ঢাকা ১০ আষাঢ় ১৪৩১, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪

বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ সৃষ্টির পূর্বাভাস

প্রকাশ: ২১ মে ২০২৪, ১০:৪০ পিএম
আপডেট: ২১ মে ২০২৪, ১০:৪০ পিএম
বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ সৃষ্টির পূর্বাভাস

দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় আগামীকাল বুধবার (২২ মে) লঘুচাপ সৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

মঙ্গলবার (২১ মে) সন্ধ্যা ৬টায় আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ থেকে বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চল হয়ে উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে। পরবর্তী সময়ে এটি ঘনীভূত হতে পারে।

আবহাওয়াবিদ শাহনাজ সুলতানা খবরের কাগজকে বলেন, ‘লঘুচাপ যখন নিম্নচাপ এবং পরে গভীর নিম্নচাপে রূপ নেয় তখন ঘূর্ণিঝড়ের বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে ওঠে। অনেক সময় নিম্নচাপ থেকেই শেষ হয়। লঘুচাপ সৃষ্টি হলে আরও নিশ্চিত হওয়া যাবে ঘূর্ণিঝড়ের বিষয়ে।’

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, চুয়াডাঙ্গায় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। রাজধানী ঢাকার তাপমাত্রা ছিল ৩৬ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তাপমাত্রা ৩৬ ডিগ্রির ওপরে থাকায় ঢাকা, নেত্রকোনা, চট্টগ্রাম, রাঙামাটি, ফেনী, কক্সবাজার, বাগেরহাট, যশোর এবং চুয়াডাঙ্গা জেলাসহ সিলেট বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। পটুয়াখালী জেলার খেপুপাড়ায় ৬৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাতের রেকর্ড করা হয়েছে, যা দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাস অনুযায়ী, রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা ও চট্টগ্রাম বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা-ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি-বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এ ছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। চলমান তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে এবং বিস্তার লাভের সম্ভাবনা রয়েছে। বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় বজ্রবৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

সকল নাগরিকের বিচার পাবার অধিকার আছে: প্রধান বিচারপতি

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ০৩:০২ পিএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ০৩:০২ পিএম
সকল নাগরিকের বিচার পাবার অধিকার আছে: প্রধান বিচারপতি
ছবি: খবরের কাগজ

বিচারপ্রার্থী এবং অভিযুক্ত সকলেরই ন্যায়বিচার পাবার অধিকার রয়েছে। দেশের সকল নাগরিকের বিচারপ্রাপ্তি নিশ্চিতে নিরলসভাবে কাজ করছে বিচার বিভাগ বলে জানিয়েছেন প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান।

সোমবার (২৪ জুন) দুপুরে সিরাজগঞ্জ জেলা জজ আদালতে বিচারপ্রার্থীদের জন্য আধুনিক সুবিধা সম্বলিত বিশ্রামাগার ন্যায়কুঞ্জ উদ্বোধন শেষে এ কথা বলেন তিনি।

গণপূর্ত বিভাগের তত্ত্বাবধানে প্রায় ৫৩ লাখ টাকা ব্যয়ে আদালত প্রাঙ্গনে বিচারপ্রার্থীদের বসার স্থান, ব্রেস্ট ফিডিং কর্নার, টয়লেট ও মুদিখানা উদ্বোধন করেন।

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘দ্রুত বিচারপ্রাপ্তি নিশ্চিতে প্রধান অন্তরায় মামলাজট, তাই মামলাজট কমানোর জন্য নানা উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। আদালতে আসা বিচারপ্রার্থী, অভিযুক্ত ও স্বাক্ষীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয় বিশ্রামাগার না থাকার কারণে। এই দুর্ভোগ লাঘবে একটি অনন্য উদ্যোগ বিচারপ্রার্থীদের জন্য আধুনিক সুবিধাসম্বলিত বিশ্রামাগার ন্যায়কুঞ্জ, সারাদেশের সকল জজশিপে দ্রুত ন্যায়কুঞ্জ নির্মাণ করা হবে।’

বিশ্রামাগার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্টার মুন্সি মো. মশিয়ার রহমান, সিরাজগঞ্জের জেলা ও দায়রা জজ এম আলী আহম্মেদ, জেলা প্রশাসক মীর মো. মাহবুবুর রহমান, পুলিশ সুপার আরিফুর রহমান মণ্ডল ও আইনজীবীসহ প্রমুখ।

সিরাজুল ইসলাম/সাদিয়া নাহার/অমিয়

উপবৃত্তি, টিউশন ফি বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ১২:৫৯ পিএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ০২:৩১ পিএম
উপবৃত্তি, টিউশন ফি বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

মাধ্যমিক থেকে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২০২৩-২৪ অর্থবছরের উপবৃত্তি ও টিউশন ফি বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (২৪ জুন) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব কার্যক্রম উদ্বোধন করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি সত্যি খুব আনন্দিত আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলেছি, এটা তারই একটি দৃষ্টান্ত। এইমাত্র যেটা উদ্বোধন করা হলো সেটা হলো স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের অসচ্ছল ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি ও টিউশন ফি দেওয়া। এটা সম্পূর্ণ ডিজিটাল পদ্ধতিতে যার যার অ্যাকাউন্টে চলে যাবে। নিজেরা সংগ্রহ করতে পারবেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্টাইপেন্ড এবং টিউশন ফি বাবদ অর্থ বিতরণ করতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত।’

শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শিক্ষা ও সাংস্কৃতিকবিষয়ক উপদেষ্টা ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী, শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বেগম শামসুন্নাহার, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব সোলেমান খান।

একই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ‘বঙ্গবন্ধু সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ’ প্রতিযোগিতা-২০২৪ এর ১৫ জন শিক্ষার্থী এবং ২১ শিক্ষার্থীর মধ্যে ২০২৩ সালের ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্কলার অ্যাওয়ার্ড’ বিতরণ করেন।

‘বঙ্গবন্ধু সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ’ প্রতিযোগিতায় পুরস্কারপ্রাপ্ত ১৫ শিক্ষার্থীর প্রত্যেকেই ২ লাখ টাকা ও একটি সনদপত্র পেয়েছেন। 

এ ছাড়া, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্কলার অ্যাওয়ার্ড’ প্রাপ্ত ২১ শিক্ষার্থীর প্রত্যেকেই একটি সনদপত্র ও ৩ লাখ টাকা পেয়েছেন।

মোবাইল ফোন বা অনলাইন ব্যাংকিংয়ে মাধ্যমিক থেকে স্নাতক পাস পর্যায়ে ৬৪ লাখ ৭০ হাজারের বেশি মেধাবী শিক্ষার্থীদের মোট ২ হাজার ২০৮ কোটি টাকা বিতরণ করা হবে।

অমিয়/

ঈদযাত্রায় ২৫১টি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২৬২

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ১২:২১ পিএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ০২:৩২ পিএম
ঈদযাত্রায় ২৫১টি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২৬২
খবরের কাগজ গ্রাফিকস

ঈদুল আজহার আগে ও পরে ১৩ দিনে দেশে ২৫১টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২৬২ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে কমপক্ষে ৫৪৩ জন। 

সোমবার (২৪ জুন) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ঈদুল আজহা উদযাপনকালে সংঘটিত সড়ক দুর্ঘটনার প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে রোড সেফটি ফাউন্ডেশন।

প্রতিষ্ঠানটি ৯টি জাতীয় দৈনিক, সাতটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল এবং ইলেকট্রনিক গণমাধ্যমের তথ্যের ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ১১ থেকে ২৩ জুন পর্যন্ত এই ১৩ দিনে দুর্ঘটনায় নিহতের মধ্যে ৩২ জন নারী ও ৪৪টি শিশু রয়েছে। 

১২৯টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত ১০৪ জন, যা মোট নিহতের ৩৯ দশমিক ৬৯ শতাংশ। মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার হার ৫১ দশমিক ৩৯ শতাংশ। দুর্ঘটনায় ৪৯ জন পথচারী নিহত হয়েছে, যা মোট নিহতের ১৮ দশমিক ৭০ শতাংশ। যানবাহনের চালক ও সহকারী নিহত হয়েছেন ২৮ জন, অর্থাৎ ১০ দশমিক ৬৮ শতাংশ।

এই সময়ে ৭টি নৌ-দুর্ঘটনায় ১২ জন নিহত এবং তিনজন আহত হয়েছেন। ১৬টি রেলপথ দুর্ঘটনায় ১৪ জন নিহত এবং আটজন আহত হয়েছেন।

দুর্ঘটনায় যানবাহনভিত্তিক নিহতের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, মোটরসাইকেল চালক ও আরোহী ১০৪ জন (৩৯ দশমিক ৬৯ শতাংশ), বাসযাত্রী ১১ জন (৪ দশমিক ১৯ শতাংশ), ট্রাক-কাভার্ডভ্যান-পিকআপ-ট্রাক্টর-ট্রলি আরোহী ১৫ জন (৫ দশমিক ৭২ শতাংশ), প্রাইভেটকার- মাইক্রোবাস-অ্যাম্বুলেন্স আরোহী ২৪ জন (৯ দশমিক ১৬ শতাংশ), থ্রি-হুইলার যাত্রী (ইজিবাইক-সিএনজি-অটোরিকশা-অটোভ্যান-লেগুনা-টেম্পু) ৪৫ জন (১৭ দশমিক ১৭ শতাংশ), স্থানীয়ভাবে তৈরি যানবাহনের যাত্রী (নসিমন-করিমন-ভটভটি-পাওয়ারটিলার) ৯ জন (৩ দশমিক ৪৩ শতাংশ) এবং বাইসাইকেল আরোহী পাঁচজন (১ দশমিক ৯০ শতাশং) নিহত হয়েছে।

দুর্ঘটনাগুলোর মধ্যে ৯৭টি (৩৮ দশমিক ৬৪ শতাংশ) জাতীয় মহাসড়কে, ৯১টি (৩৬ দশমিক ২৫ শতাংশ) আঞ্চলিক সড়কে, ২৮টি (১১ দশমিক ১৫ শতাংশ) গ্রামীণ সড়কে ৩২টি (১২ দশমিক ৭৪ শতাংশ) শহরের সড়কে এবং তিনটি (১ দশমিক ১৯ শতাংশ) অন্যান্য স্থানে সংঘটিত হয়েছে।

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার ধরন বিশ্লেষণে দেখা যায়, মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনা ঘটেছে ৪০ দশমিক ৯০ শতাংশ, মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটেছে ২৭ দশমিক ২৭ শতাংশ এবং অন্য যানবাহন দ্বারা মোটরসাইকেলে চাপা/ধাক্কায় দুর্ঘটনা ঘটেছে ৩১ দশমিক ৮১ শতাংশ।

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে ২৮ দশমিক ৩৫ শতাংশের বয়স ১৩ থেকে ১৭ বছর। ৪৭ দশমিক ৭৬ শতাংশের বয়স ১৮ থেকে ৩৫ বছর এবং ২৩ দশমিক ৮৮ শতাংশের বয়স ৩৬ থেকে ৬০ বছর।

দুর্ঘটনায় ৯৯৮ কোটি ৫৫ লাখ ৩৭ হাজার টাকার মানবসম্পদ ক্ষতি হয়েছে।

অমিয়/

চোরাই চিনি জব্দে সিলেটে টাস্কফোর্সের অভিযান শুরু

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ১১:৪৫ এএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ১১:৪৫ এএম
চোরাই চিনি জব্দে সিলেটে টাস্কফোর্সের অভিযান শুরু
সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় চোরাচালান প্রতিরোধী টাস্কফোর্সের অভিযানে জব্দ ২৫৪ বস্তা চিনি। ছবি: খবরের কাগজ।

সুনামগঞ্জের সীমান্ত উপজেলা বিশ্বম্ভরপুরে টাস্কফোর্সের অভিযান বাধার মুখে পড়লেও সিলেটে নির্বিঘ্নে শুরু হয়েছে। সিলেটের সীমান্ত উপজেলা গোয়াইনঘাটে প্রথম অভিযানে জব্দ করা হয়েছে ২৫৪ বস্তা চোরাই চিনি। 

রবিবার (২৩ জুন) দুপুর ১টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত জাফলংয়ের সোনাটিলায় বিভিন্ন বাড়িতে টাস্কফোর্সের এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। 

অভিযানে জব্দ করা ২৫৪ বস্তা চোরাই চিনির পরিমাণ ১২ হাজার ৭০০ কেজি। বাজারদর অনুযায়ী মূল্য প্রায় ১৯ লাখ ৫ হাজার টাকা। অভিযানে জব্দ চোরাই চিনি আইন ও বিধি মোতাবেক নিলাম কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে পুরো টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিতে তামাবিল শুল্ক কর্তৃপক্ষের জিম্মায় প্রদান করা হয়। 

গোয়াইনঘাট উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইদুল ইসলাম টাস্কফোর্সের অভিযানে নেতৃত্ব দেন। অভিযানে তামাবিল শুল্ক কর্তৃপক্ষের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন গুদাম কর্মকর্তা (সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা) মো. মামুন শেখ, ৪৮ বিজিবি সিলেটের প্রতিনিধিত্ব করেন নায়েব সুবেদার মো. শহিদুল আলম এবং জাফলং থানা পুলিশের পক্ষে এসআই ফখরুল ইসলাম। অভিযান চলাকালে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। 

জনস্বার্থে  ও চোরাচালান গোয়াইনঘাট উপজেলায় টাস্কফোর্স অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইদুল ইসলাম।

চোরাচালান প্রতিরোধ কমিটি-সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, অভিযানে অযাচিতভাবে বাধা দেওয়া হলে তাৎক্ষণিক মোবাইল কোর্ট বসিয়ে দণ্ড কার্যকর করার বিষয়টি মাথায় রেখে এ অভিযান শুরু করা হয়। তবে গোয়াইনঘাটে প্রথম অভিযানে কেউ কোনো ধরনের বাধার সৃষ্টি করেনি। টাস্কফোর্সের অভিযানে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের সদস্য (বিজিবি) ও স্থানীয় থানার পুলিশ সদস্য অংশ নেন।

এর আগে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে নিরাপত্তাচৌকি (অস্থায়ী চেকপোস্ট) বসিয়ে সাড়ে ২১ লাখ টাকা মূল্যের ৩৯২ বস্তা চোরাই চিনি জব্দ করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় দেলোয়ার হোসেন (৪৪) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গত শনিবার দুপুরে মহাসড়কের রশিদপুর এলাকা থেকে চিনিগুলো জব্দ করে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের (এসএমপি) দক্ষিণ সুরমা থানা-পুলিশ। দেলোয়ার হোসেন সিলেটের সীমান্ত উপজেলা বিয়ানীবাজারের বড়দেশ গ্রামের বাসিন্দা।

শনিবার দিনের এ ঘটনায় রাত ১২টার দিকে দক্ষিণ সুরমা থানায় মামলা করার পর গণমাধ্যমে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেয় এসএমপি।

এর আগে গত শুক্রবার নগরীর শিবগঞ্জ এলাকায় নিরাপত্তাচৌকি বসিয়ে পাথরবাহী ট্রাকে পরিবহন করা চোরাই চিনির চালান আটক করে শাহপরাণ থানা-পুলিশ। ওই ট্রাকে ২৪৫টি বস্তায় ১৪ লাখ টাকার মোট ১২ হাজার ৫ কেজি ভারতীয় চিনি জব্দ করেছিল। 

পুলিশের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শনিবার দুপুরের দিকে চোরাকারবারিরা ভারতীয় অবৈধ মালামাল নিয়ে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক হয়ে ঢাকার দিকে যাচ্ছে। এমন সংবাদ পেয়ে এসআই সুমন চক্রবর্তী ফোর্সসহ ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রশিদপুর এলাকায় অস্থায়ী নিরাপত্তাচৌকি বসিয়ে দেলোয়ার হোসেনকে আটক করেন। পরে দেলোয়ারের মাধ্যমে দেশীয় চিনি পরিবহনের বেশে থাকা ট্রাক চিহ্নিত করা হয়। এরপর সেই ট্রাকে তল্লাশি চালিয়ে ৩৯২ বস্তা ভারতীয় চিনি জব্দ করা হয়। 

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, প্রতিটি বস্তায় ৫০ কেজি করে মোট ১৯ হাজার ৬০০ কেজি চিনি পাওয়া গেছে। প্রতিটি বস্তার মুখ প্লাস্টিকের সুতলি দিয়ে আটকানো ছিল। দেশীয় চিনি বোঝাতে আসল বস্তা আড়াল করা ছিল। ওই সব বস্তায় ইংরেজিতে লেখা ছিল ‘INDIAN WHITE CRYSTAL SUGAR, NET WEIGHT-50 KG’। প্রতি কেজি চিনির বর্তমান বাজারদর ১১০ টাকা। সে হিসাবে ১৯ হাজার ৬০০ কেজি চিনির মূল্য ২১ লাখ ৫৬ হাজার টাকা।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের এডিসি (মিডিয়া) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম খবরের কাগজকে জানান, এ ঘটনায় দক্ষিণ সুরমা থানায় একটি মামলা করা হয়েছে। দেলোয়ারকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ দিলেন কৃষিমন্ত্রী

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ১০:৪৭ এএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ০১:১৯ পিএম
বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ দিলেন কৃষিমন্ত্রী
ছবি: খবরের কাগজ

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছেন কৃষিমন্ত্রী আব্দুস শহীদ।

রবিবার (২৩ জুন) বিকেলে উপজেলার কালাপুর ইউনিয়নের হাজীপুর গ্রামে ক্ষতিগ্রস্ত ১৫০টি পরিবারের মাঝে চাল, ডাল, তেল, লবণসহ বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রীর প্যাকেট তুলে দেন কৃষিমন্ত্রী।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রশাসন এই ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম শুরু করেছে।

শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আছাদুজ্জামানের পরিচালনায় ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবু তালেবের সভাপতিত্বে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ভানুলাল রায়, শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিনয় ভূষণ রায়।

এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন কালাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতলিবসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে পাঁচ শতাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়ে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের তালিকা প্রস্তুত করা হচ্ছে। যাচাই-বাছাই করে প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে শিগগিরই খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হবে।

হৃদয় শুভ/সাদিয়া নাহার/অমিয়/