ঢাকা ৬ বৈশাখ ১৪৩১, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪
Khaborer Kagoj

অডিও থেকে হুবহু কণ্ঠস্বর নকল করে এআই মডেল ‘ভয়েস ইঞ্জিন’

প্রকাশ: ৩১ মার্চ ২০২৪, ১০:৪৭ এএম
অডিও থেকে হুবহু কণ্ঠস্বর নকল করে এআই মডেল ‘ভয়েস ইঞ্জিন’

যুক্তরাষ্ট্রের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) নির্ভর প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ওপেনএআই হুবহু কণ্ঠস্বর নকল করতে পারে- এমন একটি এআই মডেল তৈরি করেছে। এই এআই মডেলের নাম ‘ভয়েস ইঞ্জিন’। মাত্র ১৫ সেকেন্ডের অডিও নমুনা বিশ্লেষণ করে যেকোনো ব্যক্তির কণ্ঠস্বর অনুকরণ করতে পারে এই এআই টুল, যা শুনতে মানুষের আবেগপূর্ণ ও সত্যিকারের কণ্ঠস্বরের মতো মনে হয়। গত শুক্রবার প্রতিষ্ঠানটির এক ব্লগ পোস্টে এমনটাই দাবি করা হয়েছে।

ওপেনএআই ২০২২ সালের শেষদিকে ভয়েস ইঞ্জিন তৈরি করে। এই মডেল প্রতিষ্ঠানটির টেক্সট-টু-স্পিচ এপিআইয়ের ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে। বর্তমানে এই টেক্সট-টু-স্পিচ এপিআইয়ের সম্প্রসারণ করেছে। এই ভয়েস ইঞ্জিনের টেক্সট-টু-স্পিচ এপিআইয়ের মাধ্যমে চ্যাটজিপিটি প্ল্যাটফর্মে ভয়েস ও রিড অ্যালাউড ফিচারে ব্যবহার করা হয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, কৃত্রিম কণ্ঠস্বরের অপব্যবহারের সম্ভাবনার কারণে এটির ব্যাপকভাবে ব্যবহারের জন্য সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। এর অংশ হিসেবে প্রতিষ্ঠানটি প্রযুক্তিসংশ্লিষ্টদের সঙ্গে এ বিষয়ে একটি সংলাপ শুরু করার আশা করছে। যেখানে এই মডেলের মাধ্যমে কৃত্রিম কণ্ঠস্বরকে যেন খারাপ কাজে ব্যবহার না করা হয় এবং নতুন এই প্রযুক্তি সমাজের সঙ্গে খাপ খাওয়ানো যায়, সে বিষয়ে আলোচনা করা হবে। এখান থেকে প্রাপ্ত তথ্য, পরামর্শ এবং এই প্রযুক্তির ছোট আকারের পরীক্ষার ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে এটি ব্যাপকভাবে চালু করা উচিত কি না বা কীভাবে করা উচিত, সে সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেবে। ওপেনএআই বলেছে, এই মডেল পড়ার সহায়তা, ভাষা অনুবাদ ও হঠাৎ কথা বলার সক্ষমতা ক্ষতিগ্রস্ত বা হারিয়ে ফেলেছেন এমন ব্যক্তিদের সহায়তায় ব্যবহার উপযোগী হবে। প্রতিষ্ঠানটি ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষামূলক প্রোগ্রামে স্কুল প্রকল্পের জন্য রেকর্ড করা অডিও থেকে ভয়েস ইঞ্জিন ক্লোন তৈরি করে, বাকপ্রতিবন্ধকতার সমস্যায় আক্রান্ত রোগীকে সাহায্য করেছে।

জাহ্নবী

নতুন এক্স ব্যবহারকারীদের পোস্টের জন্য খরচ হবে অর্থ

প্রকাশ: ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ১১:২৪ এএম
নতুন এক্স ব্যবহারকারীদের পোস্টের জন্য খরচ হবে অর্থ

মার্কিন ধনকুবের ইলন মাস্কের মালিকানাধীন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে (সাবেক টুইটার) পোস্ট করার জন্য নতুন ব্যবহারকারীদের অর্থ খরচ করতে হবে। ভুয়া অ্যাকাউন্ট ও বটের সমস্যা সমাধানে এই নতুন পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন মাস্ক।

মাস্কের মালিকানাধীন সামাজিক প্ল্যাটফর্মটি বট সমস্যায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। এ সমস্যা সমাধানের পথ খুঁজছিল প্ল্যাটফর্মটি। তাই তারা মনে করছে- নতুন ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে পোস্টের জন্য নামমাত্র ফি নেওয়া হলে এই সমস্যা উতরানো যাবে।

ইলন মাস্ক এক্সের এক পোস্টে নিশ্চিত করেছেন, ‘নতুন এক্স ব্যবহারকারীদের পোস্ট করার জন্য এবং এমনকি রিপ্লাই দেওয়ার জন্য অর্থ প্রদান করতে হবে।’

মাস্ক আরও বলেন, ‘স্প্যাম ও বট এক্সে বড় ধরনের সমস্যা তৈরি করছে। এ সমস্যা কমানোর একমাত্র উপায়, নতুন যারা প্ল্যাটফর্মে যোগ দিচ্ছেন তাদের থেকে অর্থ আদায় করা।’ তবে সবাই ফ্রিতে প্ল্যাটফর্মটি ফলো ও ব্রাউজ করতে পারবে। নতুন কেউ যদি এক্সে যোগ দিতে আগ্রহী হয়, তাদের ফি দিতে হবে। যদিও ব্যবহারকারীদের এর জন্য ঠিক কত অর্থ খরচ করতে হবে ও কবে নাগাদ এই নীতি কার্যকর হবে তা জানানো হয়নি। ক্যাপচার মতো টুলের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ব্যবহারকারী বট কি না বর্তমানে এআই প্রযুক্তি এ ধরনের পরীক্ষা সহজেই পাশ কাটিয়ে যেতে পারে।

আরেক ব্যবহারকারীর পোস্টে মাস্ক বলেন, নতুন ব্যবহারকারীদের কেবল তিন মাসের জন্য ফি দিতে হবে। এরপর থেকে বিনামূল্যে পোস্ট করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা ।

এক্সের এই কৌশল আগে থেকেই পরীক্ষা করা হচ্ছে। গত বছরের অক্টোবরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটি নিউজিল্যান্ড ও ফিলিপাইনে নতুন অ্যাকাউন্টের জন্য ১ মার্কিন ডলার ফি নেওয়া শুরু করেছে। এসব অঞ্চলে এক্সের নতুন ব্যবহারকারীরা বিনামূল্যে পোস্টগুলো পড়তে পারেন, তবে কারও সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন না। কনটেন্ট পোস্ট, লাইক, রিপোস্ট, রিপ্লাই, বুকমার্ক ও উদ্ধৃতি পোস্টের জন্য তাদের একটি ফি দিতে হয়। অন্যান্য অঞ্চলের জন্যও এমন ফি নির্ধারণ করতে পারে মাস্ক।

কলি 

 

মাইক্রোসফটের সফটওয়্যার ও পরিষেবায় নিরাপত্তা ত্রুটি

প্রকাশ: ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ১২:১৯ পিএম
মাইক্রোসফটের সফটওয়্যার ও পরিষেবায় নিরাপত্তা ত্রুটি

মার্কিন প্রযুক্তি জায়ান্ট মাইক্রোসফটের অপারেটিং সিস্টেম ‘উইন্ডোজ ১০’ ও ‘উইন্ডোজ ১১’সহ প্রতিষ্ঠানটির তৈরি বিভিন্ন সফটওয়্যার ও প্রযুক্তিতে একাধিক নিরাপত্তা ত্রুটি খুঁজে পেয়েছে ভারতের কম্পিউটার ইমার্জেন্সি রেসপন্স টিম (সিইআরটি-ইন)। গত শুক্রবার মাইক্রোসফটের প্রযুক্তিপণ্য ব্যবহারকারীদের সতর্ক করে সিইআরটি-ইন এক সতর্কবার্তা প্রকাশ করেছে।

সতর্কবার্তায় সরকারি সংস্থাটি জানিয়েছে, এসব ত্রুটির কারণে মাইক্রোসফটের নিরাপত্তাব্যবস্থা পাশ কাটিয়ে ব্যবহারকারীদের তথ্য বেহাত হতে পারে। উইন্ডোজ ১১, উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেমসহ কিছু উইন্ডোজ পণ্য ও পরিষেবাতে ত্রুটি খুঁজে পেয়েছে তারা। এই নিরাপত্তা ত্রুটির কারণে হ্যাকাররা নিরাপত্তা বিধিনিষেধগুলো এড়িয়ে ব্যবহারকারীদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হাতিয়ে নিতে পারে। 

সিইআরটি-ইন সতর্কবার্তায় জানিয়েছে, ৩৫টিরও বেশি মাইক্রোসফটের প্রযুক্তিপণ্যের সংস্করণে নিরাপত্তা ত্রুটি রয়েছে। উইন্ডোজ ১০ ও উইন্ডোজ ১১ ছাড়াও মাইক্রোসফট অফিস, ব্রাউজার, ডেভেলপার টুলস, আজুরা, মাইক্রোসফট ডায়নামিকস, এক্সচেঞ্জ সার্ভার এবং সিস্টেম সেন্টারে একাধিক নিরাপত্তা ত্রুটি রয়েছে। এসব ত্রুটি কাজে লাগিয়ে দূর থেকে ক্ষতিকর কোড পাঠিয়ে ডিভাইসের নিয়ন্ত্রণও নেওয়া সম্ভব।

কম্পিউটার ইমার্জেন্সি রেসপন্স টিম উইন্ডোজসহ মাইক্রোসফটের তৈরি বিভিন্ন অ্যাপলিকেশনে ও প্রযুক্তিতে নিরাপত্তা ত্রুটি থাকায়, ব্যবহারকারীদের নিরাপদ থাকতে উইন্ডোজসহ সব প্রযুক্তি ও সফটওয়্যারের সর্বশেষ আপডেট সংস্করণ ও নিরাপত্তা প্যাচ ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে। এর জন্য মাইক্রোসফট স্টোর বা অফিশিয়াল পেজ থেকে এই অ্যাপলিকেশনগুলোর সর্বশেষ সংস্করণ ইনস্টল করতে হবে। কারণ প্রতিষ্ঠানটি উইন্ডোজ সংস্করণের সর্বশেষ সংস্করণ আপডেট করতে পারে। অ্যাপ বা অপারেটিং সিস্টেমের জন্য সর্বশেষ সংস্করণ ব্যবহার করা সবসময় ভালো।

মাইক্রোসফটের নিরাপত্তা ত্রুটি ছাড়াও সিইআরটি-ইন ব্যবহারকারীদের অ্যান্ড্রয়েড ও মজিলা ফায়ারফক্স ওয়েব ব্রাউজারের ত্রুটি সম্পর্কেও সতর্ক করেছে। এই নিরাপত্তা ত্রুটি ব্যক্তিগত ডেটাতে প্রবেশাধিকার ও ডিওএস আক্রমণের অনুমতি দিতে পারে।

নিরাপত্তা ত্রুটিযুক্ত অ্যান্ড্রয়েড সংস্করণগুলোর মধ্যে রয়েছে- অ্যান্ড্রয়েড ১২/১২এল, অ্যান্ড্রয়েড ১৩ ও অ্যান্ড্রয়েড ১৪। ফায়ারফক্সের ক্ষেত্রে ১২৪.০.১-এর আগের সংস্করণগুলো এবং ১১৫.৯.১-এর নিচে ফায়ারফক্স ইএসআর সংস্করণগুলো আক্রমণের ঝুঁকিতে রয়েছে। এক্ষেত্রেও ব্যবহারকারীদের সর্বশেষ সংস্করণে আপডেট করতে পরামর্শ দিয়েছে।

সূত্র: টেকলুসিভ

কলি

 

গুগলের ‘পিক্সেল নাইন’ সিরিজে স্যাটেলাইট যোগাযোগ ফিচার

প্রকাশ: ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১১:২৯ এএম
গুগলের ‘পিক্সেল নাইন’ সিরিজে স্যাটেলাইট যোগাযোগ ফিচার

যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি জায়ান্ট গুগলের জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড ‘পিক্সেল’। এই ব্র্যান্ডের লাইনআপে যুক্ত হতে যাচ্ছে ‘পিক্সেল নাইন’ সিরিজ। এই সিরিজের স্মার্টফোনগুলোয় প্রতিষ্ঠানটি স্যাটেলাইট যোগাযোগ ব্যবস্থা যোগ করবে। এর আগে বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে গণমাধ্যমে এই সিরিজ সম্পর্কে তথ্য প্রকাশ পেয়েছে। গুগলের আসন্ন পিক্সেল নাইন সিরিজ এই বছরের শেষের দিকে উন্মোচন করার কথা রয়েছে। এর আগে পিক্সেলের কোনো ফোনে স্যাটেলাইট যোগাযোগ ব্যবস্থার ফিচার ছিল না।

গুগল পিক্সেল নাইন সিরিজে স্যাটেলাইট যোগাযোগ ফিচারের জন্য ব্যবহার করা হবে স্যামসাং মডেম। গুগলের এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড অথরিটির রিপোর্ট বলা হয়েছে, পিক্সেল নাইনে নতুন স্যামসাং মডেম ৫৪০০ ব্যবহার করা হবে, যা এটিকে ফাইভ জি নন-টেরেস্ট্রিয়াল নেটওয়ার্ক (এনটিএন) এর মাধ্যমে স্যাটেলাইটের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনে সক্ষম করবে। ফলে যেখানে সেল ফোন সেবা পাওয়া যায় না, এমন দূরবর্তী অবস্থান থেকে জরুরি বার্তা পাঠানো যাবে।

প্রাথমিকভাবে এই সেবাটি দেবে ‘টি-মোবাইল’, যা স্পেসএক্সের স্টারলিংকের ‘ডাইরেকট টু সেল’ নেটওয়ার্কের সাহায্য নেবে। এর সাহায্যে প্রাথমিকভাবে ব্যবহারকারীরা টেক্সট মেসেজ পাঠাতে পারবেন। তবে কল করতে পারবেন না।

স্পেসএক্স সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ব্যাপকভাবে সেলুলার স্টারলিংক পরীক্ষা করার জন্য এফসিসির অনুমোদন পেয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে কয়েকটি রাজ্যে পরীক্ষা ও বিশ্বব্যাপী পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি।

এর আগে চলতি বছরের মার্চ মাসে স্পেসএক্স পিক্সেল নাইনসহ শীর্ষস্থানীয় স্মার্টফোন উৎপাদনকারীদের ফোনে সেলুলার স্টারলিংক সেবার সফলভাবে পরীক্ষা সম্পন্ন করেছে। অ্যান্ড্রয়েড অথরিটি জানিয়েছে, পিক্সেল নাইনের জরুরি টেক্সট বার্তা পাঠানোর জন্য নির্দিষ্ট নির্দেশাবলি থাকবে। এটি জরুরি পরিষেবায় যোগাযোগ আরও সহজ করবে। এটি অনেকটা আইফোনে অ্যাপলের জরুরি এসওএস ফিচারের মতো।

কলি

 

হুয়াওয়ে আনবে তিন ভাঁজের স্মার্টফোন

প্রকাশ: ০৮ এপ্রিল ২০২৪, ১১:২২ এএম
হুয়াওয়ে আনবে তিন ভাঁজের স্মার্টফোন

চীনা প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে প্রতিনিয়ত স্মার্টফোনের ডিজাইনসহ উদ্ভাবনী প্রযুক্তিতে যোগ করতে কাজ করে চলেছে। এর ধারাবাহিকতায় প্রতিষ্ঠানটি এবার ফোল্ডেবল বা ডিসপ্লে ভাঁজ করা যায়- এমন স্মার্টফোন বাজারে নতুন সংযোজন আনতে চলেছে। তিন ভাঁজের ডিসপ্লের স্মার্টফোন আনবে চীনা প্রতিষ্ঠানটি। হুয়াওয়ে সম্প্রতি তিন ভাঁজযোগ্য ডিসপ্লের স্মার্টফোন তৈরির পেটেন্ট আবেদন করেছে। প্রযুক্তি দুনিয়ায় গুঞ্জন রয়েছে, চলতি বছরের শেষ নাগাদ এ স্মার্টফোন বাজারে আনতে পারে প্রতিষ্ঠানটি।  

প্রযুক্তিবিষয়ক সংবাদমাধ্যম গিজমোচায়না আইটিহোমের বরাত দিয়ে সম্প্রতি হুয়াওয়ের করা পেটেন্ট আবেদনের বিষয়টি জানিয়েছে। সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদনে জানা যায়, ডিভাইসটি ভাঁজ করা অবস্থায় ইংরেজি ‘জেড’ অক্ষরের মতো দেখাবে। ভাঁজের জন্য ডিভাইসে আলাদা দুটি হিঞ্জ সিস্টেম থাকবে। এ ডিভাইসের অন্যতম একটি ফিচার হলো দ্বিতীয় হিঞ্জে থাকা ডিসপ্লেটি বাইরের দিকেও খোলা যাবে। ফলে ডিভাইস ভাঁজ করা থাকলেও ডিসপ্লের তৃতীয় অংশটি পুরোপুরি ব্যবহার করা যাবে।

এর আগে চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে যুক্তরাষ্ট্রের লাসভেগাসে অনুষ্ঠিত প্রযুক্তিপণ্যের মেলা কনজ্যুমার ইলেকট্রনিক শোতে (সিইএস) ডিসেপ্লে তিন ভাঁজ করা যাবে- এমন স্মার্টফোনের ধারণা দিয়েছিল দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তি জায়ান্ট স্যামসাং। তবে এ ধরনের ফোন বাজারে আনার বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানায়নি প্রতিষ্ঠানটি। প্রযুক্তিসংশ্লিষ্টদের মতে, চলতি বছর হয়তো দুটি কোম্পানি একই সঙ্গে ডিভাইসগুলো বাজারে আনতে পারে।

২০২৩ সালের শেষদিকে বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ট্রেন্ডফোর্সের (TrendForce) সর্বশেষ তথ্যে অনুযায়ী জানা যায়, হুয়াওয়ে ডিসপ্লে তিন ভাঁজ করা যায় এমন ফোনের জন্য কাজ করছে। গত বছরের নভেম্বরে হুয়াওয়ের এক ব্লগপোস্টে বলা হয়, ২০২৪ সালের মার্চ মাস নাগাদ এই নতুন ট্রিপল-ফোল্ডেবল ফোন লঞ্চ করা হতে পারে।

গঠনগত সমস্যার কারণে এখন পর্যন্ত তিন ভাঁজের স্মার্টফোন বাজারে আসেনি। কেননা যন্ত্রাংশের কারণে এর ওজন বেড়ে যাওয়ায় ব্যবহার করা কঠিন হয়ে যায়। তবে হুয়াওয়ের পেটেন্ট সূত্রে জানা গেছে, প্রতিষ্ঠানটির নতুন এ ডিভাইসের প্রতিটি যন্ত্রাংশের ওজন আলাদা থাকবে। ফলে ডিভাইসের ওজনও তুলনামূলক কম হবে। হুয়াওয়ের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত নতুন এ স্মার্টফোন বাজারজাতের বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি।

কলি

বাজেটের মধ্যে কিনেতে পারেন ল্যাপটপ

প্রকাশ: ০৭ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৫০ এএম
বাজেটের মধ্যে কিনেতে পারেন ল্যাপটপ

বর্তমান আধুনিক যুগে শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে পেশাদারদের দৈনন্দিন কাজের একটি মৌলিক চাহিদা হয়ে উঠেছে ল্যাপটপ। কনটেন্ট তৈরি, মিডিয়ার ব্যবহার বা পেশাদার কাজে একটি ভালো ল্যাপটপ যেকোনো কাজকে সহজ করে দেয়। তবে কিনতে গিয়ে ল্যাপটপের ফিচার, কর্মক্ষমতা ও দামের মধ্যে সমন্বয় জটিল হয়ে যায়।

আসুস ভিভোবুক গো ফিফটিন শিক্ষার্থী ও কর্মজীবীদের ব্যবহারের জন্য বেশ উপযোগী হবে। এটিতে রয়েছে সেভেন জেনারেশন এএমডি রাইজেন ৫ ৭৫২০ইউ  সিপিই। এটির ওজন মাত্র ১ দশমিক ৬৩ কেজি। ল্যাপটপটিতে রয়েছে ৮ জিবি র‌্যাম ও ৫১২ জিবি এসএসডি স্টোরেজসহ উইন্ডোজ ইলেভেন। ডিভাইসটির ডিসপ্লের রেজ্যুলুশন ১৯২০ x ১০৮০ পিক্সেল। আর এই প্যানেলের সর্বোচ্চ উজ্জ্বলতা হবে ২৫০ নিটস। বাংলাদেশে এটির দাম পড়বে ৭৮ হাজার টাকার আশপাশে।

লেনোভো থিংকবুক ফিফটিন জি-ফাইভ হাল্কা থেকে মাঝারি ধরনের কাজের জন্য ভালো হবে। এতে রয়েছে শক্তিশালী এমডি রাইজেন-৫ ৭৫৩০ সিপিইউ। এই ল্যাপটপে রয়েছে উচ্চ রেজ্যুলুশনের ডিসপ্লে, যার আকার ১৫ দশমিক ৬ ইঞ্চি।  এতে রয়েছে ৮ জিবি র‌্যাম ও ৫১২ জিবি এসএসডি স্টোরেজসহ ২০২৪ সালের স্ট্যান্ডার্ড ফিচারগুলো। ভালো মানের অডিওর জন্য এটিতে রয়েছে ‘ডলবি অডিও’ প্রযুক্তি। এর দাম পড়বে প্রায় ৭০ হাজার টাকা।

এমএসআই মডার্ন ফোরটিন মাল্টিটাস্কের জন্য আদর্শ ডিভাইস। ল্যাপটপটিতে কোর আই-ফাইভ ১২৩৫ইউ প্রসেসরের সঙ্গে ইন্টিগ্রেটেড আইরিস এক্স গ্রাফিক্স রয়েছে। এতে রয়েছে ১৬ জিবি র‌্যাম ও ৫১২ জিবি এসএসডি স্টোরেজ সুবিধা। এই ল্যাপটপটি বেশ হাল্কা। এর ওজন মাত্র ১ দশমিক ৪ কেজি। এটি কিনতে খরচ করতে হবে প্রায় ৮১ হাজার টাকা।

কলি