ঢাকা ১০ আষাঢ় ১৪৩১, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০২৪ থ্রি লায়ন্সদের মুকুট ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ

প্রকাশ: ২৮ মে ২০২৪, ১০:৪৪ এএম
আপডেট: ২৮ মে ২০২৪, ১০:৪৪ এএম
থ্রি লায়ন্সদের মুকুট ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ
ছবি : সংগৃহীত

ক্রিকেটের জনক বলা হয় ইংল্যান্ডকে। অথচ দীর্ঘ একটা সময় বৈশ্বিক আসরগুলোতে শিরোপার জন্য অনেক হাপিত্যেশ করতে হয়েছে তাদের। ১৯৭৫ সালে প্রথম ওয়ানডে বিশ্বকাপে ইংল্যান্ড থামে সেমিফাইনালে। পরের আসরে ফাইনালে উঠেও শিরোপা থাকে অস্পর্শ। ১৯৮৩ বিশ্বকাপে আবার সেমি থেকে বিদায়। ১৯৮৭ ও ১৯৯২ বিশ্বকাপে টানা দুবার ফাইনালে উঠেও শিরোপা জেতা হয়নি থ্রি লায়ন্সদের।

এরপর দীর্ঘ অপেক্ষা। খেলা হচ্ছিল না কোনো ফাইনালই। তবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আসার পর কপাল খোলে ইংলিশদের। পল কলিংউডের নেতৃত্বে আর কেভিন পিটারসেনের আগুনে ফর্মে ২০১০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতে বৈশ্বিক আসরে ট্রফি জয়ের দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটায় থ্রি লায়ন্সরা। তবে ওয়ানডে ফরম্যাটে এই শিরোপার জন্য তাদের অপেক্ষা করতে হয় আরও কয়েক বছর। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ের ৯ বছর পর মরগানের নেতৃত্বে ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতে দুই ফরম্যাটেই মুকুট জয়ের কৃতিত্ব দেখায় ক্রিকেটের কুলীন সদস্য। এর আগে ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠলেও দেখা মেলেনি দ্বিতীয় ট্রফি। ২০২১ আসরে সেমি থেকে বিদায় নিলেও সর্বশেষ ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ঠিকই নিজেদের করে নেয় ইংলিশ বি গ্রেড। তার মানে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। মুকুট ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ নিয়েই যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপে পা রাখবে জস বাটলার শিবির।

বেন স্টোকসহীন স্কোয়াড

ইংল্যান্ডের ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপ জেতার অগ্রনায়ক ছিলেন তুখোড় অলরাউন্ডার বেন স্টোকস। যিনি নিজের নামের সুবিচার করেছিলেন ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ফাইনালে স্টোকস খেলেছিলেন ৫২ রানের কার্যকরী ইনিংস। ৫ উইকেটের জয়ে ইংল্যান্ড করায়ত্ত করেছিল দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ট্রফি। তবে সেই বেন স্টোকস নেই এবার ইংল্যান্ড দলে। তারকা এই অলরাউন্ডার আগেই নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন স্কোয়াড থেকে। গতবারের মতো এবারও ইংল্যান্ড দলকে নেতৃত্ব দেবেন জস বাটলার।

দলে ফেরানো হয়েছে আগুনে পেসার জফরা আর্চারকে। এক বছরের বেশি সময় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে ছিলেন তিনি। ২০২৩ সালের মার্চ মাসে ইংল্যান্ডের সর্বশেষ হয়ে খেলেছিলেন আর্চার। তার পর থেকেই কনুইয়ের চোট নিয়ে ভুগছিলেন তিনি।

ক্রিস জর্ডান ফর্মে নেই। কিন্তু তাকে দলে রাখা হয়েছে। তিনি শেষ বার ইংল্যান্ডের হয়ে খেলেছিলেন ২০২৩ সালের সেপ্টেম্বরে। বাটলারের সঙ্গে ইংল্যান্ড দলের টপ অর্ডারে থাকছেন উইল জ্যাকস, ফিল সল্ট এবং জনি বেয়ারস্টো। প্রত্যেকেই আইপিএলে দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন। এদিকে বেন ডাকেটও বিশ্বকাপের দলে জায়গা পেয়েছেন। সেই সঙ্গে বাঁহাতি স্পিনার টম হার্টলির নামও এসেছে স্কোয়াডে। ফলে কপাল পুড়ছে রেহান আহমেদের। হার্টলি দ্বিতীয় স্পিনার হিসেবে আদিল রশিদের সঙ্গে জুটি বাঁধবেন।

অন্যদিকে জর্ডান এখন পর্যন্ত ইংল্যান্ডের হয়ে পাঁচটি বিশ্বকাপ খেলেছেন। এ ছাড়া গত দুই মৌসুমে কাউন্টি দল সারের টি-টোয়েন্টি অধিনায়কের দায়িত্বও পালন করেছেন তিনি। ২০২২ সালের বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডের হয়ে দুটি ম্যাচ খেলেন। ক্যারিবিয়ানে এবারের বিশ্বকাপেও তাকে মাঝে মধ্যে একাদশে রাখতে পারে ইংলিশরা। তবে তার ফিল্ডিং স্কিল ও ডেথ বোলিংয়ে চাতুর্য ইংল্যান্ডের জন্য দরকারি হতে পারে।

হ্যারি ব্রুক, লিয়াম লিভিংস্টোন, স্যাম কুরানের মতো ক্রিকেটাররা আস্থা জোগাচ্ছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের। গত বিশ্বকাপে স্যাম কুরান ছিলেন টগবগে ফর্মে। সর্বোচ্চ ১৫ উইকেট নিয়ে জিতেছিলেন টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কার। গেল আইপিএলে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের হয়ে ১৩ ম্যাচে ১৬ উইকেট নিয়েছিলেন স্যামুয়েল ম্যাথিউ কুরান।

ক্যারিবিয়ানে বিশ্বকাপ অভিযান

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের অবস্থান ‘বি’ গ্রুপে। গ্রুপে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের একমাত্র শক্ত প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া। বাকি তিন দল নামিবিয়া, ওমান ও স্কটল্যান্ড খুব বেশি ঝামেলার মনে করছে না ইংলিশ শিবির। গ্রুপের সব ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ক্যারিবীয় দ্বীপে। ২ জুন ওমান ও নামিবিয়ার মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে গ্রুপ পর্বের লড়াই। ইংল্যান্ডের মিশন শুরু হবে দুই দিন পর ৪ জুন থেকে। বার্বাডোজের ব্রিজটাউনে ইংল্যান্ড মুখোমুখি হবে স্কটল্যান্ডের। একই ভেন্যুতে ৮ জুন ইংল্যান্ড লড়বে গ্রুপের সবচেয়ে শক্ত প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। ১৩ জুন ওমান ও ১৫ জুন নামিবিয়ার বিরুদ্ধে মাঠে নামবে বাটলার শিবির।

প্রথম টি-টোয়েন্টি ১৩ জুন ২০০৫, প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া

ম্যাচ: ১৮৩

জয়: ৯৫

পরাজয়: ৮০

টাই: ২

পরিত্যক্ত: ৬

র‌্যাঙ্কিং: ৩

জস বাটলার, অধিনায়ক

বিশ্বকাপ মানেই বাড়তি চাপ। সে চাপ সামলে এগোতে চাই। গতবারের চ্যাম্পিয়ন আমরা। স্বাভাবিকভাবেই আমাদের প্রতি দেশের মানুষের প্রত্যাশা থাকবে বেশি। আমাদের লক্ষ্য চ্যাম্পিয়নশিপ ধরে রাখা। স্কোয়াডে বেন স্টোকসকে মিস করব। তবে দলে যারা আছেন সবাইকে নিয়েই এক লক্ষ্যে মিশন আমাদের। স্কোয়াড নিয়ে আমি খুশি। এখন কাজ মাঠের খেলায় নিজেদের উজার করে দেওয়া।

ম্যাথু মট, সাদা বলের কোচ

দল নিয়ে আমি আশাবাদী। যদিও এবার বিশ্বকাপটা হচ্ছে দুই দেশে। যেখানে আবহাওয়া ও পরিবেশগত কিছু পার্থক্য থাকবে। সবকিছু মানিয়ে পারফর্ম করাটাই ক্রিকেটারদের কাজ। সে লক্ষ্যেই আমাদের পথচলা। ভালো কিছুরই প্রত্যাশা থাকছে এই বিশ্বকাপে। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন হিসেবে চাপ যেমন থাকবে, তেমনি থাকবে প্রেরণাও। নিজেদের সর্বোচ্চটা দিতে পারলে আমরাই হব সেরা।

দল : জস বাটলার (অধিনায়ক), মঈন আলী, জফরা আর্চার, জনি বেয়ারস্টো, হ্যারি ব্রুক, স্যাম কুরান, বেন ডাকেট, টম হার্টলি, উইল জ্যাকস, ক্রিস জর্ডান, লিয়াম লিভিংস্টোন, আদিল রশিদ, ফিল সল্ট, রিচি টপলে ও মার্ক উড।

জুনিয়র এএইচএফ কাপ আবারও অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ১২:২৬ এএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ১২:২৬ এএম
আবারও অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ
ছবি: সংগৃহীত

প্রতিযোগিতার শুরু থেকেই অপ্রতিরোধ্য গতিতে ছুটছিল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২১ দল। ফাইনালেও লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের রুখা গেল না। মেহরাব হাসান, মোহাম্মদ জয়, আমিরুল ইসলামরা ধরে রাখলেন নিজেদের অপরাজেয় যাত্রা। সুবাদে জুনিয়র এশিয়ান হকি ফেডারেশন কাপের (এএইচএফ কাপ) সপ্তম আসরে শিরোপা ধরে রাখল বাংলাদেশ।

রবিবার (২৩ জুন) সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত এই প্রতিযোগিতার ফাইনালে চীনকে ৪-২ গোলে হারিয়ে ট্রফি ধরে রাখে আশিকুজ্জামানের শিষ্যরা। ফাইনালে জোড়া গোল করেন মোহাম্মদ হাসান। আমিরুল ইসলাম ও মোহাম্মদ জয় করেন একটি করে গোল। গত বছর জানুয়ারিতে ওমানে অনুষ্ঠিত এই প্রতিযোগিতায়ও অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ।

ওমানে অনুষ্ঠিত ওই আসরে চীন ছিল না। এবার শক্তিশালী দলটি থাকায় বাংলাদেশের জন্য শিরোপা ধরে রাখা ছিল চ্যালেঞ্জের। তবে চীন বাধা জয় করেই বিজয় উল্লাস করেছে লাল-সবুজের প্রতিনিধরা।

ম্যাচের প্রথম কোয়ার্টারে কোনো গোল হয়নি। দ্বিতীয় কোয়ার্টারে তিন গোল আদায় করে ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বাংলাদেশ। ২২-২৭, এই ৫ মিনিটে গোল তিনটি করে তারা। প্রথম ও তৃতীয় গোলটি করেন রকিবুল হাসান। দুটিই ছিল ফিল্ড গোল। পেনাল্টি কর্নার থেকে মাঝের গোলটি করেন আমিরুল ইসলাম। তৃতীয় কোয়ার্টারে জোড়া গোল করে ম্যাচ জমিয়ে তোলে চীন। ৩৩ মিনিটে জিয়ালং লুও এবং ৪১ মিনিটে চেন সিয়ানজেন চীনের পক্ষে গোল দুটি করেন। তাতে ৩-২ হয় ম্যাচের স্কোর লাইন। চতুর্থ ও শেষ কোয়ার্টারে একটি গোলই হয়েছে। ফিল্ড গোল থেকে সেটা করেছেন বাংলাদেশের মোহাম্মদ জয়।

এই প্রতিযোগিতা জুনিয়র এশিয়া কাপের বাছাই পর্বও। অংশ নেওয়া ১১টি দলের মধ্যে ৫টি দল জুনিয়র এশিয়া কাপের ছাড়পত্র পেয়েছে। বাংলাদেশ সেমিফাইনাল নিশ্চিত করার মধ্য দিয়েই যা অর্জন করেছিল। ‘এ’ গ্রুপে থাকা বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা শুরু করেছিল শ্রীলঙ্কাকে ৫-০ হারিয়ে। এরপর থাইল্যান্ডকে ৪-২ ও ইন্দোনেশিয়াকে ৭-০ গোলে হারিয়ে গ্রুপসেরা হিসেবে সেমিফাইনালে পা রাখে। শেষ চারের লড়াইয়ে চাইনিজ তাইপকে ৫-১ গোলে হারায় তারা।

ছেলেদের এই প্রতিযোগিতার পাশাপাশি সিঙ্গাপুরেই একই সময়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে উইমেন্স জুনিয়র এএইচএফ কাপ হকি। লিগভিত্তিক এই প্রতিযোগিতায় রানার্সআপ হয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। রবিবার নিজেদের শেষ ম্যাচে স্বাগতিক সিঙ্গাপুরকে ৭-১ গোলে হারিয়েছে বাংলাদেশ। তাতে ৬ ম্যাচে ৫ জয়ে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে প্রতিযোগিতা শেষ করেছে তারা। ১৮ পয়েন্ট নিয়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে চাইনিজ তাইপে। ৭ দলের এই প্রতিযোগিতা থেকে ৫ দল উইমেন্স জুনিয়র এশিয়া কাপের টিকিট পেয়েছে। বাংলাদেশ যা নিশ্চিত করেছিল আগেই।

 

যুক্তরাষ্ট্রকে গুঁড়িয়ে সেমিতে ইংল্যান্ড

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২৪, ১২:১৬ এএম
আপডেট: ২৪ জুন ২০২৪, ১২:১৬ এএম
যুক্তরাষ্ট্রকে গুঁড়িয়ে সেমিতে ইংল্যান্ড
ছবি: সংগৃহীত

ক্রিস জর্ডানের হ্যাটট্রিকে যুক্তরাষ্ট্রকে রীতিমতো গুঁড়িয়ে দাপুটে এক জয় তুলে নিয়েছে ইংল্যান্ড। বার্বাডোসে রবিবার (২৩ জুন) টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার এইটের ম্যাচেটিতে টস জিতে প্রতিপক্ষকে আগে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানিয়েছিল তারা। গ্রুপ পর্বে পাকিস্তানকে হারানো যুক্তরাষ্ট্র এদিন দাঁড়াতেই পারেনি। ৭ বল বাকি থাকতে মাত্র ১১৫ রানে অলআউট হয়ে যায় দলটি। ১১৬ রানের লক্ষ্য ইংলিশরা ছুঁয়ে ফেলে মাত্র ৯.৪ ওভারেই। ১০ উইকেটের এই জয়ের সুবাদে গ্রুপ-২ থেকে সবার আগে সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়ে গেছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের।

অধিনায়ক জস বাটলার ৩৮ বলে ৮৩ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেছেন। ৬টি চারের সঙ্গে ৭টি ছক্কা হাঁকিয়েছেন তিনি। অন্য প্রান্তে ফিল সল্ট ২১ বলে ২ চারে অপরাজিত ২৫ রান করেন।

তবে ইংলিশদের এই জয়ের নায়ক বোলাররাই। সবার আগে যেখানে ক্রিস জর্ডানের নামটাই বলতে হবে। ইংল্যান্ডের প্রথম বোলার হিসেবে পুরুষদের আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে হ্যাটট্রিকের কীর্তি গড়েছেন তিনি। ২.৫ ওভার বল করে ১০ রান খরচায় ৪ উইকেট নেন তিনি। চারটি উইকেটই যুক্তরাষ্ট্রের লেজের ব্যাটারদের। ১৯তম ওভারের প্রথম বলে উইকেট নেন। এরপর তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম বলে উইকেট তুলে নিয়ে হ্যাটট্রিকের স্বাদ নেন। দ্বিতীয় বোলার হিসেবে বিশ্বকাপের ম্যাচে এক ওভারে ৪ উইকেট নিলেন তিনি।

জর্ডানের জন্মভূমি বার্বাডোস। এখানেই জন্ম ও বেড়ে ওঠা তার। সেই জন্মভূমিতেই টানা তিন বলে উইকেটের স্বাদ পেয়েছেন ৩৫ বছর বয়সী পেসার। চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এটি তৃতীয় হ্যাটট্রিক। অন্য দুই হ্যাটট্রিক অস্ট্রেলিয়ার প্যাট কামিন্সের। পরে দুই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করে তিনিও গড়েছেন আরেক ইতিহাস।

জর্ডানের এই তোপে ৫ উইকেটে ১১৫ থেকে ১১৫ রানেই অল আউট হয় যুক্তরাষ্ট্র। দলটির পক্ষে নিতিশ কুমার সর্বোচ্চ ২৪ বলে ৩০ ও কোরি অ্যান্ডারসন ২৮ বলে ২৯ রান করেন। তবে জর্ডানকে ছাপিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছেন আদিল রশিদ। ৪ ওভারে মাত্র ১৩ রান খরচায় যিনি ২ উইকেট নিয়েছেন।

জাতীয় দলে ফিরলেন জাহানারা-রুমানা

প্রকাশ: ২৩ জুন ২০২৪, ১০:১৫ পিএম
আপডেট: ২৩ জুন ২০২৪, ১০:১৫ পিএম
জাতীয় দলে ফিরলেন জাহানারা-রুমানা
ছবি: সংগৃহীত

এ বছর অক্টোবরে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হবে মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তার আগে আগামী মাসে শ্রীলঙ্কায় বসবে মেয়েদের এশিয়া কাপের আসর। এবারের এশিয়া কাপকে তাই বাংলাদেশের জন্য বিশ্বকাপের প্রস্তুতির মঞ্চ বলা যেতে পারে। এই আসরের জন্য রবিবার (২৩ জুন) ১৫ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দলে ফিরেছেন অভিজ্ঞ দুই মুখ জাহানারা আলম ও রুমানা আহমেদ।

গত বছর শ্রীলঙ্কা সফর থেকে দলের বাইরে ছিলেন ডানহাতি পেসার জাহানারা। দীর্ঘদিন পর আবার জাতীয় দলে ডাক মিলেছে তার। অন্যদিকে অবসর বিতর্কের জন্য কারণ দর্শানোর নোটিশ পেয়ে দীর্ঘদিন জাতীয় দলের বাইরে ছিলেন রুমানা। সবশেষ নারী প্রিমিয়ার লিগে ভালো খেলে ফের জাতীয় দলে ডাক মিলেছে জানাহারা ও রুমানার। প্রথমবার ডাক পেয়েছেন ইসমা তানজিম ও সাবেকুন নাহার জেসমিন।

প্রিমিয়ার লিগে রূপালী ব্যাংক ক্রীড়া পরিষদের হয়ে ইসমা ৯ ম্যাচে ৩৮.৭৬ গড়ে করেন ২৬৫ রান। প্রথমবার জাতীয় দলে ডাক পেলেন তিনি। মোহামেডানের হয়ে ৭ ম্যাচে ১৪ উইকেট নিয়ে প্রথমবার ডাক পেয়েছেন সাবেকুন নাহার। তবে প্রিমিয়ার লিগে আলো ছড়িয়েও জায়গা হয়নি ফারজানা হক পিংকি ও সোবহানা মোস্তারির।

বাংলাদেশ স্কোয়াড

নিগার সুলতানা জ্যোতি (অধিনায়ক), নাহিদা আক্তার (সহ-অধিনায়ক), মুর্শিদা খাতুন, দিলারা আক্তার দোলা, রুমানা আক্তার, রিতু মনি, মারুফা আক্তার, জাহানারা আলম, রাবেয়া খান, সুলতানা খাতুন, রুবাইয়া আক্তার ঝিলিক, স্বর্ণা আক্তার, ইসমা তানজিম, সাবেকুন নাহার জেসমিন ও শরিফা খাতুন।

যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ফিল্ডিংয়ে ইংল্যান্ড

প্রকাশ: ২৩ জুন ২০২৪, ০৮:১৬ পিএম
আপডেট: ২৩ জুন ২০২৪, ০৮:১৮ পিএম
যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ফিল্ডিংয়ে ইংল্যান্ড
ছবি : সংগৃহীত

সেমিফাইনাল নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে জয়ের বিকল্প নেই ইংল্যান্ডের। এমন ম্যাচে বার্বাডোজে সুপার এইটে নিজেদের শেষ ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক জস বাটলার। এক পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নেমেছে ইংলিশরা।

টস জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে বাটলার বলেন, 'এখানে শুরুটা কেমন হবে জানি না। সে কারণে আগে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত। এটা কঠিন ম্যাচ হতে যাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র কিছু কঠিন ম্যাচ খেলেছে। আমরা জানি কী করতে হবে। আশা করি, বোলাররা ভালো বোলিং করবে।'

ইনজুরির কারণে এই ম্যাচের একাদশে নেই মোনাঙ্ক প্যাটেল। ফলে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক হিসেবে টস করতে নামেন অ্যারন জোন্স। টসের সময় বলেন, 'আমরাও আগে বোলিং করতে চেয়েছিলাম। এটা কঠিন সময় হতে যাচ্ছে। এটা দারুণ উইকেট। আমাদের ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলতে হবে।'

যুক্তরাষ্ট্র একাদশ

স্টিভেন টেইলর, অ্যান্দ্রিয়েস গোয়েস, নিতিশ কুমার, অ্যারন জোন্স, কোরি অ্যান্ডারসন, মিলিন্দ কুমার, হারমিত সিং, শ্যাডলি ফল স্কয়ালাক, নশতুশ কেনজিগে, আলী খান, সৌরভ নেত্রাভালকর।

ইংল্যান্ড একাদশ

ফিল সল্ট, জস বাটলার, জনি বেয়ারস্টো, হ্যারি ব্রুক, মঈন আলী, লিয়াম লিভিংস্টোন, স্যাম কুরান, ক্রিস জর্ডান, জফরা আর্চার, আদিল রশিদ, রিস টপলি

সেপ্টেম্বরে ফেরার অপেক্ষায় ইবাদত

প্রকাশ: ২৩ জুন ২০২৪, ০৬:৫৯ পিএম
আপডেট: ২৩ জুন ২০২৪, ০৭:০৬ পিএম
সেপ্টেম্বরে ফেরার অপেক্ষায় ইবাদত
ছবি- সংগ্রহীত

গত বছর জিম্বাবুয়ে সিরিজে পায়ের চোটে পড়েন ইবাদত হোসেন। এরপর লম্বা সময় পেরিয়ে গেছে- তবুও মাঠে ফেরা হয়নি এই পেসারের। এশিয়া কাপ, ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর মিস করেছেন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ঘরে বসে বিশ্বকাপ উপভোগ করা ইবাদত অপেক্ষায় আছেন মাঠে ফেরার। ধারণা করা হচ্ছে আগামী সেপ্টেম্বরে মাঠে ফিরতে পারেন। এমনটাই জানাচ্ছেন, বিসিবির মেডিক্যাল বিভাগের কর্মকর্তারা।

লম্বা সময় ধরে হাঁটুর ইনজুরিতে ভুগছেন ইবাদত হোসেন। গত বছরের আগস্টে তার হাঁটুতে অস্ত্রোপচার করা হয়। সেই সময় ধারণা করা হয়েছিল, ৬-৮ সপ্তাহের মধ্যে রিহ্যাব শুরু করবেন। একটু দেরিতে রিহ্যাব শুরু হওয়ায় লম্বা সময় তাকে মাঠের বাইরে থাকতে হয়েছে। ইনজুরির কারণে দুই বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপের পাশাপাশি মিস করেছেন সর্বশেষ বিপিএলও। দীর্ঘদিন মাঠের বাইরে থাকা ইবাদতকে নিয়ে আগ্রহের পারদও তাই কমে গেছে। সমর্থকদের জন্য আছে সুখবর। রিহ্যাবে থাকা ইবাদত ধীরে ধীরে ফিট হয়ে উঠছেন। বিসিবি মেডিক্যাল বিভাগের একাধিক কর্মকর্তা খবরের কাগজকে জানান, ৭০-৮০ শতাংশ সুস্থ হয়ে উঠেছেন। ছোট রানআপে নিয়মিত বোলিং করছেন এই ডানহাতি পেসার। আস্তে আস্তে বাড়ছে তার বোলিংয়ের ইন্টেনসিটি।

আপাতত জাতীয় দলের বাইরে থাকা ক্রিকেটারদের নিয়ে গঠিত বাংলাদেশ টাইগার্সের সঙ্গে নিজের স্কিল নিয়ে কাজ করছেন ইবাদত হোসেন। সেখানে অবশ্য ছোট রানআপে নিজের স্কিল নিয়ে কাজ করছেন। সেখানে নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে ইবাদতকে। তার ইনজুরির সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে বিসিবির মেডিক্যাল বিভাগের এক কর্মকর্তা খবরের কাগজকে বলেন, ‘আপাতত ৭০-৮০ শতাংশ ইন্টেনসিটি নিয়ে বোলিং করছেন। পুরোপুরি ফিট হয়ে বোলিং করতে আরও কিছুদিন সময় লাগবে। আমাদের ধারণা আগামী জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহ থেকে আগস্টের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে পুরোদমে বোলিং শুরু করতে পারবে।’

আগস্টে পুরোদমে বোলিং শুরু করলেও তখনই মাঠে ফিরতে পারবেন না ইবাদত। পুরোদমে বোলিং শুরুর অন্তত এক মাস পর মাঠে ফেরার অনুমতি পেতে পারেন। বিষয়টি নিয়ে বিসিবির ফিজিও ও চিকিৎসকরা সিদ্ধান্ত দিবে। ধারণা করা হচ্ছে, আগামী সেপ্টেম্বর থেকে মাঠে ফিরতে পারেন ইবাদত। বিসিবির মেডিক্যাল বিভাগের আরেক কর্মকর্তা খবরের কাগজকে বলেন, ‘আমাদের আশা ইবাদত আগস্টে পুরোদমে বোলিং শুরু করবে। তবে মাঠে ফেরার দিনক্ষণ এখনো চূড়ান্ত হয়নি। তবে আশাবাদী সেপ্টেম্বরে মাঠে ফিরতে পারেন। এর জন্য অবশ্য তার হাঁটুর সর্বশেষ অবস্থা দেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। জাতীয় দলের সঙ্গে থাকা ফিজিও দেশে ফিরলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

ইবাদতকে নিয়ে মেডিক্যাল বিভাগের কর্মকর্তাদের সতর্কতা দেখে খানিকটা আন্দাজ করা যায়, পুরোপুরি ফিট না হলে আপাতত তার মাঠে ফেরা হচ্ছে না। খেলার অনুমতি দেওয়ার আগে পুরোপুরি ফিট ইবাদতকে চায় বিসিবি।