ঢাকা ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Khaborer Kagoj

অ্যালান ডোনাল্ডের সাক্ষাৎকার হাথুরুসিংহে নিজেই নিজের বস

প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২:০৩ পিএম
হাথুরুসিংহে নিজেই নিজের বস
ছবি : সংগৃহীত

ওয়ানডে বিশ্বকাপ শেষে বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব ছেড়েছেন পেস বোলিং কোচ অ্যালান ডোনাল্ড। দায়িত্ব ছাড়লেও পেসারদের সঙ্গে এখনো বজায় আছে সম্পর্ক। তাসকিন-ইবাদতদের সঙ্গে নিয়মিত কথা বলেন হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে। তাকে নতুন করে এক বছর কাজ করার প্রস্তাব দিয়েছিল বিসিবি। কিন্তু এই এক বছর বাংলাদেশের ব্যস্ত সূচি দেখে রাজি হননি ডোনাল্ড। এ ছাড়া হাথুরুসিংহের সঙ্গে তার দূরত্বও তৈরি হয়েছিল। জানিয়েছেন, হাথুরুসিংহে নিজেই নিজেকে বস মনে করত।

বাংলাদেশের দায়িত্ব ছেড়ে বর্তমানে নিজ দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া লিগের দল ডিপি ওয়ার্ল্ড লায়ন্সের দায়িত্বে আছেন। সেখান থেকে বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়ে খবরের কাগজের সঙ্গে কথা বলেছেন ডোনাল্ড। তার বলা সেসব কথা তুলে ধরেছেন পার্থ রায়

শরিফুল গত বছর দারুণ ছন্দে ছিলেন। তাকে কেমন দেখলেন?

ডোনাল্ড- এটার পেছনে দারুণ একটা গল্প আছে। ২০২৩ সালে শরিফুল যেমন বোলার ছিল, আগে কিন্তু এমন ছিল না। মাঝে তার পারফরম্যান্স একদম খারাপের দিকে ছিল। ফলে একাদশে নিয়মিত জায়গা পাচ্ছিল না। সেই সময় একদিন সকালে নাস্তার টেবিলে সে আমাকে প্রশ্ন করে, কেন আমি খেলছি না? সাধারণত এই প্রশ্নগুলোর উত্তর দেন কোচ। পাশাপাশি এই প্রশ্ন করার অধিকারও ওর নেই, যদি না সে খুব ভালো ফর্মে থাকে। আমি তাকে বুঝিয়ে বললাম, কেন সে দলে নেই। বললাম তোমার পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে হবে। নিজেকে গড়ে তুলতে হবে। এরপর সে কঠোর পরিশ্রম করেছে। আমার ধারণা, প্রয়োজনের চেয়ে বেশি করেছে সে। তার এমন পারফরম্যান্সের পর তাকে দলে নিতে বাধ্য হয়েছে টিম ম্যানেজমেন্ট এবং তাকে খেলিয়েছে। এই কারণেই সে গত বছর দারুণ পারফর্ম করেছে।

শরিফুলের উন্নতির জায়গাগুলো কী ছিল?

ডোনাল্ড- আমি যখন তাকে প্রথম দেখেছি, সে ধারাবাহিক পারফর্মার ছিল না। সে নিজের ভুলগুলো নিয়ে কাজ করেছে। তার ইনসুইং অন্যতম উন্নতির জায়গা। সে বল ভেতরে ঢুকিয়ে প্যাডে লাগানোর সক্ষমতা রাখে। সেই কাজটা এখন সে দারুণভাবে করছে। এ ছাড়া তার কবজির অবস্থান ঠিকঠাক ছিল না। ডানহাতি ব্যাটারদের জন্য সে বল ভেতরে ঢোকাতে পারে এবং বাঁহাতি বোলারদের জন্য বল বের করে নিতে পারে। এটা ওর সহজাত প্রতিভা। কিন্তু কবজির অবস্থান ঠিক না থাকায় সেটি শরিফুল ঠিকঠাক করতে পারছিল না। ২০২৩ সালে সে ঠিক করেছে সেটি। ও অনেক জায়গায় উন্নতি করেছে। এগুলো ধরে রাখলে ভবিষ্যতে ও বাংলাদেশের সেরা পারফর্মার হবে। আমি তাকে নিয়ে বেশ গর্বিত।

বাংলাদেশি পেসাররা সামনে কেমন করতে পারে বলে আপনার বিশ্বাস?

ডোনাল্ড- পেসারদের সবার একই মানসিকতা। সবাই আক্রমণাত্মক খেলতে চায়। এটা কখনো পরিবর্তন হবে না বলে আমার মনে হয়। ভারত-পাকিস্তানের মতো একসময় বাংলাদেশেও দারুণ পেস আক্রমণ গড়ে উঠবে, এটা আমার বিশ্বাস। নিজেদের কাজ ঠিকঠাক বোঝে আর ওই ধারাবাহিকতা থাকলে তারা অনেক ভালো করবে।

পেসারদের উন্নতির মিছিলে ব্যতিক্রম মোস্তাফিজুর রহমান। তার সমস্যাটা কোথায় বলে আপনার মনে হয়?

ডোনাল্ড- মোস্তাফিজ ক্ল্যাসি ক্রিকেটার। মনে রাখতে হবে ফর্ম ইজ টেম্পোরারি, ক্লাস ইজ পার্মানেন্ট। বাংলাদেশকে সে দীর্ঘদিন সার্ভিস দিয়ে যাচ্ছে। মোস্তাফিজের সমস্যা আমার কাছে কখনো টেকনিক্যাল কোনো সমস্যা মনে হয় না। ওর সমস্যাটা মানসিক। ক্রিকেটাররা অফ ফর্মে থাকতে পারে। এটা সাময়িক। আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় শিক্ষা এটি। আশা করি, সে ফর্মে ফিরবে। তখন সে আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠবে বলে আমার বিশ্বাস।

পেসারদের সঙ্গে হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপে এখনো কথা হয়?

ডোনাল্ড- হ্যাঁ, হয়। হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপে এখনো তারা আমার কাছে নানা ধরনের পরামর্শ চায়। আমি চেষ্টা করি, যতটুকু সম্ভব ওদের সাহায্য করতে। দিন কয়েক আগে তাসকিন কিছু ভিডিও দিয়েছিল, আমি তাকে ভিন্ন ভিন্ন অ্যাঙ্গেলে কাজ করতে বলেছি। ইবাদত-খালেদরা বিশ্বকাপে ছিল না। ওরা নিজেদের কাজ আমাকে পাঠিয়েছিল। আমি চেষ্টা করেছি তাদের পরামর্শ দেওয়ার। ওদের সঙ্গ ছেড়ে আসার সময় বলেছিলাম, এই গ্রুপটা থাকবে, এখানে তোমাদের সমস্যা নিয়ে কথা হবে।

বাইরে শোনা যায় চন্ডিকা হাথুরুসিংহে ড্রেসিংরুমে নিজের প্রভাব ধরে রাখার চেষ্টা করেন। এটা কতটুকু সত্য?

ডোনাল্ড- সে নিজেই নিজের বস। আমি আসলে এমন কাউকে নিয়ে কথা বলতে চাই না, যে আসলে অন্যকে অসম্মান করে বা এই রকম কিছু করে।

বিশ্বকাপ চলাকালে এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, আপনি টাইমড আউট পছন্দ করেন না। কিন্তু কেন?

ডোনাল্ড- এটা বলায় বাংলাদেশ ক্রিকেট আমাকে নিয়ে খুশি না। আমি কখনো টাইমড আউট দেখিনি। এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিতেও দেখিনি কখনো। এমন কী ক্লাব কিংবা ঘরোয়া ক্রিকেটেও না। আমি জানি, এটি নিয়মে আছে। কিন্তু আমার কাছে ভালো মনে হয়নি।

বিশ্বকাপের আগে নাকি চাকরি ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন টুর্নামেন্টের মাঝপথে?

ডোনাল্ড- বিসিবি আমাকে নতুন করে এক বছর চুক্তির প্রস্তাব দিয়েছিল। তবে বিশ্বকাপের আগেই সিদ্ধান্ত ছিল চাকরি ছাড়ব। বিশ্বকাপ চলাকালে কিছু বিষয় দেখার ছিল। ওই সময় এমন কিছু ঘটেনি যে, নতুন প্রস্তাবে সাড়া দেব। এটিই একমাত্র সিদ্ধান্ত, যেটি আমি সঠিক সময়ে নিতে পেরেছি। আমার অনেক বেশি ভ্রমণ করা হচ্ছিল। এখন আসলে পরিবারকে সময় দেওয়া উচিত। এই কারণে দক্ষিণ আফ্রিকায় ফেরত এসেছি। নতুন চুক্তির জন্য জালাল ইউনুসের সঙ্গে কথা হয়েছিল। পরের ১২ মাসের সূচি দেখে বাধ্য হয়ে চুক্তি না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

 

বরিশাল-কুমিল্লা ফাইনাল, রংপুরের বিদায়

প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০:৫২ পিএম
বরিশাল-কুমিল্লা ফাইনাল, রংপুরের বিদায়
ছবি : সংগৃহীত

দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচ। জিতলে ফাইনাল, হারলে বিদায়। রংপুর রাইডার্স ও ফরচুন বরিশালের মধ্যকার ম্যাচ তাই রূপ নিয়েছিল অলিখিত সেমিফাইনালে। মিরপুরের গ্যালারি ছিল কানায় কানায় পূর্ণ। উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে শেষ হাসি ফরচুন বরিশালের। রংপুর রাইডার্সকে ৬ উইকেটে হারিয়ে বিপিএলের ফাইনালে ওঠেছে তামিম ব্রিগেড। 

আগামী শুক্রবার (১ মার্চ) শিরোপা নির্ধারণী ফাইনালে বরিশাল মুখোমুখি হবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের।  

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করতে নেমে শামীম ঝড়ে ৭ উইকেটে ১৪৯ রান করে রংপুর। জবাবে ৯ বল হাতে রেখে লক্ষ্যে পৌঁছায় বরিশাল। ৩৮ বলে অপরাজিত ৪৭ রানের ইনিংস খেলার সুবাদে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন বরিশালের অভিজ্ঞ ব্যাটার মুশফিকুর রহীম। 

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুতে দুই ওপেনার তামিম ও মিরাজকে হারালেও শেষ পর্যন্ত পথ হারায়নি বরিশাল। জয়ের পথে দলটির হয়ে ৩৮ বলে ছয়টি চার ও এক ছক্কায় ৪৭ রান করেন মুশফিক। ১৮ বলে ২২ রান করেন সৌম্য সরকার। কাইল মায়ার্স ২৮ রানে বিদায় নিলেও ছক্কা হাঁকিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন ডেভিড মিলার। ১৮ বলে ২২ রান করেন এই প্রোটিয়া হার্ড হিটার। 

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে রংপুর দ্বিতীয় ওভারে হারিয়ে বসে দুই উইকেট। এরপর চোখের পলকে নেই আরও ৫ উইকেট। স্কোরকার্ডে দলটির অবস্থা দাঁড়ায় ৭ উইকেটে ৭৭ রান। অষ্টম উইকেটে শামীম পাটোয়ারি ও আবু হায়দার রনির ব্যাটে ওঠা ঝড় সামাল দেয় এই ধাক্কা। এই জুটি ৩১ বলে যোগ করে ৭২ রান। এর মধ্যে ৫৯ রানই আসে শামীমের ব্যাটে। তার এমন ঝড়ো ব্যাটিংয়ের পর রংপুরের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৭ উইকেটে ১৪৯ রান।

ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে বোলিংয়ে বরিশাল

প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৬:৫৮ পিএম
ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে বোলিংয়ে বরিশাল
ছবি : সংগৃহীত

ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে মুখোমুখি হয়েছে ফরচুন বরিশাল ও রংপুর রাইডার্স। এই ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বরিশালের অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

এলিমিনেটরে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে ৬ উইকেটে হারিয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে এসেছে ফরচুন বরিশাল। অন্যদিকে প্রথম কোয়ালিফায়ারে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কাছে হেরে সরাসরি ফাইনালে ওঠার সুযোগ হারায় রংপুর রাইডার্স। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে এবার মুখোমুখি হয়েছে বরিশাল ও রংপুর।

দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে নিজেদের একাদশে কোনও পরিবর্তন আনেনি ফরচুন বরিশাল। এলিমিনেটর ম্যাচের একাদশ নিয়ে মাঠে নামে তারা। 

ফরচুন বরিশাল একাদশ :

তামিম ইকবাল, ডেভিড মিলার, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মেহেদি হাসান মিরাজ, জেমস ফুলার, কাইল মায়ার্স, তাইজুল ইসলাম, ওবেদ ম্যাকয়, সাইফউদ্দিন।

রংপুর রাইডার্স একাদশ :

নুরুল হাসান সোহান, সাকিব আল হাসান, রনি তালুকদার, শেখ মাহেদি, শামীম পাটোয়ারি, হাসান মাহমুদ, আবু হায়দার রনি, নিকোলাস পুরান, মোহাম্মদ নবী, জিমি নিশাম, ফজলহক ফারুকি।

তৃতীয় সন্তানের পিতা হলেন উইলিয়ামসন

প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৪:২৯ পিএম
তৃতীয় সন্তানের পিতা হলেন উইলিয়ামসন
ছবি : সংগৃহীত

আগেই জানিয়েছিলেন নবাগত সন্তানকে স্বাগত জানাতেই ছুটি নিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ থেকে। ঠিক প্রথম টেস্ট শুরুর আগের দিন কন্যা সন্তানের বাবা হওয়ার সুখবর দিলেন কেইন উইলিয়ামসন।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই কিউই তারকা সস্ত্রীক নবজাতকের ছবি পোস্ট করে জানিয়েছেন তৃতীয়বার পিতা হওয়ার খবর।

নিজের ইনস্টাগ্রাম পোস্টে তিনি ছবি পোস্ট করে উইলিয়ামসন লেখেন, ‘পৃথিবীতে স্বাগত মিষ্টি মেয়ে। নিরাপদে ভূমিষ্ট হওয়ার জন্য কৃতজ্ঞ। রোমাঞ্চকর যাত্রা শুরু।’

স্ত্রীর পাশে থাকার জন্য অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম এই সেরা ব্যাটার। একইভাবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ থেকেও নিজেকে সরিয়ে রেখেছিলেন ক্রিকেটের আরেক সেরা ব্যাটার বিরাট কোহলি।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে কনওয়েকে ছাড়াই মাঠে নামতে হচ্ছে নিউজিল্যান্ডকে

প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০২:২৩ পিএম
অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে কনওয়েকে ছাড়াই মাঠে নামতে হচ্ছে নিউজিল্যান্ডকে
ছবি : সংগৃহীত

আগামীকাল শুরু হতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার টেস্ট সিরিজ। ওয়েলিংটনে হতে যাওয়া এই টেস্টে খেলা হচ্ছে না দলের উদ্বোধনী ব্যাটার ডেভন কনওয়ের। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেই শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে বাঁ হাতের বুড়ো আঙুলে চোট পান কনওয়ে। সেই চোটের কারণেই তিনি ছিটকে গেছেন এই টেস্ট থেকে।

এখনও নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না ৮ই মার্চ শুরু হওয়া দ্বিতীয় টেস্টে কনওয়ে ফিরবেন কি না। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) প্রথম টেস্টে কনওয়েরের না খেলার ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছেন কিউই অধিনায়ক টিম সাউদি, ‘ইনজুরি 'ক্রিকেটের একটি অংশ এবং এটা অন্যদের জন্য সুযোগ।' ইনজুরিতে পড়ে খেলতে না পারায় ডেভন কনওয়ের অনুপস্থিতিতে দলে ডাক পেয়েছেন আরেক বাঁ-হাতি ব্যাটার হেনরি নিকলস।

দলে ফিরলেও ওপেনিংয়ে জায়গা পাচ্ছেন না তিনি। ওপেনিংয়ে টম লাথামের সঙ্গী হতে যাচ্ছেন উইল ইয়াং।

৬৪ টেস্টে ২৬০ উইকেট নেওয়া ওয়াগনার ক্রিকেটকে বিদায় বলেছেন গতকাল। তাকে নিয়ে সাউদি বলেছেন, 'ড্রেসিংরুমে সে বিশেষ ব্যক্তি হিসেবে ছিলেন। যে কেউ তার সঙ্গে কথা বলতে পারত এবং মাঠে সে যা করত তাতে সবাই তাকে ভালোবাসত।'

সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার প্রথম টেস্টের একাদশে অবশ্য কোনো পরিবর্তন আসেনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হারের স্বাদ পাওয়া টেস্টের একাদশই বহাল থাকছে বলে জানিয়েছেন অজি অধিনায়ক পাট কামিন্স।

‘টাকার জন্য টি-টোয়েন্টি খেলেন স্মিথ’

প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০১:০২ পিএম
‘টাকার জন্য টি-টোয়েন্টি খেলেন স্মিথ’
ছবি : সংগৃহীত

ওয়ার্নারের বিদায়ী টেস্টে তাকে নায়কোচিত সংবর্ধনার আয়োজন করায় তার বিরোধীতা করেন সাবেক অজি পেসার মিচেল জনসন। এবার তার সমালোচনার তীর ছুড়েছেন তিনি স্টিভেন স্মিথের দিকে। ৪২ বছর বয়সী সাবেক এই পেসারের মতে, টাকার জন্য টি-টোয়েন্টি খেলে যাচ্ছেন স্মিথ।

বিশ ওভারের ক্রিকেটে অভিজ্ঞ স্টিভে স্মিথের খেলার খেলার সামর্থ্য নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যম দ্য নাইটলি’র এক কলামে জনসন লিখেন, ‘আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট কি সত্যিই সে খেলতে চায় কি না, তামি তাই ভাবছি। সাদা পোশাকের ক্যারিয়ার শেষে অবশ্যই তখন সে বিশ্বের বিভিন্ন লিগে খেলবে। যে কারণেই এখন মুলা ঝুলিয়ে রাখছে, যেন আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ও বিশ্বকাপে ওর খেলার সম্ভাবনা বাড়ে।’

যথেষ্ট ভারসাম্যপূর্ণ অস্ট্রেলিয়ার বর্তমান দল। তিন বিভাগেই তাদের ক্রিকেটাররা মিডল অর্ডারে ব্যাটিং করা স্মিথের জায়গায় ভালো করছে তরুণরা। এমন অবস্থায় টপ অর্ডার ছাড়া দলে স্মিথের জায়গা দেখছেন না জনসন।

এ প্রসঙ্গে টেনে এনে জনসন লিখেন, ‘ওপেন করলে সে উইকেটে থিতু হতে যথেষ্ট সময় পাবে। সেখানে যদি টিকে যায়, তাহলে মাঠের সবদিকেই মারতে পারবে। অস্ট্রেলিয়ার বিস্ফোরক ব্যাটিং লাইনআপে ওপেনিং পজিশনটাই স্মিথের জন্য মানানসই হতে পারে। তবে তাকে ধারাবাহিক রান করতে হবে বিশ্বকাপ দলে জায়গা করে নিতে হলে।’

এই ফরম্যাটে স্মিথের ক্যারিয়ার খুব একটা প্রসিদ্ধ নয়। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ৫৫ ইনিংসে ২৪.৮৬ গড় ও ১২৫.৪৬ স্ট্রাইক রেটে করেছেন ১০৯৪ রান। সবশেষ নিউজিল্যান্ড সফরেও ব্যাট হাতে ব্যর্থ হয়েছেন স্মিথ। ওপেনিংয়ে সুযোগ পেয়েও করেছেন যথাক্রমে ১১ ও ৪ রান।