ঢাকা ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, রোববার, ২৬ মে ২০২৪

কলকাতার পাঁচে চার

প্রকাশ: ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:১১ পিএম
কলকাতার পাঁচে চার
ছবি: সংগৃহীত

উড়তে থাকা কলকাতা নাইট রাইডার্সকে মাটিয়ে নামিয়েছিল চেন্নাই কিংস। হ্যাটট্রিক জয়ে আইপিএলের ১৭তম আসর শুরু করা শাহরুখ খানের দলকে প্রথম হারের স্বাদ দিয়েছিল মোস্তাফিজুর রহমানের দল। সেই ধাক্কা সামলে ফের জয়ের ধারায় ফিরেছে কলকাতা। লক্ষ্ণৌ সুপার জায়ান্টসকে হারিয়েছে ৮ উইকেট ব্যবধানে। টুর্নামেন্টে পাঁচ ম্যাচে এটা চতুর্থ জয় তাদের।

আজ রবিবার (১৪ এপ্রিল) কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে দিনের প্রথম ম্যাচে ২০ ওভার ব্যাটিং করে ৭ উইকেটে ১৬১ রানের লড়াকু পুঁজি পায় লক্ষ্ণৌ। কিন্তু বোলিংয়ে তাদের লড়াইয়ের সুযোগ দেননি ফিলিপ সল্ট এবং শ্রেয়াস আইয়ার। দুজনের ১২০ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে হেসেখেলে জয়ের বন্দরে নোঙর করে কলকাতা। সেটাও ২৬ বল হাতে রেখে।

লক্ষ্য তাড়ায় দ্রুত রান তোলার নেশায় প্রথম পাওয়াপ্লেতেই জোড়া উইকেট হারায় কলকাতা। বিধ্বংসী ওপেনার সুনীল নারিনকে (৬) অল্পতেই থামান মহসিন খান। তার বলেই পতন হয় রাঘুবংশীর উইকেট। তিনি আউট হন ৭ রানে। এরপর সল্ট এবং শ্রেয়াসের ব্যাটিং তাণ্ডবে দুর্বিষহ হয়ে ওঠে লক্ষ্ণৌর বোলারদের জীবন। ৪৭ বলে ১৪ চার ও ৩ ছক্কায় ৮৯ রানে অপরাজিত ছিলেন সল্ট।

কলকাতা অধিনায়ক আইয়ার অপরাজিত ছিলেন ৩৮ রানে। তার ৩৮ বলের ইনিংসে ছিল ৬টি চারের মার। ম্যাচসেরার পুরস্কার উঠেছে সল্টের হাতে। এই জয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানেই রয়ে গেছে কলকাতা। ৫ ম্যাচে তাদের অর্জন ৮ পয়েন্ট। ১০ দলের টেবিলে লক্ষ্ণৌর অবস্থান পঞ্চম স্থানে। ৬ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট তাদের।

আইপিএল ফাইনাল টস জিতে ব্যাটিংয়ে সানরাইজার্স

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ০৮:০০ পিএম
টস জিতে ব্যাটিংয়ে সানরাইজার্স
ছবি : সংগৃহীত

কলকাতা নাইট রাইডার্সের তৃতীয়, নাকি সানরাইজার্স হায়দরাবাদের দ্বিতীয় শিরোপা- এই লক্ষ্য নিয়ে চেন্নাইয়ে চিদাম্বরম স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সানরাইজার্স। 

কলকাতা এর আগে ২০১২ ও ২০১৪ সালে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। সানরাইজার্স চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ২০১৬ সালে। কলকাতার দু'বারই সাকিব আল হাসান খেলেছিলেন।

অপরদিকে সানরাইজার্সের প্রথম ও এখন পর্যন্ত একমাত্র চ্যাম্পিয়নশিপে মোস্তাফিজুর রহমানের ভূমিকা ছিল খুব বেশি। সেই আসরে তিনি ইমার্জিং খেলোয়াড়ের পুরস্কারও পেয়েছিলেন। 

পিসিবির দাবি সহ-অধিনায়কের প্রস্তাব কাউকে দেওয়া হয়নি

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ০৬:১৪ পিএম
সহ-অধিনায়কের প্রস্তাব কাউকে দেওয়া হয়নি
ছবি : সংগৃহীত

সবকিছু আগের মতো থাকলে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের নেতৃত্বে থাকার কথা ছিল শাহিন শাহ আফ্রিদি। ওয়ানডে বিশ্বকাপে ব্যর্থতার দায় নিয়ে বাবর আজম অধিনায়কত্ব ছাড়ার পর সক্ষিপ্ত ফরম্যাটে অধিনায়কত্ব পান আফ্রিদি। কিন্তু প্রথম সিরিজেই নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ভরাডুবির পর তার ওপর আস্থা হারিয়ে ফেলে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। সাদা বলে পুনরায় অধিনায়ক করা হয় বাবর আজমকে।

বাবরের নেতৃত্বেই যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে বিশ্বকাপ খেলবে পাকিস্তান। এর মাঝেই কথা ছড়িয়েছে বিশ্বকাপে সহ-অধিনায়ক হওয়ার প্রস্তাব দেওয়ার পরও তা নিতে অস্বীকৃতি জানান শাহিন।

ক্রিকেটবিষয়ক নির্ভরযোগ্য বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম এই খবর জানিয়েছিল। যদিও আজ এক বিবৃতিতে শাহিনকে সহ-অধিনায়ক করার প্রস্তাবের খবরটি নাকচ করেছে পিসিবি।

বিবৃতিতে পিসিবি বলেছে, ‘নির্বাচকদের আলোচনার সময় সহ-অধিনায়কত্ব নিয়ে কথা হয়েছে। তবে কাউকে সহ-অধিনায়কের দায়িত্ব দেওয়া হবে না, সে বিষয়ে সবাই একমত ছিলেন। কাউকে কোনো প্রস্তাব দেওয়া হয়নি। দল পুরোপুরি ঐক্যবদ্ধ, প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং যুক্তরাজ্যে ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচগুলো খেলতে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে।’

বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবে পাকিস্তান বর্তমানে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৪ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলছে। 

ওয়ালটন-বিএসপিএ স্পোর্টস কার্নিভাল বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদ মজিবুর রানার আপ চঞ্চল

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ০৩:৫৯ পিএম
বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদ মজিবুর রানার আপ চঞ্চল
ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশ স্পোর্টস প্রেস অ্যাসোসিয়েশনের (বিএসপিএ) বার্ষিক আন্তঃক্রীড়া উৎসব ‘ওয়ালটন-বিএসপিএ স্পোর্টস কার্নিভাল-২০২৪’ এর সমাপনী অনুষ্ঠান রবিবার বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন ভবনের ডাচ বাংলা ব্যাংক অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এবার ৭টি ডিসিপ্লিনের ১৩টি ইভেন্টে শতাধিক বিএসপিএ সদস্য অংশ নেন। প্রতিবারের মতো এবারও সেরা খেলোয়াড়দের মধ্য থেকে বেছে নেওয়া হয়েছে বিএসপিএ স্পোর্টস ম্যান অব দ্য ইয়ার ২০২৪। এই পুরস্কার জিতেছেন দৈনিক স্পষ্টবাদীর মজিবুর রহমান। তার হাতে তুলে দেওয়া হয় আব্দুল মান্নান লাডু ট্রফি ও অর্থ পুরস্কার। প্রথম রানারআপ হয়েছেন দৈনিক খবরের কাগজের মাহমুদুন্নবী চঞ্চল এবং দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছেন দৈনিক জনকণ্ঠের রুমেল খান।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার ডন ও সিনিয়র ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর রবিউল ইসলাম মিল্টন।

এছাড়া জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কারপ্রাপ্ত ফুটবলার আব্দুল গাফফার ও জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু উপস্থিত ছিলেন। বিএসপিএ সাধারণ সম্পাদক মো. সামন হোসেনের সঞ্চালনায় এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিএসপিএ সভাপতি রেজওয়ান উজ জামান রাজিব।

৭০০ উইকেট ও ১৪০০০ রানের রেকর্ড একমাত্র সাকিবের

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ১১:৩৪ এএম
৭০০ উইকেট ও ১৪০০০ রানের রেকর্ড একমাত্র সাকিবের
ছবি : সংগৃহীত

সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে যুক্তরাষ্ট্রকে ১০ উইকেটে হারিয়ে হোয়াইটয়াশ এড়িয়েছে বাংলাদেশ দল। সে ম্যাচে অনন্য এক কীর্তি গড়েছেন সাকিব আল হাসান। কাল যুক্তরাষ্ট্রের ওপেনার আন্দ্রেস গাউসের উইকেট নিয়ে ৪৬ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন সাকিব আল হাসান। সেই উইকেট লাভের মাধ্যমে একটি কীর্তিও গড়েছেন তিনি। সেই উইকেট লাভের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শিকার করেছেন ৭০০তম উইকেট।

৭০০ উইকেট নেওয়ার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাকিবের আছে সব সংস্করণ মিলিয়ে ১৪ হাজারেরও বেশি রান। একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে এই ডাবল মাইলফলক স্পর্শ করেছেন এই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

তিন সংস্করণ মিলিয়ে বাংলাদেশের প্রথম বোলার হিসেবে ৭০০ উইকেট নেওয়া সাকিব ক্রিকেটবিশ্বে ১৭তম বোলার হিসেবে এই ক্লাবে প্রবেশ করেছেন। স্পিনারদের মধ্যে সপ্তম, তবে বাঁহাতি স্পিনার হিসেবে সাকিব দ্বিতীয়। বাঁহাতি স্পিনারদে মধ্যে তার আগে এই কীর্তি গড়েছেন শুধুই ড্যানিয়েল ভেট্টরি। তার ঝুলিতে থাকা ৭০৫টি উইকেট টপকে যাওয়া সহজ ব্যাপার এখন সাকিবের জন্য। 

ওয়ানডেতে সাকিবের শিকার ৩১৭ উইকেট, টেস্টে ২৩৭ ও টি-টোয়েন্টিতে ১৪৬। ওয়ানডেতে সাকিবের রান ৭৫৭০, টেস্টে ৪৫০৫ ও টি-টোয়েন্টিতে রান করেছেন ২৪৪০।

বার্নাব্যুতে ক্রুসের আবেগঘন বিদায়

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ১১:০৩ এএম
বার্নাব্যুতে ক্রুসের আবেগঘন বিদায়
ছবি : সংগৃহীত

গত সপ্তাহে টনি ক্রস ঘোষণা দিয়েছিলেন এই মৌসুম শেষে ইতি টানতে যাচ্ছেন রিয়াল মাদ্রিদ অধ্যায়ের আর ইউরো শেষে নিজের গোট ফুটবল ক্যারিয়ারের।। এমন ঘোষণার পর স্বাভাবিকভাবেই রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে মাদ্রিদের ম্যাচ নিয়ে আগ্রহের কমতি ছিল না সমর্থকদের মাঝে। কেননা এটিই হতে যাচ্ছে রিয়ালের জার্সিতে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ক্রুসের শেষ ম্যাচ।

ঘরের মাঠে ক্রুসের বিদায়টা অনেক আবেগপ্রবণ হওয়ার পাশাপাশি তা স্মরণীয় করে রাখতে চাইবে ক্লাব ও ক্লাবের খেলোয়াড়রা এটা ছিল অনুমেয়।

গার্ড অব অনার থেকে শুরু করে শূন্যে ছুড়ে অভিবাদন জানানো সবই পালন করে স্মরণ করে রাখা হয়েছে ক্রুসের বিদায়। গেল এক দশক ধরে রিয়ালের মাঝমাঠের দায়িত্ব দক্ষতার সঙ্গে সামলে নিয়েছিলেন এই জার্মান ফুটবলার। ম্যাচ শেষে রিয়াল কোচ কার্লো আনচেলত্তি এই বিদায় নিয়ে বলেন, ‘বার্নাব্যু টনি ক্রুসকে সেভাবে বিদায় দিয়েছে, যা তার প্রাপ্য।’

রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে ম্যাচটিতে গ্যালারিতে সমর্থকরা তার নাম ধরে বারবার চিৎকার করেছে। মাঠে নামার সময় গার্ড অব অনার দিয়েছেন দুই দলের খেলোয়াড়েরা। এ সময় রিয়ালের সব খেলোয়াড়দের গায়ে ছিল ক্রুস লেখা ৮ নম্বর জার্সি। মাঠের দক্ষিণ পাশে লাগানো ছিল ক্রুসের ছবি আঁকা বিশাল এক ব্যানার। যেখানে উল্লেখ করা ছিল রিয়ালের হয়ে ক্রুসের ২২টি ট্রফি জেতার কথাও। তার ঠিক পাশেই আরেকটি ব্যানারে লেখা ছিল, ‘ধন্যবাদ তোমাকে, কিংবদন্তি।’

ম্যাচের ৮৭তম মিনিটে তাকে তুলে নেওয়ার সময় আবারও দেখা যায় একই দৃশ্যের। মাঠে ও ডাগআউটে থাকা দুই দলের খেলোয়াড়রা তাকে হাততালি দিয়ে বিদায় জানান। সেই বিদায়ের জবাব ক্রুসও দেন হাততালি দিয়ে। মাঠে ছেড়ে সন্তানদের কাছে যাওয়ার পর সবচেয়ে আবেগপ্রবণ দৃশ্যটি দেখা যায়।  অঝোরে কাঁদতে থাকা মেয়েকে জড়িয়ে ধরে নিজেও কেঁদে দেন ক্রুস। পরে তিনি বলেন, ‘আমার সন্তানদের প্রতিক্রিয়া আমাকে ভেঙেচুরে দিয়েছে। আমি শুধু বলতে পারি, রিয়াল মাদ্রিদ।’

প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে ক্রুস আরও বলেছেন, ‘বিদায় বলাটা সহজ নয়। আমি রিয়াল মাদ্রিদকে ধন্যবাদ দিতে চাই। আমি এখানে আমার ১০ বছর উপভোগ করেছি। রিয়াল মাদ্রিদ আমার ঘর।’ 

বার্নাব্যুর যাত্রা শেষ হলেও রিয়ালের জার্সিতে পথচলা শেষ হয়নি ক্রুসের। ওয়েম্বলিতে আগামী ১ জুন রাতে চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের মুখোমুখি হবে রিয়াল। সেই ম্যাচ খেলে তুলে রাখবেন তিনি রিয়ালের জার্সি।