ঢাকা ২ বৈশাখ ১৪৩১, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪
Khaborer Kagoj

নীলফামারীতে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি

প্রকাশ: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২:১১ পিএম
নীলফামারীতে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি
ছবি : খবরের কাগজ

উত্তরের জেলা নীলফামারীতে ভোর থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হয়েছে। অসময়ের এই বৃষ্টিতে জনজীবনের স্বাভাবিক কার্যক্রমে কিছুটা ছন্দপতন হয়েছে। এ ছাড়াও আলু, সরিষাসহ বিভিন্ন ফসলের ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। 

বৃহস্পতিবার (২২ফেব্রুয়ারি) ভোরে কুয়াশার পাশাপাশি গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হয়।

ফাগুনের এই বৃষ্টি কিছুটা ঠাণ্ডা বাড়িয়ে দিয়েছে। আর কয়েকদিন পর যে আলু তোলবেন কৃষকরা সেই আলু পানি পেয়ে পচে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ ছাড়াও সরিষা আবাদে ব্যাঘাত ঘটিয়েছে অসময়ের বৃষ্টি।

নীলফামারী সদর উপজেলার ইটাখোলা  ইউনিয়নের বাসিন্দা রশেদ ইসলাম বলেন, সকালে কাজে যাওয়ার কথা ছিল। বৃষ্টির কারনে ঠান্ডাও বেশি। তাই কাজে যাওয়ার উপায় নাই।

জেলা শহরের উকিলের মোড় এলাকার রিকশাচালক খায়রুল হুদা বলেন, ‘কয়দিন আগোত ঠান্ডার জন্যে ভাড়া পাইনা, মানুষ বাড়ি থাকি বেরায় না, এলা ফির শুরু হইল বৃষ্টি, সকাল থাকি এলাও কোন ভাড়া পাইনি।’

সৈয়দপুর বিমানবন্দর আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লোকমান হাকিম খবরের কাগজকে বলেন, গত ২৪ ঘন্টায় নীলফামারীতে ০ দশমিক ৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। আজ সারাদিনই  এরকম গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি পড়তে পারে। আগামীকালও আকাশের অবস্থা এরকমই থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

ওয়ালি মাহমুদ/অমিয়/

ডাকাতিয়ার পাড়ে মাসব্যাপী বৈশাখী মেলা

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৪৭ এএম
ডাকাতিয়ার পাড়ে মাসব্যাপী বৈশাখী মেলা
ছবি : খবরের কাগজ

চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বর্ষবরণ ও প্রেসক্লাবের উদ্যোগে ডাকাতিয়া নদীর পাড়ে মাসব্যাপী বৈশাখী মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) সকাল ৯টায় হাসান আলী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ থেকে জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে এবং চাঁদপুরের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর অংশগ্রহণে বর্ণিল আনন্দ শোভাযাত্রা ডাকাতিয়ার পাড়ে বৈশাখী মেলায় এসে শেষ হয়। পরে সেখানে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান ও বৈশাখী মেলার উদ্বোধন করেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান।

বৈশাখী মেলাকে ঘিরে ডাকাতিয়ার পাড়ে বসে হরেক রকম পণ্যের দোকান। এসব দোকানগুলোতে মাটির তৈরি খেলনাসহ লোকজ সংস্কৃতির হরেক রকম পণ্য দেখা গেছে। 

সকাল থেকেই বৈশাখী মেলায় যেনো মানুষের ঢল নামে। গ্রামাঞ্চল থেকে ট্রেনে, বাসে করেও আনন্দপ্রিয় মানুষদের ছুটে আসতে দেখা যায় সার্বজনীন এ উৎসবে। 

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহাদাত হোসেন শান্ত বলেন, ‘এই প্রথম চাঁদপুরে প্রেসক্লাবের উদ্যোগে মাসব্যাপী বাঙালির সাংস্কৃতিক উৎসব বৈশাখী মেলা আয়োজন করা হয়েছে। এর উদ্দেশ্য বাঙালিকে জাতীয়তাবাদে উদ্বুদ্ধ করা। শুধুমাত্র পহেলা বৈশাখে এটি সীমাবদ্ধ না থাকে, বাঙালির ইতিহাস-ঐতিহ্য যাতে সারাবছর মানুষ ধারণ করে, তার চেষ্টা করতে হবে। আমরা যত জাতীয়তাবাদে উদ্বুদ্ধ হব, তত আমরা বিভিন্ন অপশক্তির বিরুদ্ধে লড়তে পারব।’

জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান বলেন, ‘আমাদের আয়োজনটি বাঙালির সংস্কৃতির আয়োজন। নতুন প্রজন্মদেরকে আমাদের সমৃদ্ধ সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্যই কিন্তু আমাদের এই আয়োজন। সংস্কৃতির অংশ হিসেবে আমরা বিভিন্ন দেশীয় খেলাধুলার আয়োজন করে পুরস্কৃত করেছি। নতুন প্রজন্ম এখন বেশিই আধুনিক। তারা যে কোনো পরিস্থিতিতে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারে। কারণ র্যালিতে নতুন প্রজন্মদের ব্যাপক উপস্থিতি ছিল।’

শরীফুল ইসলাম/জোবাইদা/অমিয়/

নরসিংদীর সড়কে গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৪৪ এএম
নরসিংদীর সড়কে গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া
ছবি : খবরের কাগজ

নরসিংদীর সড়কে যাত্রীদের গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া। আর তা না দিলে যত্রতত্র বাস থামিয়ে যাত্রীদের নামিয়ে দিচ্ছে বাসের হেলপাররা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ঈদ পরবর্তী পহেলা বৈশাখে ঘুরে ফিরে ঘর ও কর্মস্থলমুখী যাত্রীরা নরসিংদীর ভৈরব বাসস্ট্যান্ড, জেলখানা মোড়, পাঁচদোনা মোড়ে টঙ্গী-গাজীপুর বাসস্ট্যান্ড, মাধবদী বাসস্ট্যান্ডসহ বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে আছে। তাদের কাছে অতিরিক্ত ভাড়া দাবি করছে চালক ও হেলপাররা। বাড়তি টাকা না দিলে বাসে যাত্রী নিচ্ছে না। এতে ভোগান্তিতে পড়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন যাত্রীরা।

সজল সাহা নামে এক যাত্রী জানান, ভেলানগর থেকে টঙ্গী যাবেন তিনি। উত্তরা পরিবহন ট্রান্সপোর্ট লিমিডেটের রপ্তানিমুখী একটি বাসের হেলপার তার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করছে। বেশি টাকা না দিতে চাওয়ায় বাসে তুলে আবার নামিয়ে দিয়েছে।

এ সময় ওই গাড়ির চালকের দুই সহযোগীর কাছে জানতে চাইলে তাদের দুর্ব্যবহার আরও প্রকাশ্যে আসে।

পাঁচদোনা মোড়ে টঙ্গী-গাজীপুর বাসস্ট্যান্ডে দেখা যায়, স্থানীয়দের দাপটে কাউন্টারে বসা টিকেট বিক্রেতারা কাউকে পরোয়া না করে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত বাড়া নিচ্ছে। রাত সাড়ে ৭টার দিকে উত্তরা পরিবহন ট্রান্সপোর্ট লিমিডেট রপ্তানি কাউন্টারে অভিযোগের বিষয়ে জানালে তারা বলেন, ‘হে বেশি নিচ্ছি, তাতে কি হইছে?’

এ সময় কাউন্টারে বসা মো. রনি নামে এক যুবক বেশ দাপটে কথা বলেন, ‘নিউজ করেন বা অভিযোগ দেন গিয়া। আমনের ভাড়া লাগতো না। ফেরত লইয়া যান।’ 

অতিরিক্ত ভাড়া নিচ্ছে ও যাত্রী হয়রানি করছে ট্রাফিক পুলিশের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে, নরসিংদীর ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক (প্রশাসন) মো. শাখাওয়াত হোসেন বলেন, ‘অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। ঈদের আগে থেকে আমরা কঠোর অবস্থানে রয়েছি। যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ার বিষয়ে আমাদের কাছে কোনো অভিযোগ নেই। তবুও আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।’ 

খন্দকার শাহিন/জোবাইদা/অমিয়/

কালিয়াকৈরে বাসচাপায় স্বামী-স্ত্রী নিহত

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৩৯ এএম
কালিয়াকৈরে বাসচাপায় স্বামী-স্ত্রী নিহত
খবরের কাগজ গ্রাফিকস

গাজীপুরে কালিয়াকৈরে মহাসড়ক পার হওয়ার সময় বাসের চাপায় স্বামী-স্ত্রী নিহত হয়েছেন।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১১টার দিকে বাইপাস এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

নিহতরা হলেন- উপজেলার বড়ইতলী গ্রামের আসিফ মাহমুদ (২৬) ও তার স্ত্রী তানজিম বকশী (২১)।

নাওজোড় হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাত হোসেন তাদের মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেন।

জানা গেছে, নিহত আসিফ ও তানজিম তাদের আত্মীয়ের গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান থেকে ফেরার পথে বাইপাস এলাকায় মহাসড়ক পার হওয়ার সময় টাঙ্গাইলগামী একটি বাস তাদের চাপা দেয়। এতে দুজন গুরুতর আহত হলে স্থানীয়রা তাদের সাভারে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। সেখানে নেওয়ার পথেই তাদের মৃত্যু হয়।

ওসি বলেন, স্বামী-স্ত্রী নিহতের ঘটনায় বাসটি জব্দ করা হয়েছে। তবে চালক পালিয়ে গেছে। মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তরসহ প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

ওসি জানান, ‘রাতে দুরপাল্লার মালামাল লোড করা ট্রাকগুলো খুব ধীরগতিতে কালিয়াকৈর ফ্লাইওভারে উঠে। দুরপাল্লার বাস ওই ধীরগতি ট্রাকের পেছন না গিয়ে ফ্লাইওভারের নিচ দিয়ে বেপরোয়া গতিতে যায়। ধারণা করা হচ্ছে, এ বেপরোয়া গতির জন্যই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।’

পলাশ প্রধান/সাদিয়া নাহার/অমিয়/

লক্ষ্মীপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত স্ত্রী, আশঙ্কাজনক স্বামী

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১০:১২ এএম
লক্ষ্মীপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত স্ত্রী, আশঙ্কাজনক স্বামী

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জের মেঘনা বাজার এলাকায় পূর্বশত্রুতার জেরে গভীর রাতে প্রতিপক্ষের দায়ের কোপে জ্যোৎস্না আক্তার (৩০) নামে এক নারী নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন তার স্বামী আলাউদ্দিন (৩৬)। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) রাত আড়াইটার দিকে নুরুল হকের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত ও আহত স্বামী-স্ত্রী দুজনের শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখমের চিহ্ন রয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। 

আহত আলাউদ্দিন মৃত শাহে আলমের ছেলে।

অভিযুক্তরা হলেন- একই এলাকার বকুলের বাপের বাড়ির আবদুর রবের ছেলে সিরাজ, মাহফুজ ও নিজাম। তারা সম্পর্কে আলাউদ্দিনের খালাতো ভাই।

আহত আলাউদ্দিনের মামা নুরুল হক ও স্বজনরা জানান, রমজান মাসে আলাউদ্দিনের বসতঘরের পাশের একটি পুকুরে ড্রেজিং করে মাটি নিয়ে যায় অভিযুক্ত সিরাজ। এরপর গেল সপ্তাহে ওই পুকুরে আবারও পানি নিষ্কাশনের জন্য সেচ পাম্প বসায় সিরাজ। এতে বাড়িঘর পুকুরে ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কায় বাধা দিলে আলাউদ্দিনের সঙ্গে সিরাজের কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয় সিরাজ।

এই বিরোধের জেরে রবিবার রাত ২টার দিকে আলাউদ্দিনের ঘরে হামলা চালায় সিরাজ, মাহফুজ ও নিজামসহ ১৫ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল। এ সময় দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আলাউদ্দিন ও তার স্ত্রীকে গুরুতর আহত করে। পরে স্থানীয়রা আহত স্বামী-স্ত্রীকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক জ্যোৎস্না বেগমকে মৃত ঘোষণা করেন। আলাউদ্দিনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. এ কে আজাদ জানান, হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে। আলাউদ্দিনের অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাদের শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখমের চিহ্ন রয়েছে।
 
লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুদ্দিন আনোয়ার খবরের কাগজকে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রফিকুল ইসলাম/জোবাইদা/অমিয়/

সাতক্ষীরায় নদীরক্ষা বাঁধে আবারও ভাঙ্গন

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১০:০৯ এএম
সাতক্ষীরায় নদীরক্ষা বাঁধে আবারও ভাঙ্গন
গাবুরায় নদীরক্ষা বাঁধে আবারও ভাঙন দেখা দিয়েছে। ছবি: খবরের কাগজ

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার দ্বীপ ইউনিয়ন গাবুরায় নদীরক্ষা বাঁধে আবারও ভাঙন দেখা দিয়েছে। এ ঘটনার তিনদিন অতিবাহিত হলেও এখনও পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ নেয়নি পানি উন্নয়ন বোর্ড। এতে নতুন করে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে এলাকাবাসী।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) ঈদের দিন সন্ধ্যায় গাবুরা ইউনিয়নের ৯নং সোরা গ্রামের বৈদ্যবাড়ি, গাজিবাড়ি ও মালিবাড়ি নামক স্থানে প্রায় ২০০ ফুট এলাকাজুড়ে ভাঙন দেখা দেয়। 

গাবুরা ইউনিয়নের ৯নং সোরা গ্রামের কবিরুল ইসলাম জানান, আমাদের ইউনিয়নে বর্তমানে নতুন বেড়িবাঁধ নির্মাণের জন্য মেগা প্রকল্পের কাজ চলমান। এরই মধ্যে কপোতাক্ষ নদের বৈদ্যবাড়ি, গাজিবাড়ি ও মালিবাড়ি এলাকায় বেড়িবাঁধ ভাঙন শুরু হয়েছে।

তিনি জানান, ওই এলাকায় ভাঙন রোধে এখনো কোনো জিওব্যাগ দেওয়া হয়নি। তিন স্থানে ভাঙনের পরিমাণ প্রায় ২০০ ফুট। ভাঙন ক্রমেই বাড়ছে। এ অবস্থা অব্যাহত থাকলে বেড়িবাঁধ সম্পূর্ণ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হতে পারে। এতে ঘরবাড়ি, কৃষিজমি ও মাছের ঘের সবকিছু ভেসে যাবে। 

এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ড-১ এর সেকশন অফিসার প্রিন্স রেজা জানান, ঈদের ছুটি থাকায় এখনো কাজ শুরু করা যায়নি। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানিয়েছি। নির্দেশনা পেলে দ্রুত ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ সংস্কারের কাজ শুরু হবে।

নাজমুল শাহাদাৎ/সাদিয়া নাহার/অমিয়/