ঢাকা ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

শিরোপা নিষ্পত্তির ম্যাচে অনিশ্চিয়তা!

প্রকাশ: ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ১০:১০ এএম
শিরোপা নিষ্পত্তির ম্যাচে অনিশ্চিয়তা!
ছবি : সংগৃহীত

প্রিমিয়ার লিগ হকির শেষ দিন শুক্রবার (১৯ এপ্রিল)। দেড় মাসের মাঠের লড়াই শেষে শিরোপার নিষ্পত্তি হবে আজ লিগের শেষ ম্যাচে। যে ম্যাচে মুখোমুখি হবে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনী ও মোহামেডান। কিন্তু আদৌ এই ম্যাচটি হবে কি না, সেটাই এখন সবচেয়ে বড় প্রশ্ন। কারণ হকি ফেডারেশনের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ এনে শিরোপানির্ধারণী ম্যাচটিতে অংশ নেওয়া থেকে বিরত থাকার হুমকি দিয়ে রেখেছে ঐতিহ্যবাহী মোহামেডান।

লিগ টেবিলের শীর্ষে মোহামেডান। নিজেদের শেষ ম্যাচে আবাহনীকে হারাতে পারলেই চ্যাম্পিয়নের মুকুট ফিরে পাবে তারাই। কিন্তু নিজেদের ক্লাব টেন্টে বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন করে লিগজুড়েই নানা অবিচারের শিকার হওয়ার দাবি করেছে মোহামেডান। বিভিন্ন ম্যাচের কিছু ঘটনাকে উদাহরণ হিসেবে তুলে ধরে ক্লাবটির কর্মকর্তা সারওয়ার হোসেন বলেন, ‘লিগজুড়েই আমরা অনেক ধরনের সূক্ষ্ম কারুচুপি, সূক্ষ্ম প্রতারণার শিকার হয়েছি। ফেডারেশনকে বিভিন্ন সময়ে এসব বিষয়ে অবহিত করলেও তারা কোনো প্রতিকার করেনি।’

মোহামেডানের এই মুহূর্তের একমাত্র দাবি কার্ডসংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞার কারণে আবাহনীর বিপক্ষে ম্যাচে নিষিদ্ধ হওয়া রাসেল মাহমুদ জিমির শাস্তি প্রত্যাহার করা।  লিগের বাইলজ অনুযায়ী একজন খেলোয়াড় তিনটি হলুদ কার্ড পেলে পরের এক ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ হবেন। গত ১৬ এপ্রিল ঊষা ক্রীড়াচক্রের বিপক্ষে ৬-৫ গোলে জেতা ম্যাচে  লিগে তৃতীয় বারের মতো হলুদ কার্ড দেখেন মোহামেডান অধিনায়ক জিমি। ফলে আবাহনী ম্যাচে তিনি নিষেধাজ্ঞার খড়গে পড়েন। 

ঊষার বিপক্ষে ম্যাচ শেষে জিমির নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি মোহামেডানকে চিঠি দিয়ে অবহিত করে ফেডারেশন। কিন্তু মোহামেডানের দাবি- বাইলজ অনুযায়ী জিমির দ্বিতীয় হলুদ কার্ডের পর ফেডারেশন তাদের চিঠির মাধ্যমে সতর্ক করেনি। লিগ কমিটির বিরুদ্ধে বাইলজ পুরোপুরি অনুসরণ না করার অভিযোগ এনেছে ক্লাবটি। গত বুধবার এক চিঠিতে জিমির নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নিতে ফেডারেশনকে চিঠিও দেয় তারা। তবে সেদিনই  হকি  ফেডারেশন মোহামেডানের  চিঠির জবাব দেয়। চিঠিতে  তারা  লিখেছে, ‘রাসেল মাহমুদ জিমি চলতি লিগে ৪২ ও ৬৩ নম্বর ম্যাচে দুটি হলুদ কার্ড পাওয়ায় মৌখিকভাবে সতর্ক করা হয়। পরবর্তী সময় ৬৬ নম্বর ম্যাচেও সে একটি হলুদ কার্ড প্রাপ্ত হওয়ায় মোট তিনটি কার্ড প্রাপ্ত হয়। তিনটি ম্যাচের ম্যাচ রিপোর্ট শিটে আপনার ক্লাবের ম্যানেজার সব কিছু বুঝে অবগত হয়ে সাক্ষাৎ করেছেন।’ কিন্তু মোহামেডান পাল্টা আরেকটি চিঠি দিয়ে ফেডারেশনকে বলেছে, ম্যানেজার সাক্ষাৎ করেছে ম্যাচের আগে। ম্যাচের শেষে নয়। এসব নিয়েই পরিস্থিতি এখন বেশ ঘোলাটে। যেখানে সবাই অপেক্ষায় রোমাঞ্চকর এক ম্যাচ দেখার, সেখানে ম্যাচটাই ভেস্তে যাওয়ার উপক্রম। মোহামেডান কর্মকর্তা সারওয়ার হোসেন সরাসরি বলে দিয়েছেন, ‘যদি আমাদের ন্যায্য দাবি না মানে, তাহলে আমরা খেলায় অংশ নেওয়ার থেকে বিরতি থাকব।’ এমনকি মোহামেডান আর হকিতে থাকবে কি না, সে নিয়ে চিন্তা করবেন বলেও জানিয়েছেন ক্লাবটির কর্তারা। দলটির ম্যানেজার আরিফুল হক প্রিন্স তো সরাসরি বলেছেন, ‘জিমির কার্ডটি পরিকল্পিত।’ সারওয়ারের দাবি, ‘নির্দিষ্ট দুটি ক্লাবকে সুবিধা দিতে জিমিকে অন্যায়ভাবে তৃতীয় হলুদ কার্ডটা (ঊষার বিপক্ষে) দেওয়া হয়েছে।’ মোহামেডান ম্যানেজার প্রিন্স ফেডারেশন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকও। এমন চেয়ারে থেকেও তিনি ফেডারেশন সাধারণ সম্পাদক মমিনুল হক সাঈদের দিকে আঙুল তুলে বলেন, ‘সব সিদ্ধান্তই তিনি নেন একা, রাতের আঁধারে।’

সাঈদ অবশ্য এসব অভিযোগ অস্বীকার করেন। জিমির নিষেধাজ্ঞা নিয়ে মোহামেডানের দাবি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সবকিছু বাইলজ মেনেই হয়েছে। মোহামেডান যদি ম্যাচে অংশগ্রহণ থেকে বিরতি থাকে, সে ক্ষেত্রে বাইলজ অনুযায়ীই কাজ হবে। আম্পায়ার মাঠে যাবে। তিনি তার হুইসেল বাজাবেন। প্রতিপক্ষ নিয়ম অনুযায়ী পয়েন্ট পাবে। সে ক্ষেত্রে হকি ফেডারেশনের কোনো দায়বদ্ধতা নেই।’

জিমি দ্বিতীয় হলুদ কার্ড পাওয়ার পর ফেডারেশন চিঠি দেয়নি বলে যে অভিযোগ মোহামেডানের, এ নিয়ে সাঈদ বলেন, ‘বাইলজের কোথাও লেখা নেই চিঠির মাধ্যমে এটা জানাতে হবে। অবহিত করার যে বিষয়টি উল্লেখ আছে, সেটা যথাযথ প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই তাদের করা হয়েছে।’

১৪ ম্যাচে ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষ মোহামেডান। দ্বিতীয় স্থানে থাকা আবাহনীর পয়েন্ট ৩৪। সমান ৩৪ পয়েন্ট ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন মেরিনার ইয়াংসের। এই তিন দলেরই রয়েছে শিরোপা জয়ের সুযোগ। আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচের আগে বাংলাদেশ পুলিশের বিপক্ষে খেলবে মেরিনার্স। এই ম্যাচ যদি মেরিনার্স জেতে আর আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচ ড্র হয় তাহলে চ্যাম্পিয়ন হবে মেরিনার্স। ঊষা ও আবাহনীর পয়েন্ট সমান হয়ে যাওয়ার সুযোগও আছে। কিন্তু মাঠের এই রোমাঞ্চই তো ভেস্তে যাওয়ার উপক্রম।

টি-টোয়েন্টিতে শীর্ষস্থান হারালেন সাকিব

প্রকাশ: ২৯ মে ২০২৪, ০৬:৫১ পিএম
টি-টোয়েন্টিতে শীর্ষস্থান হারালেন সাকিব
ছবি : সংগৃহীত

আইসিসির সদ্য প্রকাশিত টি-টোয়েন্টি অলরাউন্ডারদের র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষস্থান হারিয়েছেন সাকিব আল হাসান। সাকিবকে হটিয়ে শীর্ষস্থান দখলে নিয়েছেন শ্রীলঙ্কার টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। গেল বেশ কিছুদিন ধরে যৌথভাবে এই সংস্করণের শীর্ষে অবস্থান করছিলেন এই দুইজন। হাসারাঙ্গা একে ওঠায় সাকিব নেমে গেছেন দুইয়ে।

চলতি মাসের ১৫ মে প্রকাশিত র‍্যাঙ্কিংয়ে সাকিব ও হাসারাঙ্গা দুজনেরই রেটিং পয়েন্ট ছিল সমান ২২৮। এখন সাকিবের রেটিং পয়েন্ট ২২৩। সাকিবের ৫ পয়েন্ট কমে গেলেও হাসারাঙ্গা এখনও আগের পয়েন্টে অবস্থান করে উঠে এসেছেন শীর্ষে।

২০২২ সালের অক্টোবর থেকে ২০২৩ সালের জুলাই পর্যন্ত শীর্ষস্থানে থাকা সাকিব গত মাসে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের মাঝে একবার দুইয়ে নেমে গেলেও সিরিজের মাঝেই আবার ফিরে পেয়েছিলেন শীর্ষস্থান। যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে সিরিজে ৩ ম্যাচ সাকিব উইকেট শিকার করেছেন মাত্র ১টি। অন্যদিকে ব্যাটিংয়ে ৩ ম্যাচ খেলে করেন ৩৬ রান। হতাশাজনক পারফরম্যান্সে হাসারাঙ্গার কাছে শীর্ষস্থান হারিয়েছেন তিনি।

অলরাউন্ডারদের র‍্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের মধ্যে সাকিবের পরেই অবস্থান মেহেদী হাসানের। তিনিও যুক্তরাষ্ট্র সিরিজের পর সাত ধাপ পিছিয়ে অবস্থান করছেন ৪৭ নম্বরে।

ব্যাটারদের র‍্যাঙ্কিংয়ে তাওহিদ হৃদয় এগিয়েছেন ১২ ধাপ, বর্তমানে  তিনি অবস্থান  করছেন ৬০ নম্বরে। অফ ফর্মে থাকা লিটন দাস ও অধিনায়ক নাজমুল হোসেনের শান্তর অবনতি হয়েছে। লিটন য়েছেন ৫ ধাপ পিছিয়ে নেমেছেন ৪০ নম্বরে আর ৪ ধাপ পিছিয়ে এখন ৪৪ নম্বরে অবস্থান করছেন শান্ত।

অন্যদিকে ৩৪ ধাপ এগিয়ে প্রথমবারের মতো শীর্ষ ১০০-তে জায়গা করে নিয়েছেন তানজিদ হাসান। এ বাঁহাতি ওপেনার আছেন ৮৪ নম্বরে। দুই ধাপ এগিয়ে বোলারদের র‍্যাঙ্কিংয়ে ২৩ নম্বরে উঠে এসেছেন বাঁহাতি পেসার মোস্তাফিজুর রহমান।

চোটের কারণে যুক্তরাষ্ট্র সিরিজে না খেলা আরেক পেসার তাসকিন আহমেদ ৫ ধাপ পিছিয়ে নেমে গেছেন ২৮ নম্বরে। এর বাইরে এক ধাপ পিছিয়ে সাকিব ৩১ ও ৩ ধাপ পিছিয়ে মেহেদী আছেন ৩২ নম্বরে।

গম্ভীরই ভারতের পরবর্তী কোচ!

প্রকাশ: ২৯ মে ২০২৪, ০৪:৪৭ পিএম
গম্ভীরই ভারতের পরবর্তী কোচ!
ছবি : সংগৃহীত

ভারতের বর্তমান কোচ রাহুল দ্রাবিড়ের মেয়াদ শেষ হতে যাচ্ছে আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শেষে। তার সঙ্গে বিসিসিআই চুক্তি নবায়ন না করলে কে ব বসতে যাচ্ছেন আই আসনে তাই নিয়েই চলছে অনেক জল্পনা। তবে সবচেয়ে বেশিবার উচ্চারিত হচ্ছে গৌতম গম্ভীরের নাম।

ভারতের একাধিক গণমাধ্যম দাবি করেছে, সদ্যসমাপ্ত আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে চ্যাম্পিয়ন করার পেছনে অন্যতম নায়ক গম্ভীরই হতে যাচ্ছেন ভারতের পরবর্তী কোচ।

দ্রাবিড়ের জায়গায় বিসিসিআই কোচ হিসেবে ভারতীয় কাউকেই নিয়োগ দিতে চায়। বিসিসিআইয়ের প্রথম পছন্দ ছিল ভিভিএস লক্ষ্মণ। কিন্তু তিনি রাজি না হওয়ায় বোর্ডকে ঝুঁকতে হয়েছে গম্ভীরের দিকে। এমনও খবর ছড়িয়েছে গম্ভীরকে চূড়ান্ত করে ফেলেছে ভারতের ক্রিকেট বোর্ড, বাকি কেবল আনুষ্ঠানিক ঘোষণার।

দেশটির গণমাধ্যমগুলোর দাবি, বিসিসিআই ও গম্ভীরের মধ্যে আলোচনা চলছে। বোর্ড অন্যান্য প্রার্থীর সঙ্গেও কথোপকথন চালাচ্ছে; তবে গম্ভীরই প্রথম পছন্দ।

কোচ নিয়োগে ব্যাপারে ক্রিকবাজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, একজন শীর্ষস্থানীয় আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিক, যিনি বিসিসিআইয়ের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে যুক্ত, তিনি গম্ভীরের নিয়োগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি দাবি করেছেন, গম্ভীরের সঙ্গে নাকি চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। শিগগিরই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসবে।

প্রস্তুতি ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে বাকিদের বার্তা দিলো নেদারল্যান্ডস

প্রকাশ: ২৯ মে ২০২৪, ০২:০৭ পিএম
প্রস্তুতি ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে বাকিদের বার্তা দিলো নেদারল্যান্ডস
ছবি : সংগৃহীত

বড় আসরে নেদারল্যান্ডস বরাবরই জায়ান্ট কিলার হিসেবে পরিচিত। সবশেষ ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকা ও  বাংলাদেশকে হারিয়েছিল তারা। এবারও বিশ্বকাপের আগে প্রস্ততি ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ২০ রানে হারিয়ে মূলপর্বে তাদের প্রতিপক্ষদের প্রতি সতর্কবার্তা দিয়ে রাখলো নেদারল্যান্ডস।

মঙ্গলবার (২৮ মে) প্রস্ততি মাসে ফ্লোরিডার সেন্ট্রাল ব্রোওয়ার্ড রিজিওনাল পার্ক স্টেডিয়ামে আগে ব্যাটিং করে নেদারল্যান্ডস তাদের বোর্ডে যোগ করে ১৮১ রানের বড় সংগ্রহ। সেই লক্ষ্য তারা করতে নেমে ১৮.৫ ওভারে ১৬১ রানেই গুটিয়ে যায় লঙ্কানরা। ফলে ২০ রানের জয় পায় ডাচরা।

আসন্ন বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কা, দক্ষিণ আফ্রিকা ও নেপালের পাশাপাশি বাংলাদেশও আছে নেদারল্যান্ডসের গ্রুপে। এরমধ্যে দক্ষিণ আফ্রিকাকে সবশেষ ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পরাজিত করেছে স্কট এডওয়ার্ডসরা। বাংলাদেশকে হারিয়েছে ওয়ানডে বিশ্বকাপে। এবার মূলপর্বের আগে প্রস্তুতি ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে আবারও সবাইকে বার্তা দিলো ডাচরা।

ডালাসে ৮ জুন শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হয়েই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করবে বাংলাদেশ। নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচ ১৩ জুন।

ম্যাচ হারলেও লঙ্কান অধিনায়ক হাসারাঙ্গা ব্যাট হাতে করেছেন ১৫ বলে ৪৩ রান ও দাসুন শানাকা করেছেন ২০ বলে ৩৫। র ধনঞ্জয়া ডি সিলভার ব্যাটে এসেছে ২২ বলে ৩১ রান।

৯ জনের অস্ট্রেলিয়া ৭ উইকেটে হারাল নামিবিয়াকে

প্রকাশ: ২৯ মে ২০২৪, ১২:৫১ পিএম
৯ জনের অস্ট্রেলিয়া ৭ উইকেটে হারাল নামিবিয়াকে
ছবি : সংগৃহীত

বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে নামিবিয়ার বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়া মাঠে নেমেছিল ৯জন নিয়ে। দলের নিয়মিত মুখ মিচেল স্টার্ক, প্যাট কামিন্স, ট্রাভিস হেড, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ক্যামেরন গ্রিন ও মার্কাস স্টয়নিসকে ছুটি দেওয়া হয়েছিল দীর্ঘদিন আইপিএলে ব্যস্ত থাকায়।

মজার ব্যাপার হলো এদিন মাঠে নেমেছিল অস্ট্রলিয়ার কোচিং স্টাফরাও। মাঠে নেমে জশ হ্যাজলউডের বলে অস্ট্রেলিয়ার ফিল্ডিং কোচ অ্যান্ড্রে বোরোভেচ ক্যাচও ধরেছেন। স্কয়ার লেগে ফিল্ডিং করেছেন প্রধান নির্বাচক জর্জ বেইলি আবার প্রধান কোচ অ্যান্ড্রু ম্যাকডোনাল্ডও মাঠে নেমেছিলেন বদলি ফিল্ডার হিসেবে।

মঙ্গলবার (২৮ মে) পোর্ট অব স্পেনে টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে প্রস্তুতি ম্যাচে মুখোমুখি হয় অস্ট্রেলিয়া ও নামিবিয়া। সেই ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া ৬০ বল হাতে রেখে জিতেছে ৭ উইকেটের ব্যবধানে।

আইপিএলে খেললেও প্রস্তুতি ম্যাচে খেলেছেন অধিনায়ক মিচেল মার্শ। চোটে পড়ে এ অলরাউন্ডার আইপিএল থেকে আগেই দেশে ফিরেছেন।

৯ জনের অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আগে ব্যাটিং করে নামিবিয়া তুলেছিল ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১১৯ রান। জবাবে ডেভিড ওয়ার্নারের ২১ বলে ৫৪ রানের ইনিংসে এই রান হেসেখেলে তাড়া করে অস্ট্রেলিয়া। 

সুবিধাবঞ্চিত হয়ে ক্যাম্প ছাড়লেন তিন আর্জেন্টাইন নারী ফুটবলার

প্রকাশ: ২৯ মে ২০২৪, ১২:০৪ পিএম
সুবিধাবঞ্চিত হয়ে ক্যাম্প ছাড়লেন তিন আর্জেন্টাইন নারী ফুটবলার
ছবি : সংগৃহীত

আর্জেন্টিনার পুরুষ দল বর্তমানে বিশ্ব ও মহাদেশীয় শিরোপার চ্যাম্পিয়ন দল। অথচ সেই দেশের নারী ফুটবলাররাই কিনা তুললেন ম্যাচের আগে কম সুযোগ-সুবিধা ও পারিশ্রমিকের অভিযোগ। কোস্তারিকার বিপক্ষে আর্জেন্টিনা নারী ফুটবল দল দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলবে। ওই ম্যাচের আগে এসব অভিযোগ তুলে ক্যাম্প ছেড়ে চলে গেছেন তিন ফুটবলার।

ক্যাম্প ছেড়ে চলে যাওয়া সেই তিন ফুটবলার হলেন - গোলরক্ষক লউরিন অলিভেরোস, ডিফেন্ডার জুলিয়েটা ক্রুজ ও মিডফিল্ডার লরিনা বেনিতেজ।

ওই তিন ফুটবলারের দাবি আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন তাদের প্রতি শুধু অবিচার নয়, অপদস্তও করছে। ঠিকঠাক অনুশীলনের সুযোগ-সুবিধা মিলছে না তাদের। খাবারের মান নিয়েও আছে প্রশ্ন, বৈষম্য রয়েছে ম্যাচ ফি নিয়েও।  এমনকি তাদের পরিবারের সদস্যরা খেলা দেখতে চাইলেও টিকিট কাটতে হচ্ছে উচ্চমূল্যে।

ক্যাম্প ত্যাগ করা ডিফেন্ডার ক্রুজ বিষয়টি নিয়ে লিখেছেন, ‘আমাদের প্রতি অবিচার করা হচ্ছে, কথার মূল্যায়ন তো করা হয়ই না বরং পরিস্থিতি দিনদিন খারাপ হচ্ছে, অপদস্ত হতে হচ্ছে। আর্জেন্টিনা ফুটবল দলের উন্নতি দরকার। আমরা শুধু আর্থিক বিষয় নিয়ে কথা বলছি না। আমাদের অনুশীলন, নাস্তা, খাবার কোন কিছুই ভালো নয়।’

গোলরক্ষক অলিভেরোস লিখেছেন, ‘আমাদের হৃদয় ভেঙেছে, তিল তিল করে কত স্বপ্ন শেষ হয়ে গেছে। পরের প্রজন্ম যেন আনন্দের সঙ্গে ফুটবল খেলতে পারে, আনন্দের সঙ্গে বল পায়ে দৌড়াতে পারে সেই প্রার্থনা করি। কিছুদিন আগেও যেমনটা আমরা পারতাম।’

এ ব্যাপারে ইএসপিএন জানিয়েছে, আর্জেন্টিনা নারী দলের অনুশীলন ক্যাম্পে নাস্তায় কেবল একটি স্যান্ডউইচ এবং কলা দেওয়া হচ্ছে। দেশটির রাজধানী বুয়েন্স আইরেসে ম্যাচ হওয়ায় আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন কর্তৃক খেলোয়াড়দের ভাতা না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তার ওপর পরিবারের জন্য টিকিট নিলে দিতে হবে ৫ হাজার আর্জেন্টাইন মুদ্রা। এর আগেও সুবিধা বঞ্চিত হয়ে ফুটবল ছেড়েছেন আর্জেন্টিনার নারী ফুটবলার।