ঢাকা ৫ আষাঢ় ১৪৩১, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪

উৎসবে আজ

প্রকাশ: ২৫ জানুয়ারি ২০২৪, ১২:০৫ পিএম
আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০১:৩৫ এএম
উৎসবে আজ

জাতীয় জাদুঘর (বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মিলনায়তন)

সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে ইরানের ‘নাম্বার টেন’, বেলা ১টায় রাশিয়ার ‘দ্য রেজ’, ৩টায় ভারতের ‘দ্য লাস্ট অনার’, ৫টায় গ্রিসের ‘মাইটি আফরিন:  ইন দ্য টাইম অব ফ্লাডস’ ও সন্ধ্যা ৭টায় ভারতের ‘আনসিন ঋত্বিক’।

জাতীয় জাদুঘর (সুফিয়া কামাল মিলনায়তন)
সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে রাশিয়ার ‘দেয়ার অ্যান্ড ব্যাক’, বেলা ১টায় মরক্কোর ‘জালালদিন’, ৩টায় তুরস্কের ‘হিউম্যানাস টিমব্রেস’, ভারতের ‘দ্য ড্রিমক্যাচার’,  বিকেল ৫টায় ভারতের ‘দ্য ফ্লাওয়ার’, সেনেগালের ‘দেনি চৌবাগা’। সন্ধ্যা ৭টায় ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোর ‘চিনি’, ভারতের ‘তীরে বেঁধো না’।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি (জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তন)
সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে চীনের ‘লস টু উইন’, বেলা ১টায় রাশিয়ার ‘দ্য লাইট’, ৩টায় ইরানের ‘লেদার জ্যাকেট ম্যান’,  ৫টায় বাংলাদেশের ‘লাভ আন্ডার দ্য ক্লাউডস’।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি (জাতীয় সংগীত, নৃত্য ও আবৃত্তি মিলনায়তন)
সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে বুলগেরিয়ার ‘দ্য টেসলা কেস’, ১টায় রোমানিয়া-বুলগেরিয়ার ‘মেন অব ডিডস’, ৩টায় চীনের ‘আই অ্যাম হোয়াট আই অ্যাম’ এবং বিকেল ৫টায় বাংলাদেশের ‘অ্যানিটিক কালেক্টর’, ‘দ্য ফটোগ্রাফ’, ‘ডাইনির বাঁশি’, ‘প্যাসেঞ্জার’, ‘সম্পর্ক’, ‘দ্য ট্র্যাপ অব দিস সোসাইটি’, ‘কত রঙ্গ দেখি দুনিয়ায়’, ‘টোকাই’।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি (জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তন, পঞ্চম তলা)
সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে চিলি-ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ‘নো ওয়ান’, ১টায় ফিলিপাইনের ‘ড্রিম টাউন’, ফ্রান্স-ইতালির ‘অ্যানাদার ওয়ার্ল্ড’, বিকেল ৫টায় কাতারের ‘প্লেসেস অব দ্য সোল’।

অলিয়ঁস ফ্রঁসেজ
সকাল ১০টায় ভারতের ‘শেষ পাতা’, বেলা ২টা ৩০ মিনিটে কিরঘিস্তানের ‘গডস গিফট’ বেলা ৪টা ৩০ মিনিটে ইরানের ‘নাম্বার টেন’।

জাহ্নবী

বাবুর কণ্ঠে আনন্দের গান 'প্রেমবতী'

প্রকাশ: ১৮ জুন ২০২৪, ০৫:৪৫ পিএম
আপডেট: ১৮ জুন ২০২৪, ০৫:৪৫ পিএম
বাবুর কণ্ঠে আনন্দের গান 'প্রেমবতী'
ফজলুর রহমান বাবু ও আনন্দ। ছবি : সংগৃহীত

দুই বছর আগে ফজলুর রহমান বাবু ও সালমার কণ্ঠে সাউন্ডটেকের ব্যানারে প্রকাশ হয় তারেক আনন্দের কথায় 'সখী' গান। 'সখী'র জনপ্রিয়তার রেশ ধরে একই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকে আসছে 'প্রেমবতী'। 

এবার দ্বৈত নয়, এ গানটি একক গেয়েছেন ফজলুর রহমান বাবু। আনন্দের এ গানের সুরকার খায়রুল ওয়াসী। সংগীতায়োজন করেছেন মিনহাজ জুয়েল। 

ফজলুর রহমান বাবু বলেন, ‘মিষ্টি কথার চমৎকার গান। আমি সাধারণত গানের কথা, সুর পছন্দ হলেই কণ্ঠ দিয়ে থাকি। আমার মনের মতো কথা, সুর। আশা করি ভালো লাগবে শ্রোতাদের।’

তারেক আনন্দ বলেন, ‘বাবু ভাইয়ের জন্য গান লিখতে গেলে ভেবে চিন্তে সুন্দর কথামালার গান লিখতে হয়। আমি চেষ্টা করেছি ভালো লেখার।’ 

খায়রুল ওয়াসী বলেন, ‘তারেক আনন্দ ভাইয়ের কথায় আমার নিজের বেশ কিছু গান আছে। অন্যশিল্পীদের জন্যও সুর করেছি। ফজলুর রহমান বাবু ভাই নাটক সিনেমায় যেমন জনপ্রিয়, গানেও তিনি সমান জনপ্রিয়। লিরিক হাতে পেয়েও ওনাকে চিন্তা করেই সুর করেছি। আশা করছি গানটি শ্রোতারা পছন্দ করবেন।’

১৮ জুন সাউন্ডটেকের ইউটিউব চ্যানেলে গানটি মিউজিক ভিডিও আকারে প্রকাশ হবে। মিউজিক ভিডিও নির্মাণ করেছেন এম এইচ রিজভী। মডেল হয়েছেন সুমনা আরফিন ও সাকিন আহমেদ।

সাংহাইতে শিকলবাহা’র ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার

প্রকাশ: ১৮ জুন ২০২৪, ০৪:০৭ পিএম
আপডেট: ১৮ জুন ২০২৪, ০৪:০৭ পিএম
সাংহাইতে শিকলবাহা’র ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার

‘শিকলবাহা’ সিনেমার কেন্দ্রীয় চরিত্র ফৌজিয়া করিম অনুর ঈদের সকালে ঘুম ভেঙেছে সাংহাই ক্রাউন প্লাজা হোটেলের রিসেপশনের ফোনে। একগুচ্ছ গোলাপ, একটি মুকুট আর একটি কার্ড এসেছে তার নামে। সেখানে লেখা- ‘তোমার এক নম্বর ভক্ত।’

রবিবার (১৬ জুন) রাতে সাংহাই ফিল্ম আর্ট সেন্টারে হয়ে গেল বাংলাদেশের নির্মাতা কামার আহমাদ সাইমনের ‘শিকলবাহা’ সিনেমার ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার। এশিয়ার বৃহত্তম চলচ্চিত্র উৎসব সাংহাইয়ের মূল প্রতিযোগিতায় এবার জায়গা পেয়েছে ছবিটি। আমন্ত্রণ পেয়ে সিনেমার সঙ্গে সেখানে গিয়ে হাজির হয়েছেন পরিচালক কামার আহমাদ সাইমন, প্রযোজক সারা আফরীন ও অভিনেত্রী ফৌজিয়া করিম অনু।

ঈদের আগের রাতে প্রিমিয়ার আর ঈদের সকালে গোলাপের তোড়া পেয়ে কেমন লাগল? জানতে চাইলে চীন থেকে অনু বলেন, ‘জীবনের প্রথম সিনেমার ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার, তাও সাংহাইয়ের মূল প্রতিযোগিতায়; হলভর্তি দর্শক। এমনিতেই রাতটা একটা ঘোরের মধ্যে কেটেছে, তারপর ঈদের সকালে এই গোলাপের তোড়া! এ অনুভূতি জানানোর ভাষা নেই আমার।’

প্রিমিয়ার শেষে পরিচালক কামার আহমাদ সাইমন, প্রযোজক সারা আফরীন এবং অভিনেত্রী ফৌজিয়া করিম অনু প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নেন। এ ছাড়াও তাদের একটি প্রেস কনফারেন্সে অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে। 

উল্লেখ্য, এ বছর ১০৫টি দেশ থেকে ৩ হাজার ৭ শতাধিক ছবির মধ্য থেকে বাছাই করা ১৪টি ছবি মনোনয়ন পায় সাংহাইয়ের ‘গোল্ডেন গবলেট’-এর মূল প্রতিযোগিতায়। সেগুলোর অন্যতম কামার আহমাদ সাইমনের ‘শিকলবাহা'। এর আগে গত শনিবার মূল প্রতিযোগিতার কুশলী হিসেবে চীনের প্রাচীনতম এই ইভেন্টের লাল গালিচায় পা রেখেছেন কামার, সারা এবং অনু।

ইউরোপের অন্যতম সফল চলচ্চিত্র প্রযোজনা সংস্থা জার্মানির উইডেম্যান ব্রোস এবং বাংলাদেশের স্টুডিও বিগিংয়ের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ছবি 'শিকলবাহা'। ২০১৪ সালে কানের 'লা ফ্যাব্রিক সিনেমা দ্যু মুন্দে' নির্বাচিত দশটির মধ্যে ছিল এই ছবির স্ক্রিপ্ট, তখন এর নাম ছিল 'শঙ্খধ্বণি'। এই ছবির জন্য পর পর দুই বছর বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসবের প্রতিযোগিতামূলক প্রেস্টিজ গ্রান্ট ওয়ার্ল্ড সিনেমা ফান্ডের জন্য নির্বাচিত হয়েছিলেন কামার। এ ছাড়াও গোতেবার্গ চলচ্চিত্র উৎসবের স্ক্রিপ্ট গ্রান্ট এবং জাতীয় চলচ্চিত্র অনুদান পেয়েছিল 'শিকলবাহা'।

যে ৩ কারণে ব্যর্থ হতে পারে ‘তুফান’

প্রকাশ: ১৭ জুন ২০২৪, ১০:৪৮ পিএম
আপডেট: ১৭ জুন ২০২৪, ১০:৪৮ পিএম
যে ৩ কারণে ব্যর্থ হতে পারে ‘তুফান’

সাফল্যের ইতিহাস লিখতেই ক্যামেরার পেছনে গিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন নির্মাতা রায়হান রাফি। তার সামনে ঢালিউড তারকা শাকিব খান, পেছনে একগুচ্ছ শক্তিমান প্রযোজক। ছবির নামের মতো তুফান বয়ে যাবে ইন্ডাস্ট্রিতে, কথা ছিল সে রকমই। তারপরও কতিপয় বাস্তবতা ব্যর্থ করে দিতেই পারে এই মহা আয়োজন। কী সেসব?

১. নির্মাণগত কারণ
‘তুফান’ ছবির টিজার ও গান দেখে যতদূর বোঝা যায়, তা থেকে মনে হয়েছে এতে আসলে নতুন কিছু দেখানো হচ্ছে না। বাজার চলতি সিনেমাগুলার অনেক দৃশ্য ও পরিস্থিতির ছায়া লক্ষ্য করা গেছে ছবিতে। এরই মধ্যে অনেকেই নির্দেশ করেছেন যে, বলিউডের ‘অ্যানিমেল’ ছবির কিছু দৃশ্য কমন পড়েছে এই ছবিতে। যা দেখে ধারণা করে নেওয়া যায়, একেবারে দৃশ্য থেকে দৃশ্য কপি করা না হলেও অনুকরণের আভাস রয়েছে ‘তুফান’-এর নির্মাণে। নতুন দৃশ্যে নতুন গল্প বলার অভিজ্ঞতা ঢালিউডের খুবই কম এবং যে কয়েকটি জায়গায় বলা হয়েছে, সেখানে সাফল্যের নজির খুব একটা দেখা যায়নি। সাম্প্রতিককালে বলিউডের যে সিনেমাগুলো বিপুল জনপ্রিয়তা পেয়েছে, সেই ছবিগুলোতে যে ধরনের গল্প ও দৃশ্য দেখানো হয়েছে, সেই ধরনের দৃশ্য ও গল্প দেখানো ঢাকার পক্ষে প্রায় অসম্ভব। উদাহরণ টেনে বলা যায়, ‘অ্যানিমেল’ ছবিতে তৃপ্তি দিমরির যৌনতার দৃশ্য ঢাকার পক্ষে, বিশেষত এই প্রযোজনা সংস্থাগুলোর পক্ষে দেখানো নানা কারণে অসম্ভব। দক্ষিণ ভারতের আরেক সফল ছবি ‘প্রেমালু’র মতো সহজ সরল গল্প বলার সাহস রায়হান রাফির পক্ষে দেখানো ঝুঁকিপূর্ণ। মোটকথা মোবাইল ফোনে সিনেমা দেখার বিপুল সুযোগের এই যুগে দর্শক এরই মধ্যে সারা পৃথিবীর বিভিন্ন রুচির সিনেমা নিজের ভাষায় উপভোগ করার অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। এ রকম সময়ে ‘তুফান’ বিক্রি করে মুনাফা বাড়িতে তোলা কঠিন একটি কাজ হবে। তবে নির্মাতাদের পুঁজি দুটি; এক, রায়হান রাফির নির্মাণ মুন্সিয়ানা, দুই, প্রযোজনা সংস্থার বাজারজাতকরণ কৌশল।

২. কৌশলগত কারণ
‘তুফান’ ছবিটি বাজারজাতকরণে এরই মধ্যে বিপুল, বিচিত্র ও বারবার ব্যবহৃত কৌশল অবলম্বন করা হয়েছে। এরই মধ্যে ভ্লগারদের মাধ্যমে বিপুল ইতিবাচক রিভিউ প্রচার করা হয়েছে। এভাবে এক শ্রেণির দর্শকের কাছে বার্তা পৌঁছে যাচ্ছে, পৌঁছে যাচ্ছে উস্কানি, দেখতে হবে তুফান, যেতে হবে প্রেক্ষাগৃহে। কিন্তু একই কৌশলে বারবার বাজারজাতকরণ বাজারের জন্য খুব একটি ভালো পদ্ধতি নয়। কারণ এরই মধ্যে বেশ কিছু ইউটিউব চ্যানেল সেই পুরনো অপপ্রচারকে পুঁজি করে কনটেন্ট প্রকাশ শুরু করেছে – তুফানের টিকিট না পেয়ে হলের বাইরে মারামারি হচ্ছে! ঈদের দিনে এ ধরনের কন্টেন্ট অত্যন্ত হাস্যকর বলে বিবেচিত হয়েছে। কারণ যে সময়ে এ ধরনের কনটেন্ট আপলোড হয়েছে তখনও মানুষ কোরবানি শেষ করতে পারেনি। ঈদে শাকিব খানের সিনেমা দেখতে যাওয়ার চেয়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ যখন শেষ হয়নি, তখন এমন কনটেন্ট যে মিথ্যা প্রচার, তা যে কেউ বুঝতে পারবে। এত কৌশল অবলম্বনের পরও যদি একটি গোষ্ঠী সিনেমা হলে পৌঁছায় আর সিনেমাটি আশানুরূপ না হয়, তাহলে পরবর্তীতে এই দর্শকদের কাছ থেকেই নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া ছড়িয়ে পড়বে। প্রেক্ষাগৃহে দুরকম দর্শক যান। এক, প্রচারণায় আস্থা রাখা দর্শক, যারা দ্বিতীয়বার প্রিয়জনদের নিয়ে ছবি দেখতে যান। দুই, বন্ধু ও পরিচিতদের কাছ থেকে প্রশংসা শুনে হলে যাওয়া দর্শক। প্রথমবার ছবিটি উপভোগ করে ফেরা দর্শকদের কাছ থেকে যদি শোনা যায়, ‘তুফান’-এ দেখার মতো সে রকম কিছু নেই, তাহলে পরের দলটি ছবি দেখার উৎসাহ হারাতে পারেন। ঘটতে পারে আরো একটি ঘটনা। সেটি হচ্ছে, বিজ্ঞাপন এবং বাজারজাতকরণ কৌশলে ছবিকে অতি মূল্যায়িত করা হচ্ছে। এতে এই সিনেমা নিয়ে মানুষের প্রত্যাশার পারদ অনেক উঁচুতে পৌঁছে গেছে। স্বাভাবিক একটি সিনেমা দেখার প্রত্যাশা নিয়ে প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে দর্শক যে অভিজ্ঞতা নিয়ে ফিরতেন, এ ছবির ক্ষেত্রে তা হবে না। তারা হলে যাবেন অতি উচ্চ আশা নিয়ে। প্রত্যাশা পূরণ করা যায়, অতি উচ্চাশা পূরাবার নয়। এই দিক থেকেও ছবিটির ব্যর্থ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। 

৩. প্রকৃতিগত কারণ 
জুন মাসের এমন একটি সময়ে তুফান ছবিটি মুক্তি পেয়েছে যখন প্রকৃতি তুফানের রূপ ধারণ করেছে। অতিরিক্ত গরমে মানুষ এরই মধ্যে নাকাল হয়ে পড়েছেন। দেশের বিভিন্ন জায়গায় তাপমাত্রা ৩১-৩৩ ছাড়িয়েছে। অনুভূত হচ্ছে আরও বেশি। কোনো কোনো অঞ্চলের গরম অসহনীয় পর্যায়ে পৌঁছেছে। গরমে অস্থির মানুষ প্রেক্ষাগৃহে দুই-আড়াই ঘণ্টা বসে সিনেমা দেখতে পারবে কি না তা নিয়ে সন্দেহ দেখা দিয়েছে। ঢাকার মাল্টিপ্লেক্সগুলো বাদ দিলে যে ১২০ সিনেমা হলে ‘তুফান’ মুক্তি পেয়েছে, তার কোনোটিই শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত নয়। এটিও হতে পারে তুফান ব্যর্থ হওয়ার অন্যতম কারণ।

পরিশেষে:
যদিও ‘তুফান’ সফল হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। কারণ এ ছবি নির্মাণে বেশ কিছু অনন্য কৌশল অবলম্বন করা হয়েছে। যেমন অভিনেত্রী হিসেবে নেওয়া হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের মিমি চক্রবর্তীকে। শাকিব একা অনেক সিনেমা করলেও তাকে দেখিয়ে ছবিকে পুরোপুরি সফল করা কঠিন। তাই এতে যুক্ত করা হয়েছে চঞ্চল চৌধুরীর মতো বড় তারকাকে, যার ক্যারিয়ারে ব্যর্থতার সংখ্যা গড়ে শূন্য। ছবিতে সঙ্গীতায়োজনে হাত লাগিয়েছেন তরুণ মিউজিশিয়ান প্রীতম হাসান। ছবির মার্কেটিংয়ে নানা ধরনের কৌশল অবলম্বন করা হয়েছে। সব মিলে এই ছবির জন্য ব্যর্থ হওয়া অত্যন্ত কঠিন। কিন্তু ওপরের বিষয়গুলো ছবিটিকে ব্যর্থ করে দিতেও পারে। সেই ব্যর্থতার খবর হয়তো দর্শক পর্যন্ত পৌঁছাবে না, সেগুলো জানবে শুধু প্রযোজক। কারণ ব্যর্থ হওয়ার জন্য এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানটি বাজারে আসেনি। অন্তত ব্যর্থতার তকমাটি তারা গ্রহণ করতে চাইবেন না।

মোবাইল ফোনে দেখা যাবে ‘ভাগের মানুষ’

প্রকাশ: ১৬ জুন ২০২৪, ০৪:২০ পিএম
আপডেট: ১৬ জুন ২০২৪, ০৪:২০ পিএম
মোবাইল ফোনে দেখা যাবে ‘ভাগের মানুষ’
ভাগের মানুষ নাটকের একটি মুহূর্ত

শুরুতে ঢাকা পরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, দুই দেশের মঞ্চেই সাড়া ফেলেছিল নাটকটি। ১৯৯৭ সাল থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত দেশ-বিদেশে বহুবার মঞ্চস্থ হয়েছে। এবার পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে ওটিটি প্লাটফর্মে জায়গা করে নিয়েছে এটি। এখন মোবাইল ফোনেও দেখা যাবে নাট্যদল সময়ের জনপ্রিয় নাটক ‘ভাগের মানুষ’।

ঈদুল আজহার আগে গত শুক্রবার থেকে চ্যানেল আইয়ের ওটিটি প্ল্যাটফর্ম আইস্ক্রিনে উঠেছে  ‘ভাগের মানুষ’। 

উপমহাদেশের প্রখ্যাত লেখক সাদত হাসান মান্টোর ছোটগল্প ‘টোবাটেক সিং’ অবলম্বনে ‘ভাগের মানুষ’-এর নাট্যরূপ দিয়েছিলেন প্রয়াত খ্যাতিমান নাট্যকার মান্নান হীরা এবং নির্দেশনা দিয়েছিলেন আরেক কিংবদন্তিতুল্য নাট্যজন আলী যাকের। তার সহযোগী নির্দেশক ছিলেন মো. আকতারুজ্জামান। 

চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর বলেন, ‘মঞ্চনাটককে দর্শকের কাছে নিয়ে যাওয়ার জন্য মঞ্চের মানুষেরা যা করছেন, আমরা তাদের সঙ্গে মিলে সেই কাজটিই করতে চাই। সে জন্যই মঞ্চনাটককে ওটিটিতে তুলেছি।’

‘ভাগের মানুষ’ নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করছেন আকতারুজ্জামান, মানসুরা আক্তার লাভলী, রেজাউর রহমান, ফখরুল ইসলাম মিঠু, তোফায়েল সরকার, পাভেল ইসলাম, সুনীতা বড়ুয়া, আলমগীর হোসেন, মাহমুদুল আলম, ইয়ামিন জুয়েল, সাইফুল বাবু, সানি, মো. আনোয়ার হোসেন, চন্দন বোস, সাবিহা সুলতানা শিমু, সাঈফ, রাকিব আল হাসান ও ফাতিকা বিনতে ইফতেখার মৈত্রী প্রমুখ।

আলোক পরিকল্পনা করেছেন ঠান্ডু রায়হান, পোশাক পরিকল্পনা করেছেন মানসুরা আক্তার লাভলী, কণ্ঠশিল্পী সুনীতা বড়ুয়া এবং রূপসজ্জা করেছেন মোহাম্মদ আলী বাবুল।

এতে দেখানো হয়েছে ১৯৪৭ সালের দেশভাগের কয়েক বছর পরের ঘটনা। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের উত্তেজনা তখনো কমেনি, সাম্প্রদায়িক বিষবাস্পের তেজ তখনও নিভে যায়নি। ভৌগোলিক সীমায় মানুষকে বেঁধে একধরনের নাগরিক স্বস্তি দেওয়ার প্রয়াস শুরু হয়েছে মাত্র। অথচ হতাশা, ক্ষোভ, যন্ত্রণা, প্রিয়জন হারানোর বেদনা তখনও জ্বলজ্বল করছে মানুষের বুকে। মানুষের ভালোবাসা, বন্ধুত্ব, প্রেমকে দ্বিখণ্ডিত করে উপমহাদেশের এই মাটিতে রচিত হয় ভারত ও পাকিস্তান নামের আলাদা দুটি রাষ্ট্র। অথচ দেশভাগ মানেই তো মানুষের ভাগ, মানচিত্রের ভাগ, ভূগোলের ভাগ। শুরু হয় দুদেশের মধ্যে বিনিময়-বিনিময় খেলা। মানুষের বিনিময়ে মানুষ, ধর্মের বিনিময়ে ধর্ম, পাগলের বিনময়ে পাগল। এভাবেই এগিয়ে যায় ‘ভাগের মানুষ’ নাটকের গল্প।

আইস্ক্রিনে মাসে ৮৯ টাকা, ছয় মাসে ২৬৯ টাকা এবং বছরে ৪৬৯ টাকা খরচ করে নানা রকম কন্টেন্ট উপভোগ করা যায়। 

নাট্যজন মামুনুর রশীদ বলেন, ‘ওটিটির সুবিধা হলো যখন খুশি তখন দেখা যায়। এই প্ল্যাটফর্ম যতদিন টিকে থাকবে, ততদিন পর্যন্ত এই প্রোগ্রামগুলো দেখতে পাব। আমরা চাই, ইতিহাসটা এখানে থাকুক। এর মধ্য দিয়ে আমরা যদি কিছু দর্শক তৈরি করতে পারি। যদি প্রযোজনা ভালো হয়, তাহলে যে সুবিধাটা হবে, হয়তো যে বাড়িতে বসে দেখছে, তার ইচ্ছে করবে মঞ্চে গিয়ে নাটকটি দেখি।’

বিটিভিতে ঈদের ৪র্থ দিন ইকবাল খন্দকারের ‘ঈদ গান আলাপন’

প্রকাশ: ১৫ জুন ২০২৪, ০১:৩৪ পিএম
আপডেট: ১৫ জুন ২০২৪, ০১:৩৪ পিএম
বিটিভিতে ঈদের ৪র্থ দিন ইকবাল খন্দকারের ‘ঈদ গান আলাপন’

বিটিভির নিয়মিত অনুষ্ঠান ‘গান আলাপন’। তবে ঈদ আঙ্গিকে নির্মাণ করা হয়েছে ‘ঈদ গান আলাপন’। ইকবাল খন্দকারের গ্রন্থনা ও উপস্থাপনায় নির্মিত এই অনুষ্ঠানের বিশেষ এই পর্বে অতিথি হয়ে এসেছেন জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী প্রতীক হাসান ও তামান্না প্রমি। তারা কথা বলেছেন নিজেদের গাওয়া শ্রোতানন্দিত কিছু গান এবং গানগুলোর ভিডিও তথা মিউজিক ভিডিও সম্পর্কে।

বিশেষ করে তারা প্রকাশ করেছেন গানগুলো তৈরি ও ভিডিওগুলো নির্মাণের পেছনের গল্প। আর তাদের আলাপচারিতার ফাঁকে ফাঁকে থাকছে সেইসব ভিডিওর সম্প্রচার। সৈয়দা ফারহানা হাসানের প্রযোজনায়  ‘গান আলাপন’ এর বিশেষ এই পর্বটি বিটিভিতে প্রচার হবে ঈদের ৪র্থ  দিন (বৃহস্পতিবার) দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটে।

অনুষ্ঠানটি সম্পর্কে ইকবাল খন্দকার বলেন ‘আজকাল শ্রুতিমধুর গানের পাশাপাশি গুরুত্ব পাচ্ছে গল্পনির্ভর ভিডিও। আর সেইসব ভিডিও নিয়েই নির্মিত হয়েছে আমাদের এবারের পর্ব। আশা করি দর্শকদের ভালো লাগবে।’ আর প্রযোজক সৈয়দা ফারহানা হাসান বলেন ‘বিটিভিতে সংগীতবিষয়ক নানারকম অনুষ্ঠান প্রচার হয়ে থাকে। তবে মিউজিক ভিডিও নিয়ে অনুষ্ঠান এর আগে কখনোই হয়নি। তাই ইতোমধ্যে অনুষ্ঠানটি দর্শকের পছন্দের তালিকায় স্থান করে নিতে সক্ষম হয়েছে। আশা করছি জনপ্রিয় দুই শিল্পীর গানের ভিডিও নিয়ে নির্মিত এই পর্বটিও তারা দারুণভাবে উপভোগ করবেন।’

 কলি