাকে সচিব পদে পদোন্নতি দিয়ে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সচিব হিসেবে পদায়ন করা হয়।

সচিব হওয়ার আগে মো. জাহাংগীর আলম জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি সচিব থাকার সময় দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

জাহাংগীর আলম ১৯৬৯ সালের ১৫ মে পটুয়াখালীতে জন্মগ্রহণ করেন। বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের ১৩তম ব্যাচের সদস্য হিসেবে ১৯৯৪ সালের ২৫ এপ্রিল সহকারী কমিশনার হিসেবে খাগড়াছড়ি জেলায় যোগ দেন।

এলিস/সালমান/

বাংলাদেশি অদক্ষ শ্রমিক নেওয়া বন্ধ করল মালদ্বীপ

প্রকাশ: ২১ মে ২০২৪, ০৯:৪৪ পিএম
বাংলাদেশি অদক্ষ শ্রমিক নেওয়া বন্ধ করল মালদ্বীপ
ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশ থেকে অদক্ষ শ্রমিক নিয়োগ বন্ধ করেছে দক্ষিণ এশিয়ার দ্বীপরাষ্ট্র মালদ্বীপ। মঙ্গলবার (২১ মে) দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ফাতিমাথ রিফাথ স্থানীয় গণমাধ্যমকে বলেন, ‘মালদ্বীপের কিছু কোম্পানি জাল কাগজপত্র দাখিল করে শ্রমিক নিয়োগ করেছে। তাই এক মাস আগে বাংলাদেশ থেকে অদক্ষ শ্রমিক নিয়োগ বন্ধ করা হয়েছিল। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে।’

অভিবাসী সমস্যার সমাধানের অংশ হিসেবে মালদ্বীপের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্প্রতি ‘কুরাঙ্গি’ নামে বিশেষ অভিযান শুরু করেছে। এই অভিযানে ৭০০ জনের বেশি অভিবাসীর বায়োমেট্রিক তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে।

এর আগে ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশ থেকে অদক্ষ শ্রমিক নিয়োগের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল মালদ্বীপ। দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহাম্মদ সলিহর প্রশাসন এ সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। নতুন প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুইজ্জুর প্রশাসন গত বছরের ডিসেম্বরে এ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছিল।

গত ডিসেম্বরে এক সংবাদ সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আলী ইহুসান বলেছিলেন, বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য ১ লাখ ৩৯ হাজার ২২০টি ওয়ার্ক পারমিট আগে থেকেই রয়েছে। তাদের মধ্যে নিয়মিত ওয়ার্ক পারমিট ফি দিয়েছেন মাত্র ৩৯ হাজার ৪ জন। 

স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে দেখা যায়, গত ডিসেম্বর পর্যন্ত মালদ্বীপে ৯০ হাজার ৬৪২ শ্রমিক বাংলাদেশি আগে থেকেই ছিলেন। মালদ্বীপের কর্মসংস্থান আইন অনুযায়ী, একটি দেশ থেকে শ্রমিক নিয়োগের কোটা ১ লাখের কম।

দমচর্চা-প্রত্যয়ন পাঠের মধ্য দিয়ে মেডিটেশন দিবস পালিত

প্রকাশ: ২১ মে ২০২৪, ০৯:২৭ পিএম
দমচর্চা-প্রত্যয়ন পাঠের মধ্য দিয়ে মেডিটেশন দিবস পালিত
ছবি : সংগৃহীত

‘ভালো মানুষ ভালো দেশ, স্বর্গভূমি বাংলাদেশ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে মঙ্গলবার (২১ মে) বিশ্ব মেডিটেশন দিবস পালন করেছে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন। জাতীয় প্রেস ক্লাব প্রাঙ্গণে বিশেষ মেডিটেশনের আয়োজনের মধ্য দিয়ে চতুর্থবারের মতো এই কর্মসূচি পালন করে সংগঠনটি। 

রাজধানীর পাশাপাশি আজ ভোর ৬টায় সারা দেশের বিভিন্ন উন্মুক্ত স্থানে একযোগে প্রাণায়াম বা দমচর্চা, প্রত্যয়ন পাঠ ও মেডিটেশনের আয়োজন করে সংগঠনটি। আর এর মধ্য দিয়ে ধ্যানীরা সুস্থতা ও প্রশান্তির বাণী ছড়িয়ে দেন। 

অনুষ্ঠানে বক্তারা প্রাণায়াম, প্রত্যয়ন, অনুভূতি আর ধ্যানের মাধ্যমে মেডিটেশন (ধ্যান) চর্চার গুরুত্ব তুলে ধরেন। তারা জানান, ভুল জীবনযাপন থেকে সৃষ্টি হয় বিভিন্ন রোগ। আর তার থেকে মুক্তি এবং টোটাল ফিটনেসের জন্য প্রয়োজন মেডিটেশন বা সুস্থ জীবনযাপন। প্রশান্তি নিয়ে বর্তমানে বিশ্বজুড়ে প্রায় ৫০ কোটিরও বেশি মানুষ নিয়মিত মেডিটেশন করে। নিয়মিত এই অনুশীলন, মানুষের ভেতরের ইতিবাচক সত্তাকে জাগিয়ে তোলে। আত্মশক্তির বিকাশ, রোগ নিরাময়, সাফল্য কিংবা প্রশান্তি লাভে মেডিটেশনের গুরুত্ব এখন প্রমাণিত সত্য। জাতি, ধর্ম, বর্ণ, গোত্র নির্বিশেষে মানুষের কল্যাণ সাধনে মেডিটেশন সবচেয়ে কার্যকরী মাধ্যম। যা মানুষের মনকে স্থির করে, ক্রোধ কমায়।

এর আগে ভোর থেকে জাতীয় প্রেস ক্লাব প্রাঙ্গণে ধ্যানপ্রেমী ছোট বড় নানা পেশার মানুষ জড়ো হতে থাকে। দিনটি উদযাপন করতে ঢাকার বাইরে থেকেও অসংখ্য মানুষ আসে। তাদের মধ্যে মুন্সীগঞ্জ থেকে আসা আকরাম নামে একজন বলেন, ‘আমাদের প্রত্যেকের মধ্যেই সুপ্ত প্রতিভা লুকিয়ে আছে। আমরা অনেকেই হয়তো সে শক্তি সম্পর্কে নিশ্চিত নই। নিজেকে জানতে কিংবা নিজের সেই লুক্কায়িত প্রতিভা জাগ্রত করার প্রধান অস্ত্র হচ্ছে মেডিটেশন।’ 

খাদিজা নামের একজন এসেছেন নারায়ণগঞ্জ থেকে। তিনি জানান, এই মেডিটেশন উদযাপনে অংশগ্রহণ করতে তিনি ভোরের আলো ফোটার আগেই বের হয়েছেন। প্রায় ২০ বছর ধরে তিনি মেডিটেশন করছেন। মেডিটেশন তার জীবন বদলে দিয়েছে।

নরসিংদী থেকে এসেছেন মোমেনা বেগম। তিনি বলেন, ‘নিজেকে সময় দেওয়া, স্থির হওয়াটা খুব জরুরি।  জীবনের সব ইতিবাচক পরিবর্তনে মেডিটেশন একটি কার্যকরী ওষুধ, যা পরিবারের সুস্থতা ও সামাজিক সুস্থতায়ও অবদান রাখে।’ 

প্রসঙ্গত, ৭ বছর আগে উইল উইলিয়ামস নামে এক ব্রিটিশ মেডিটেশন প্রশিক্ষক প্রথম দিবসটি পালনের উদ্যোগ নেন। তিনি ছিলেন অনিদ্রার রোগী। মেডিটেশনের মাধ্যমে নিরাময় লাভের পর এ সম্পর্কে আরও উৎসাহী হয়ে ওঠেন উইলিয়ামস। নিয়মিত  মেডিটেশন চর্চায় কমে যায় মনের রাগ, ক্ষোভ, দুঃখ, হতাশা কিংবা মানসিক চাপ। নেতিবাচকতা থেকে দৃষ্টিভঙ্গি বদলে যায় ইতিবাচকতায়।

গরিব-দুঃখী মানুষের আস্থার ঠিকানা শেখ হাসিনা: নানক

প্রকাশ: ২১ মে ২০২৪, ০৮:২৯ পিএম
গরিব-দুঃখী মানুষের আস্থার ঠিকানা শেখ হাসিনা: নানক
ছবি : সংগৃহীত

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এবং বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, গরিব-দুঃখী মানুষের আস্থার ঠিকানা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মেহনতি মানুষের জীবন-জীবিকার কথা চিন্তা করেই ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চলাচলের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

মঙ্গলবার (২১ মে) রাজধানীর তালতলায় লায়ন্স অগ্রগতি স্কুলে স্পেশাল বাচ্চা, বৃদ্ধ ও প্যারালাইস্ড রোগীদের হুইলচেয়ার বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সামাজিক সংগঠন ‘সোসাইটি ফর এইড প্রোগ্রাম’ (এসএপি)। এ সময় রোগীদের মাঝে হুইলচেয়ার ও গরিব-দুঃখীদের মাঝে অটোরিকশা বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী আরও বলেন, ‘সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে একটি বার্তা আসে, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা বন্ধ করা হয়েছে। তাই শ্রমিকরা বিক্ষোভ শুরু করেছেন। প্রধানমন্ত্রী কথাটা শুনে অবাক হয়ে গেলেন! তিনি জানতে চান- ‘এর কারণ কী? প্রধানমন্ত্রী তখনি পরিষ্কার করে বললেন- ‘ওরা যা দিয়ে উপার্জন করে জীবন-জীবিকা চালায় সেই পথ কেন বন্ধ করা হয়েছে?’ সঙ্গে সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন অটোরিকশা চালু করার জন্য এবং চালু হয়ে গেল।’

ঢাকা ১৩ আসনের জনগণের উদ্দেশে স্থানীয় এমপি নানক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেমন গরিব-দুঃখী মানুষের জন্য কাজ করেন, আমরাও ঠিক তেমনিভাবে মানুষের জন্য কাজ করতে চাই। যেকোনো প্রয়োজনে আমাদের জানাবেন, আমরা পাশে থাকব।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- স্থানীয় আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগের নেতা-কর্মীরা।

 

রাজধানীর মূল সড়কেও দিব্যি চলছে অটোরিকশা

প্রকাশ: ২১ মে ২০২৪, ০৮:২৮ পিএম
রাজধানীর মূল সড়কেও দিব্যি চলছে অটোরিকশা
ছবি : খবরের কাগজ

সরকারি ঘোষণার পর মঙ্গলবার (২১ মে) রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চলতে দেখা গেছে। অনেক এলাকায় অলিগলি ও পাড়া-মহল্লার পথ ছেড়ে মূল সড়কেও চলছে এসব অটোরিকশা।

এতে মূল সড়কে বিশৃঙ্খলা যেমন বেড়েছে, তেমনি দুর্ঘটনার ঝুঁকিও বেড়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এদিকে এলাকা নির্দিষ্ট করে দেওয়াসহ অটোরিকশা চলাচলের একটা নীতিমালা করার দাবি করেছেন চালক ও যাত্রীরা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকল‍্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের সহযোগী অধ্যাপক এবং সমাজ ও অপরাধ বিশেষজ্ঞ ড. তৌহিদুল হক খবরের কাগজকে বলেন, ‘অটোরিকশার কারণে মূল সড়কে বিশৃঙ্খলা হচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে দুর্ঘটনার ঝুঁকিও থাকবে।’

দুই দিন আন্দোলনের পর রাজধানীতে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চলাচলের অনুমতি দেয় সরকার। প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দেওয়ার বিষয়টি সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ঘোষণা করার পর আজ রাজধানীর প্রায় সব সড়কেই এসব যান চলতে দেখা যায়। ব্যাটারিচালিত বিচিত্র ধরনের অটোরিকশা রাজধানীর বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা ও অলিগলিতে আগে থেকেই চলছিল। কখনো কখনো তা মূল সড়কেও উঠে আসে। পুলিশ এগুলো বন্ধ করতে গেলে বিক্ষোভ শুরু করেন চালকরা। 

চালকরা বলছেন, নিয়মনীতি মেনে অটোরিকশা চালাতে চান তারা। যারা নিয়ম মানছেন না, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তাদের। যাত্রীরা বলছেন, অলিগলিতে অটোরিকশা চললে সমস্যা নেই। তবে মূল সড়কে চললে বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়, দুর্ঘটনার ঝুঁকি বাড়ে। রাজধানীতে কতসংখ্যক ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চলে তার কোনো হিসাব নেই সংশ্লিষ্টদের কাছে। তাই নীতিমালা করে এসব যানবাহন নিয়ন্ত্রণের দাবি সচেতন নাগরিকদের। 

এ বিষয়ে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস) ড. খ. মহিদ উদ্দিন বলেন, ‘সরকারের সিদ্ধান্তের বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই। মূল সড়কে রিকশা উঠলে পুলিশ ব্যবস্থা নেবে। আমরা এখনো সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা পাইনি। তবে মূল সড়কে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চলাচল বন্ধ থাকবে।’